kalerkantho


আনকোরা অ্যানড্রয়েড

এত দিন চলছিল ‘অ্যানড্রয়েড ৮’-এর বেটা সংস্করণ। ব্যবহার করতে পারছিল ডেভেলপারসহ সীমিতসংখ্যক ব্যবহারকারী। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চলতি মাসেই সংস্করণের অপারেটিং সিস্টেমটি উন্মুক্ত করবে গুগল। এর নাম ‘অ্যানড্রয়েড ও’ রাখা হচ্ছে বলে জানা গেছে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন এস এম তাহমিদ

১৯ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



আনকোরা অ্যানড্রয়েড

অ্যানড্রয়েড ৮-এর পরীক্ষামূলক সংস্করণ গুগল পিক্সেল ও নেক্সাস ব্যবহারকারীদের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে আগেই। তাই এতে নতুন কী কী সুবিধা থাকছে, তা এখন আর অজানা নয়।

 

নতুন সুবিধা 

পিকচার ইন পিকচার : স্ক্রিনে একসঙ্গে দুই অ্যাপ চালানোর সুবিধা অ্যানড্রয়েড নুগ্যাটেই যুক্ত করা হয়েছিল। একধাপ এগিয়ে এবার যুক্ত হচ্ছে চালু অ্যাপের ওপর আরেক উইন্ডো চালনার সুবিধা। মূলত ইউটিউব ভিডিও ও গুগল ডুয়োর মাধ্যমে ভিডিও কল করার জন্য সুবিধাটি দেওয়া হয়েছে। গুগল ডকে লেখার সময় ব্রাউজারে রেফারেন্স খোলা রাখা বা ইউটিউব ভিডিও চালু অবস্থায় ম্যাসেঞ্জারে চ্যাট করার মতো সাধারণ মাল্টিটাস্কিং অ্যানড্রয়েড ফ্যাবলেট বা ট্যাবলেটে যোগ করবে নতুন মাত্রা।

 

দ্রুত বুট : ডিভাইস চালুর সময় অ্যাপের ডাটা র্যামে পাঠানো, কম্পাইল করা, সর্বশেষ টাস্কগুলো মেমরিতে ঢোকানোর মতো কাজগুলো বুট করার ক্ষেত্রে অনেক সময় লাগে। অ্যানড্রয়েড ৮-এর ক্ষেত্রে ডিভাইসগুলোতে এই কাজগুলো করা হবে বুট শেষ হওয়ার পর। ফলে ফোনের বুট করার সময় কমে দাঁড়াবে অর্ধেকে।

 

আড়ালে থাকা অ্যাপ বন্ধ রাখা : অ্যানড্রয়েডের আসল সুবিধা মাল্টিটাস্কিং। ফলে একসঙ্গে একাধিক অ্যাপ চালানো যায়।

কিন্তু এই সুবিধার খারাপ দিক হচ্ছে, ফোনে থাকা অ্যাপগুলোর বেশির ভাগই স্ক্রিনে না দেখালেও পেছনে চলতে থাকে। এতে প্রচুর ইন্টারনেট ডাটা ও ব্যাটারি ক্ষয় হয়। এ সমস্যার অনেকটাই লাঘব হচ্ছে অ্যানড্রয়েড ৮-এ। থাকছে প্রয়োজনীয় অ্যাপের তালিকা তৈরির সুবিধা। এই তালিকায় যে অ্যাপ যুক্ত করা হবে, শুধু সেগুলোই সব সময় চালু থাকবে। বাকি অ্যাপগুলো ক্লিক না করা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। ফলে ডাটা ও ব্যাটারি ক্ষয় কমবে।

 

কপি পেস্ট সহজে : প্রয়োজনীয় তথ্য সহজে কপি করে পেস্ট করার সুবিধা যুক্ত হচ্ছে এবার। যেমন—ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে একটি ঠিকানা এলে, সম্পূর্ণ ঠিকানাটি একসঙ্গে নির্বাচন করে সেটি গুগল ম্যাপে বা উবারে কাঙ্ক্ষিত গন্তব্য দেখানোর জন্যও ব্যবহার করা যাবে।

 

