kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


টেলি ম্যানিয়া

অ্যাপ থেকে আয় হয়

অনেকে অ্যাপ থেকে ভালো আয় করছেন বলে শোনা যায়। বিনা মূল্যের অ্যাপ থেকে আবার আয় আসে কিভাবে? উপায় বাতলেছেন মোশাররফ রুবেল

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



পেইড অ্যাপ

ডেভেলপাররা যখন পেইড অ্যাপ তৈরি করে মার্কেটপ্লেসগুলোতে উন্মুক্ত করেন, তখন কোনো ইউজার সেটা ব্যবহার করতে গেলে নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা পে করে অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারে। এ ক্ষেত্রে কোনো অ্যাপের দাম ৯৯ সেন্টও হতে পারে, আবার পাঁচ ডলারও হতে পারে।

পাঁচ ডলারের অ্যাপ ১০০ বিক্রি হলে ডেভেলপার ৫০০ ডলার পাবেন, ব্যাপারটা এমন নয়। এ আয়ের ৩০ শতাংশ অ্যাপ স্টোরগুলো নিয়ে যাবে। মানে ৫০০ ডলার থেকে ডেভেলপার পাবেন ৩৫০ ডলার। তবে স্টোরভেদে কমবেশি হতে পারে। বাংলাদেশের জন্য গুগল প্লেস্টোরে পেইড অ্যাপ সমর্থন করে না।

 

ইন অ্যাপ পারচেজ

এ ক্ষেত্রে মূল অ্যাপটি ফ্রি। কিন্তু অ্যাপের ভেতরের বাড়তি কিছু সুবিধা পেতে ব্যবহারকারীকে ডলার খরচ করতে হবে। যেমন—ক্ল্যাশ অব ক্ল্যান গেইম। কিন্তু গেইমটিতে ভালো করতে জেমস কিনতে হয়। এখান থেকেই ডেভেলপার আয় করেন। এ ক্ষেত্রেও স্টোরগুলোকে কমিশন দিতে হবে। ইন অ্যাপ পারচেজ অ্যাপের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। বাংলাদেশের জন্য গুগল প্লেস্টোরে এখনো পেইড অ্যাপের মতো ইন অ্যাপ সুবিধা পাওয়া যায় না। তাই দেশি ডেভেলপারদের শুধু ফ্রি অ্যাপ আপলোড করতে হয়।

 

ফ্রি অ্যাপ

গুগল প্লেস্টোরে বাংলাদেশ থেকে ডেভেলপারদের করা অ্যাকাউন্ট থেকে শুধু ফ্রি অ্যাপ আপলোড করা যায়। এ ক্ষেত্রে ডেভেলপাররা আয় করতে বিজ্ঞাপন ব্যবহার করেন।

বিজ্ঞাপন ব্যবহারের ক্ষেত্রে কয়েকটি মাধ্যম রয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় ‘অ্যাডমব’। এ বিজ্ঞাপনগুলো সাধারণত কস্ট পার ক্লিক বা কস্ট পার মাইল ভিত্তিতে ডেভেলপারদের টাকা দেয়। এভাবেই ফ্রি অ্যাপ থেকে আয় করে থাকেন  ডেভেলপাররা।


মন্তব্য