ঢাকা, বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০১৩, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২০, ১৯ রজব ১৪৩৪
¦
« পূর্ববর্তী সংবাদ
নাবিলার অফট্র্যাক-অনট্র্যাকটেলিভিশন অনুষ্ঠান, স্টেজ শো আর বিভিন্ন ইভেন্ট উপস্থাপনায় একচ্ছত্র অবস্থান নাবিলার। তবে এই পরিচিতির পরিবর্তন, পরিবর্ধন ঘটতে পারে। তিনি হতে পারেন শিক্ষক, স্বেচ্ছাসেবক, অনুষ্ঠান নির্মাতা- অনেক কিছুই। ব্যক্তিগত, পেশাগত অনেক বিষয় নিয়ে নাবিলার সঙ্গে আলাপচারিতায় বসলেন খায়রুল বাসার নির্ঝর, ছবি তুলেছেন তারেক আজিজ নিশক
নাবিলার আশপাশের কিছু বন্ধু সমাজকর্মের সঙ্গে জড়িত। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ঘুরে ঘুরে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের ইংরেজি বিষয়ে পাঠদান করেন তাঁরা। বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলে শিক্ষাকাঠামো অতটা শক্ত হয়নি এখনো। রয়ে গেছে পাঠদানের দুর্বলতা। যোগ্য শিক্ষকের অভাব। নাবিলার কয়েক বন্ধু মিলে সমস্যাগুলো লাঘবের চেষ্টা করে যাচ্ছে প্রাণান্ত। দেশ আর সমাজের উপকারে নিজেকে ঢেলে দেওয়ার এই ইচ্ছাটা ইদানীং মাথার ভেতর খুব ঘুরছে। বন্ধুদের সঙ্গে অচিরেই কাজে নেমে পড়বেন তিনি। চষে বেড়াবেন গ্রামের এ-স্কুল থেকে ও-স্কুলে। দিন গড়াচ্ছে, মজবুত হচ্ছে সিদ্ধান্তের ভিত আর আনন্দে উজ্জ্বল হয়ে উঠছে চোখ-মুখ। মানুষের জন্য কিছু করতে পারার আনন্দ তো সীমাহীন! ঠোঁটের কোণে মৃদু হাসি ঝুলিয়ে নাবিলা বলেন, 'গ্রামাঞ্চলের এই অবহেলিত মানুষগুলোর জন্য আসলেই কিছু করা উচিত। আমরা যদি এগিয়ে না আসি তো কারা আসবে? ইংরেজি টিচিং নিয়ে গ্র্যাজুয়েশন করেছি আমি; এটাই এখন কাজে লাগাতে চাই।' তাত্তি্বক পড়াশোনাকে ব্যবহারিক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার আরো একটা পথ খুলে রেখেছেন নাবিলা। তিনি শিক্ষক হতে চেয়েছেন। নাবিলা টপিক বিশ্লেষণ করছেন। আর ক্লাস ভর্তি ছাত্রছাত্রী পিনপতন নীরবতায় শুনে যাচ্ছে তাঁর কথা- কল্পনায় এই দৃশ্যটি বড় জীবন্ত।
নাবিলা বললেন, 'পেশা হিসেবে শিক্ষকতাকে ভালো লাগার একটা বিশেষ কারণ আছে। একজন শিক্ষককে যেকোনো বিষয় নিয়ে প্রচুর কথা বলতে হয়। জানাশোনার গভীরতা প্রকাশ করতে হয় কথার মাধ্যমে। আমি কথা বলতে ভালোবাসি। এ কারণেই হয়তো শিক্ষকতা ভালো লাগে।' শিক্ষক হওয়ার স্বাদ এরই মধ্যে কিছুটা পেয়েও গেছেন নাবিলা। গ্র্যাজুয়েশন শেষ করার পর পরই একটা স্কুলে বেশ কিছুদিন পড়িয়েছেন তিনি।