অ্যাপ আইকন ও নোটিফিকেশন ডট : অ্যানড্রয়েডে ব্যবহার উপযোগী অ্যাপ তৈরি সবার জন্য উন্মুক্ত। বিশ্বের প্রায় সব দেশ থেকেই অ্যাপ তৈরি হয়। তবে এসব অ্যাপের আইকন ও থিমের আকারে কিছু সীমাবদ্ধতা ছিল। এ অবস্থা লাঘবে এবার থাকছে ‘অ্যাডাপ্টিভ অ্যাপ আইকন’। চতুষ্কোণ, গোল, লম্বাটে—যেকোনো ধরনের আইকনই তৈরি করা যাবে অ্যানড্রয়েড ৮-এ।

আবার অতিরিক্ত নোটিফিকেশনের কারণে কোন অ্যাপে কী তথ্য এলো তা খেয়াল রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। নতুন অ্যানড্রয়েডে অ্যাপের আইকনের ওপর একটি ডট দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কোন কোন অ্যাপের নোটিফিকেশন এখনো নজরে আসেনি, তা এই ডট দেখে বোঝা যাবে।

 

উজ্জ্বল ও নির্ভুল রঙের ডিসপ্লে : ডিসপ্লেতে নির্ভুল রং দেখাতে থাকছে কালার গ্যামুট ডিসপ্লে ব্যবহারের সুবিধা। সিনেমা দেখা, ভিডিও ও ফটো এডিটিংয়ের সময় রং নির্ভুল দেখতে ফিচারটি কাজে আসবে।

 

তার ছাড়াই ভালো মানের শব্দ : তারবিহীন হেডফোন ও স্পিকারের জনপ্রিয়তা দ্রুত বাড়ছে। তবে অ্যাপ্লিকেশনের সঙ্গে সমন্বয়ের অভাবে এখনো মানসম্পন্ন শব্দ পাওয়া যায় না। অ্যানড্রয়েড ৮-এ যুক্ত করা হয়েছে সনির এলডিএসি কোডেক প্রযুক্তি। ফলে অডিও ডিভাইসে ব্লুটুথের মাধ্যমেও ভালো মানের (২৪ বিট, ১৯২ কিলোহার্জ) শব্দ পাওয়া যাবে।

 

ফোন ম্যালওয়্যারমুক্ত রাখতে : ডাউনলোড করা প্রতিটি অ্যাপের কোড গুগল প্লে স্টোরের সঙ্গে মিলিয়ে ডিভাইসকে ম্যালওয়্যারমুক্ত রাখবে নতুন ফিচার ‘গুগল প্লে প্রটেক্ট’। মূলত যারা প্লে স্টোরের বাইরে থেকে অ্যাপ নামিয়ে ফোনে ইনস্টল করে, তাদের ইনস্টল করা অ্যাপ চালু অবস্থায় স্ক্যান করে সেটির আচরণ সম্পর্কে ব্যবহারকারীকে জানানো হবে। যেমন—কোনো ফটো এডিট অ্যাপ যদি মাইক্রোফোন ব্যবহার করে ব্যবহারকারীর কল রেকর্ড করা শুরু করে, তখন ব্যবহারকারীকে সতর্কবার্তা পাঠানো হবে।

 

সহজ সেটিংস অ্যাপ : সেটিংস অ্যাপকে এবার ঢেলে সাজানো হয়েছে। ব্যবহারকারীর কাছে সেটিংস আরো সহজবোধ্য করার লক্ষ্যে এই ডিজাইন করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় অপশন সহজে খুঁজে পেতে তালিকা আকারের পাশাপাশি টাইলস আকারেও দেখানো হবে।

 

প্লে স্টোরের মাধ্যমে ড্রাইভার আপডেট : কম্পিউটারের মতো ড্রাইভার আপডেটের মাধ্যমে এখন স্মার্টফোন-ট্যাবলেটের গতিও বাড়ানো যায়। তবে স্মার্টফোনের ড্রাইভার আপডেট করতে হলে সিস্টেম আপডেট করতে হয়। এতে অনেক সময় লাগে। অ্যানড্রয়েড ৮-এ প্লে স্টোরের মাধ্যমে ড্রাইভার আপডেট করা যাবে। ফলে পুরনো হলেও ফোনের গতি অতটা কমবে না।

