kalerkantho


গোবিন্দগঞ্জের আদিবাসী-বাঙালি শিক্ষার্থী

সম্প্রীতির দেশ গড়ার শপথ

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোত্রের ঊর্ধ্বে উঠে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক ও সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়ার শপথ নিল আদিবাসী-বাঙালি শিক্ষার্থীরা। গতকাল শনিবার আদিবাসী

অধ্যুষিত এলাকা গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের সাহেবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে চার শতাধিক শিক্ষার্থী এ শপথ নেয়। তারা নারী, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী মানুষের প্রতি শ্রদ্ধাপূর্ণ আচরণ করার এবং মানবাধিকার রক্ষায় ভূমিকা রাখারও শপথ নেয়। অনুষ্ঠান শেষে তাদের মধ্যে ক্রীড়াসামগ্রী বিতরণ করে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অবলম্বন।

এর আগে ইউএনডিপির সহযোগিতায় সাহেবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাজী রওশন হায়দারের সভাপতিত্বে এ উপলক্ষে মুক্তিযুদ্ধ, শিক্ষা ও মানবাধিকারবিষয়ক আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন রংপুর বিভাগীয় আম্পায়ার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও সাবেক ক্রিকেটার ওয়াজিউর রহমান রাফেল, আদিবাসী নেতা গৌড়চন্দ্র পাহাড়ি, অবলম্বন সংস্থার সভাপতি কৃষিবিদ সাদেকুল ইসলাম, নির্বাহী পরিচালক প্রবীর চক্রবর্তী, সাহেবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোজাম্মেল হক, শিক্ষক আমির হোসেন প্রধান, মোখলেছুর রহমান, গোলাম মোস্তাফা প্রমুখ।

ওয়াজিউর রহমান রাফেল বলেন, শিক্ষাসহ সব মৌলিক অধিকার জাতি-ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে সবাই লাভ করবে—এটি মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল। ভেদহীন সমাজ প্রতিষ্ঠায় আগামী প্রজন্মকে যথাযথ শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। কারণ শিক্ষা শুধু বুদ্ধিবৃত্তিক বিকাশ নয়, ব্যক্তির শারীরিক, সামাজিক, আবেগিক ও অন্যান্য দিকেরও সুষম বিকাশ সাধন করে। শিক্ষা ব্যক্তিজীবনের একটি নির্দিষ্ট সময়েই ঘটে না, শিক্ষা জীবনব্যাপী বিস্তৃত। শুধু বিদ্যালয়ে নয়, শিক্ষা অর্জিত হয় বাড়িতে, সমাজে, খেলার মাঠে এবং সর্বত্র। খেলাধুলা জীবনকে সুন্দর ও পরিশীলিত করে।

 



মন্তব্য