kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


টেলি-ম্যানিয়া

স্মার্টফোনে গাড়ি রক্ষা!

যানবাহনের সার্বক্ষণিক নজরদারি সম্ভব স্মার্টফোন থেকে। গাড়ির অবস্থান, গতি, এমনকি ইঞ্জিনের সমস্যাও জানা যাবে অ্যাপের সাহায্যে। ‘ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম’ নামের এ প্রযুক্তির খরচও বেশি নয়। জানাচ্ছেন তুসিন আহম্মেদ

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



স্মার্টফোনে গাড়ি রক্ষা!

গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেমের সহায়তা নিয়ে ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম কাজ করে। ছবি : ইন্টারনেট

ঈদের আগে নগরীর ব্যস্ত এক শপিং মলে গাড়ি পার্ক করে কেনাকাটা করতে গেছেন আইনজীবী হুমায়ুন কবির। ফিরে দেখেন গাড়ি নেই! বুঝলেন কেউ চুরি করেছে গাড়িটি।

সঙ্গে সঙ্গে স্মার্টফোনে দেখে নিলেন গাড়ির অবস্থান। গাড়ির ইঞ্জিন বন্ধ করে দিলেন ফোন থেকেই। এরপর পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার করলেন গাড়ি। ভাগ্যিস ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম ব্যবহার করেন তিনি।

 

যেভাবে কাজ করে

গ্লোবাল পজিশনিং সিস্টেমের (জিপিএস) সহায়তা নিয়ে ভেহিকল ট্র্যাকিং সিস্টেম কাজ করে। এ সেবায় এসএমএস, ওয়েব ও অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে যানবাহনের নিরাপত্তা দেওয়া হয়। যেকোনো সাধারণ ব্যবহারকারী সেবাটি ব্যবহার করে গাড়ি নিরাপদ রাখতে পারবেন।

সেবাটি পাওয়ার জন্য একটি ট্র্যাকিং ডিভাইস বাহনের সঙ্গে সংযুক্ত করা হয়। ডিভাইসটিতে একটি ইন্টারনেট সংযোগসহ মোবাইল সিম সক্রিয় থাকে। ব্যবহারকারীর একটি ট্র্যাকিং আইডি থাকে। এই আইডি ব্যবহার করে গাড়ির সর্বশেষ অবস্থান, গতি, ইঞ্জিন সচল নাকি বন্ধ—এসব তথ্য অ্যাপ ও এসএমএসের মাধ্যমে পাওয়া যায়। গাড়ি কত দূরত্ব বা কোন এলাকা পর্যন্ত যেতে পারবে তাও নির্ধারণ করে দেওয়া যায় এ সেবার মাধ্যমে।

এ প্রযুক্তিতে জিপিএস প্রযুক্তির মাধ্যমে গাড়ির অবস্থান পর্যবেক্ষণ করা হয় স্যাটেলাইটের মাধ্যমে। এভাবে পাওয়া তথ্য পৌঁছে যায় কেন্দ্রীয় সার্ভারে। সেখান থেকে তথ্য যায় মোবাইল ডিভাইস বা কম্পিউটারে। গাড়ি নির্ধারিত দূরত্ব বা এলাকা অতিক্রম করলেই এসএমএস বা পিন কোডের মাধ্যমে দূর থেকেই গাড়ির ইঞ্জিন বন্ধ করে দেওয়া যায়। ট্রিপ কাউন্ট রিপোর্ট, ইঞ্জিনের অবস্থা, গতি লঙ্ঘন এবং ব্যাটারি অপব্যবহার সতর্কতাও পাওয়া যায় এ সেবায়।

 

যেভাবে পাওয়া যাবে

দেশের টেলিকম অপারেটরগুলো ভেহিকল ট্র্যাকিং সেবা দিচ্ছে।

গ্রামীণফোন : গ্রামীণফোনের এ সেবাটির স্টার্টআপ প্যাকেজের মূল্য শুরু হয়েছে চার হাজার ৯৯৯ টাকা দিয়ে এবং মাসিক ফি শুরু মাত্র ৪৯৯ টাকা থেকে। বাড়তি কিছু সুবিধা ও তিন বছরের ওয়ারেন্টিসহ স্ট্যাডার্ট প্যাকেজে ডিভাইসসহ মূল্য ১১ হাজার টাকা। মাসিক চার্জ ৬৯৬ টাকা। প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে সংযোগের সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে ২০ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড়া দিচ্ছে গ্রামীণফোন। ব্যক্তিমালিকানাধীন গাড়ির ক্ষেত্রে অগ্রিম পেমেন্টের ওপর ভিত্তি করে মাসিক সার্ভিস ফির ওপর ২০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়ও রয়েছে।

 

রবি : ‘রবি ট্র্যাকার’ নামের এ সেবার আওতায় কম্পিউটার অথবা স্মার্টফোন থেকে একটি পোর্টালে লগইন করে ব্যবহারকারীরা তাঁদের গাড়িটি পর্যবেক্ষণ করতে পারবেন। ইউজার ইন্টারফেস ব্যবহার করে অথবা এসএমএস পাঠিয়ে গাড়ির বর্তমান অবস্থান জানতে পারবেন গ্রাহকরা। এ ছাড়া রয়েছে গাড়ি ট্র্যাকিংয়ের অন্য সব সুবিধা।

ডিভাইসসহ রবি ট্র্যাকারের দাম ১০ হাজার ৫০০ টাকা। মাসিক চার্জ ৫১৫ টাকা। পাশাপাশি তিন বছরের রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি ও আজীবন সার্ভিস ওয়ারেন্টি উপভোগ করতে পারবেন গ্রাহকরা।

২৪ ঘণ্টা সেবা পেতে আছে রবি ট্র্যাকারের কল সেন্টার। রবি ট্র্যাকারের হটলাইন নম্বর ০১৮৪১২১২১৯৪-৯।

 

বাংলালিংক : বাংলালিংকের এ-সংক্রান্ত সেবা ‘এনট্র্যাক’-এর ডিভাইসসহ এককালীন খরচ ৯ হাজার ৫০০ টাকা। বার্ষিক সার্ভিসিং ফি সাত হাজার ৫০০ টাকা। বাংলালিংক ইন্টারনেট সেবা সক্রিয় রয়েছে বাংলাদেশের এমন যেকোনো স্থানে ডিভাইসটি ব্যবহার করে গাড়ির নিরাপত্তা প্রদান করা যাবে।

বাংলালিংক এনট্র্যাকের হটলাইন নম্বর ০১৯১৩১৩০৭৭৭।


মন্তব্য