 

মাল্টিপ্লেয়ারে গেইম খেলার সুযোগ : কম্পিউটারে লোকাল নেটওয়ার্ক বা ল্যান ব্যবহার করে মাল্টিপ্লেয়ার গেইম খেলার সুবিধা থাকলেও মোবাইলে সুবিধাটি নেই। অ্যানড্রয়েড ৮-এ থাকছে ‘ওয়াই-ফাই অ্যাওয়েআর’ ফিচার। এই ফিচারের কল্যাণে এক লোকাল নেটওয়ার্কে থাকা অ্যানড্রয়েড ডিভাইসগুলোতে যদি একই গেইম ইনস্টল করা থাকে, তাহলে সবাই মিলে খেলতে পারবে।

 

কটলিন ব্যবহার : অ্যানড্রয়েড অ্যাপ তৈরিতে এখন থেকে কটলিন প্রগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করা যাবে। মূলত ডেভেলপারদের মধ্যে জনপ্রিয় এই ভাষার ব্যবহারে অ্যানড্রয়েড অ্যাপ  তৈরিতে ডেভেলপাররা উৎসাহী হবে।

 

অন্য সব রদবদল : আরো কিছু নতুনত্ব থাকছে এই অ্যানড্রয়েডে। ব্যাটারি আইকন পরিবর্তন, নোটিফিকেশনের ব্যাকগ্রাউন্ডের রং বদলের সুযোগ, নোটিফিকেশন সারিবদ্ধভাবে একে একে এনিমেশন হয়ে সামনে আসা—এমন অনেক কিছুই।

 

চাওয়া-পাওয়ায় ফারাক

স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট—এই দুই ডিভাইসের জন্য অ্যানড্রয়েডকে সেরা অপারেটিং সিস্টেম বলা হলেও নতুন সংস্করণে ‘মাল্টি উইন্ডো’ ও ‘পিকচার ইন পিকচার’ ছাড়া ট্যাবের জন্য বলার মতো কোনো ফিচার যুক্ত হয়নি।

বাজারে ডুয়াল ক্যামেরা ফোনের জয়জয়কার। কিন্তু ডুয়াল ক্যামেরা মাথায় রেখে অ্যানড্রয়েড ৮-এ নতুন কোনো ফিচার থাকছে না। ফলে ডুয়াল ক্যামেরা ব্যবহার করে কোনো অ্যাপ তৈরি করার জন্য প্রতিটি নির্মাতার ডিভাইসের কোড প্রয়োজন হবে।

 

যেসব ডিভাইস আপডেট পাচ্ছে

বিশ্বের বেশির ভাগ ফোনের অপারেটিং সিস্টেম অ্যানড্রয়েড। তাই নতুন সংস্করণ বাজারে আসার পর শত কোটি ফোনে আপডেট হতে সময় লাগে অনেক দিন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে বছরও গড়িয়ে যায়। যেমন—গত বছরের এই সময় অ্যানড্রয়েড ৭ বাজারে এলেও এখনো সব ফোনে আপডেট করা সম্ভব হয়নি। তবে কিছু নামিদামি ব্র্যান্ড নতুন অপারেটিং সিস্টেম বাজারে আসার শুরুতেই আপডেট করে ফেলে। তবে সবার আগে অ্যানড্রয়েড ৮ আপডেট হবে গুগলের নেক্সাস, পিক্সেল, পিক্সেল সি, স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৮ ও এস৮+, নোট৮, এলজি জি৬, ভি২০, ভি৩০, ওয়ান প্লাস৩, ওয়ান প্লাস৫, এইচটিসি ইউ১১ ও সনি এক্সজেড প্রিমিয়ামে। ফোনগুলো এ বছরের মধ্যেই নতুন সংস্করণসহ বাজারে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বাকি ফোনগুলো আপডেট পেতে আগামী বছরের শুরু পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

 

মডেল : নিপা

ছবি : তারেক আজিজ নিশক


মন্তব্য