kalerkantho


প্রযুক্তির হাওয়া লেগেছে রেসলিংয়েও!

সব দেশে, সব বয়সী মানুষের কাছেই ওয়ার্ল্ড রেসলিং এন্টারটেইনমেন্ট বা ডাব্লিউডাব্লিউই বেশ জনপ্রিয়। আধুনিক প্রযুক্তির অনেক সুবিধা কাজে লাগিয়ে বিনোদনের এই মাধ্যমটিও যুক্ত করছে নতুন নতুন মাত্রা। প্রযুক্তির প্রভাবে ডাব্লিউডাব্লিউইতে আসা পরিবর্তনগুলো নিয়ে লিখেছেন মিজানুর রহমান

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



প্রযুক্তির হাওয়া লেগেছে রেসলিংয়েও!

রেসলিংয়ে প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে অনেক আগেই। অভিনয়কে ক্যামেরার মুনশিয়ানায় আয়োজকরা তরুণ মনে বাস্তব রূপ দিতে পেরেছে। রিঙে উঁচু থেকে লাফিয়ে একজন আরেকজনের গায়ের ওপর পড়ছে। দ্য রক, বিগ শো, ট্রিপল এইচ, জন চিনা, র‌্যান্ডি অরটেন—একজন আরেকজনকে ইচ্ছামতো মারছে। রক্তারক্তির ঘটনাও ঘটছে কখনোসখনো।

ক্যামেরার কারসাজিতে এসব ঘটনায় ‘উত্তেজনা’ জুড়ে দিয়ে আকর্ষণ বাড়ানো হচ্ছে অনেক গুণ। এর পরও যাতে একঘেয়ে মনে না হয়, সে চেষ্টায় কমতি নেই আয়োজকদের। সোশ্যাল মিডিয়া, ভার্চুয়াল রিয়ালিটির মতো প্রাযুক্তিক অনুষঙ্গগুলো কাজে লাগাতে আলসেমি দেখাচ্ছে না কেউই।

 

হ্যাশট্যাগে পাল্টে গেল ডিভাদের অবস্থান

এত দিন রেসলিং ছেলেদের খেলা হয়েই ছিল। মেয়েদের উপস্থিতি ছিল শুধুই শোভাবর্ধনের জন্য। মেয়েদের ডাকা হতো ‘ডিভা’ বলে। যাদের কাজ ছিল মূলত পুরুষ রেসলারদের সঙ্গে রিঙে আসা এবং মাঝেমধ্যে একটি-দুটি ম্যাচ খেলা।

ম্যাচগুলোর নাম ও ধরন ছিল ব্যাপক বিতর্কিত ও আপত্তিজনক। এর পরিবর্তনও হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে। কিছুদিন আগে ডিভাদের একটি ম্যাচ শুধু ৩০ সেকেন্ড স্থায়ী হয়। এতে সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যাশট্যাগের হিড়িক পড়ে যায়। বিনোদন মাধ্যমটির ভক্তরা টুইটার বেছে নেয় প্রতিবাদ জানাতে। টানা তিন দিন #রোবউরাধংঅঈযধহপব বা ‘ডিভাদের একটি সুযোগ দাও’ নামের হ্যাশট্যাগ বিশ্বব্যাপী আলোড়ন তোলে। এতে টনক নড়ে রেসলিংয়ের কর্তাদের। বিশেষ করে ডাব্লিউডাব্লিউইর প্রভাবশালী কর্তা স্টেফানি ম্যাকমাহোনের। এই ঘটনার পরেই তিনি রেসলিংয়ের নারী ভক্তের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য ব্র্যান্ড ম্যানেজার নিয়োগ দেন।

শুধু ম্যাকমাহোন নয়, এই প্রতিবাদের পরে মেয়েদের মূল ইভেন্টগুলোতে সুযোগ দেওয়া শুরু হয় বিশ্বব্যাপী। এখন মেয়েরাও চাইলে চ্যাম্পিয়ন হতে পারবে। মেয়েদের এখন আর ডিভা না ডেকে ডাকা হবে সুপারস্টার।

 

ভার্চুয়াল রিয়ালিটি

বিপুল জনপ্রিয় এই শো দেখার জন্য দর্শকদের আগ্রহ প্রচুর। ৩২তম রেসলম্যানিয়ায় দর্শকের পরিমাণ লাখের ঘর ছাড়ে। ২০১৬ সালের এই রেসলম্যানিয়ায় এক লাখ এক হাজার ৭৬৩ জন দর্শক এটিঅ্যান্ডটি স্টেডিয়ামে ছুটে যায় প্রিয় তারকাদের একঝলক দেখার জন্য।

বাড়তি চাহিদার দিকে নজর রেখে কর্তৃৃপক্ষ ভার্চুয়াল রিয়ালিটির দিকে ঝুঁকে পড়ছে। এখন ঘরে বসেও প্রায় গ্যালারির সমান মজা নেওয়া যাবে। নেক্সট ভিআর নামক একটি কম্পানির সঙ্গে এ বিষয়ে একটি চুক্তিও হয় কম্পানিটির। ডাব্লিউডাব্লিউইকে ভিআর প্রযুক্তিতে পেয়ে আনন্দিত নেক্সট ভিআরের প্রধান নির্বাহী ডেভিড কোল। তাঁর মতে, ভক্তরা বিষয়টি বেশ পছন্দ করবেন।

 

ফেইসবুক ওয়াচ

ফেইসবুকের চাহিদামতো ভিডিও সার্ভিস ‘ফেইসবুক ওয়াচ’ও এই মাসের শেষের দিকে রেসলিং সম্প্র্রচার করা শুরু করবে। ফলে যেকোনো জায়গা থেকেই ফেইসবুক ওয়াচের মাধ্যমে দেখা যাবে পছন্দের শো।

 


মন্তব্য