উপস্থাপনা দিয়েই নাবিলা টেলিভিশন পর্দায় আসেন। ২০০৩ সালে বাংলাভিশনে 'প্রোগ্রাম প্রেজেন্টার' পদে যোগ দেওয়ার পর থেকে সময় কেবলই গড়িয়েছে; তাঁর ক্ষেত্রের কোনো পরিবর্তন হয়নি। তবে বিস্তৃত হয়েছে। এখন যেকোনো চ্যানেলের ভিন্নধর্মী অনুষ্ঠান মানেই সঞ্চালক হিসেবে নাবিলা। চলতি সময়ে এশিয়ান টিভির দুটি অনুষ্ঠান- 'স্টারড্যান্স' আর 'রাতের তারা' চলছে নাবিলার উপস্থাপনায়। নাবিলা বলেন, 'এখন কাজ করার জন্য আগের মতো মন টানে না আর। সেইভাবে সৃজনশীল কোনো অনুষ্ঠান নির্মিত হচ্ছে না। উপস্থাপনার আসল মজাটা পাচ্ছি না। প্রোগ্রাম যা হচ্ছে, সবই কপি। হয়তো ভারতীয় চ্যানেলের কোনো অনুষ্ঠানের কপি, নয়তো দেশের অন্য কোনো চ্যানেলের। আইডিয়া ধার করে করে চলছে অনুষ্ঠান নির্মাণ।' নাবিলা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অনুষ্ঠান নির্মাণ করবেন। উপস্থাপনার এ দীর্ঘ ক্যারিয়ারে যে টুকরো টুকরো অভিজ্ঞতা, তাকে পুঁজি করে ভিন্নধর্মী ও ভালো মানের বেশ কিছু অনুষ্ঠান উপহার দেওয়ার ইচ্ছা নাবিলার। কাউকে অনুসরণ বা অনুকরণ না করেও যে ভালো কিছু দেওয়া সম্ভব, সেটা আরেকবার কর্তৃপক্ষের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেওয়ার চ্যালেঞ্জ নিতে মুখিয়ে আছেন তিনি।
নাবিলা বেড়ে ওঠা সৌদি আরবে। জন্মও সেখানেই। জেদ্দা শহরে কেটেছে তাঁর জীবনের সবচেয়ে আনন্দময় অধ্যায়- কৈশোর। স্কুলজীবনের সবটুকু স্মৃতি জেদ্দাকে ঘিরেই। এসএসসির পর পুরো পরিবার স্থায়ীভাবে ঢাকায় বসবাসের মধ্য দিয়ে শুরু হয় নতুন অধ্যায়। তাঁর উপস্থাপনাজীবনেও এ সময়টা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে ইন্টারমিডিয়েটে ভর্তি, বাংলাভিশনে অনুষ্ঠান উপস্থাপক হিসেবে যোগদান, অতঃপর কেবলই সফলতার সঙ্গে বন্ধুত্ব করে যাওয়া। সে সফলতার গল্প হবে আরেক দিন।
« পূর্ববর্তী সংবাদ
আজকের পাঠকসংখ্যা
৫৯২৯৯০
পুরোনো সংখ্যা
সম্পাদক : ইমদাদুল হক মিলন, উপদেষ্টা সম্পাদক : অমিত হাবিব, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের পক্ষে ময়নাল হোসেন চৌধুরী কর্তৃক প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বসুন্ধরা, বারিধারা থেকে প্রকাশিত এবং প্লট-সি/৫২, ব্লক-কে, বসুন্ধরা, খিলক্ষেত, বাড্ডা, ঢাকা-১২২৯ থেকে মুদ্রিত।
বার্তা ও সম্পাদকীয় বিভাগ : বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, প্লট-৩৭১/এ, ব্লক-ডি, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯। পিএবিএক্স : ০২৮৪০২৩৭২-৭৫, ফ্যাক্স : ৮৪০২৩৬৮-৯, বিজ্ঞাপন ফোন : ৮১৫৮০১২, ৮৪০২০৪৮, বিজ্ঞাপন ফ্যাক্স : ৮১৫৮৮৬২, ৮৪০২০৪৭। E-mail : info@kalerkantho.com
free counters
Latest News Portal Food Recipe in Bangladesh jobs in Bangladesh