kalerkantho


পথহারা ‘ডিজিটাল বাস’!

আল-আমীন দেওয়ান   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



পথহারা ‘ডিজিটাল বাস’!

২০১৪ সালের এপ্রিলে বেশ আড়ম্বর করেই চালু হয়েছিল ডিজিটাল বাস

ঢাকার রাস্তায় জ্যামে আটকে থেকেও যাত্রীরা যাতে ইন্টারনেট মহাসড়কে চলমান থাকতে পারে—এমন ভাবনা থেকে ২০১৪ সালের এপ্রিলে চালু হয়েছিল ডিজিটাল বাস। মতিঝিল থেকে উত্তরার পথে বিআরটিসির ১৫টি বাসে বসানো হয় রাউটার, ছিল বিনা মূল্যে ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট।

আর এ সুবিধায় যাত্রীরা স্মার্টফোন-ট্যাব বা ল্যাপটপে ইচ্ছামতো সময় কাটাতে পারত।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে এসে সেই বাসের চাকা থেমে থেমে ঘুরলেও দুলছে না রাউটারের ইন্টারনেট তরঙ্গ। দু-একটি বাসে কচ্ছপগতির ইন্টারনেট নিয়ে রাউটার সচল থাকলেও বেশির ভাগই ফিরেছে সাধারণ বাসের কাতারে।

এই বেশির ভাগের মধ্যে কোনো কোনোটিতে রাউটার থাকলেও রিফিলের অভাবে অচল। কোনোটার আবার রাউটারই নেই। বেশ কয়েকটির রাউটার থেকেও নষ্ট।

উত্তরা থেকে মতিঝিলে অফিস করেন ব্যাংক কর্মকর্তা রায়হান। বিটিআরসি বাসের নিয়মিত যাত্রী তিনি। দীর্ঘপথে সময় কাটত ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট ব্যবহার করেই।

‘শুরুর দিকে গতি ধীর হলেও বিরক্ত হওয়ার মতো অবস্থা ছিল না। এরপর এমন ধীর হলো যে ব্যবহারই করা যাচ্ছিল না। আজকাল আর সেবাটির দেখা নেই’—বলছিলেন রায়হান।

শাহবাগ থেকে এয়ারপোর্ট নিয়মিত যাতায়াত করেন বেসরকারি একটি হাসপাতালের সেবিকা আইরিন সুলতানা। তিনি বলেন, ‘আস্তে আস্তে দু-একটি বাসে সেবাটি বন্ধ হতে শুরু করল। রিফিল হয়নি বা অপারেটরের সমস্যা, মেরামত ইত্যাদির কথা বলা হতো। এখন তো সেবাটিই দেখি না। কয়েকটি বাসের রাউটার তো শুধুই শোপিস। ’

আন্তর্জাতিক সাহায্যদাতা প্রতিষ্ঠান ইউএনডিপি ও ইউএসএইডের অর্থায়নে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের কারিগরি সহায়তায় এই ডিজিটাল বাসের কাজটি শুরু হয়। এটুআইয়ের জনপ্রেক্ষিত বিশেষজ্ঞ নাইমুজ্জামান মুক্তা এই বাস চালুর ক্ষেত্রে প্রথম উদ্যোগ নিয়েছিলেন।

সর্ভিসটির বর্তমান অবস্থা নিয়ে এটুআই বলছে, তাদের উদ্যোগে চালু করা এই ডিজিটাল বাসসেবাটিকে বিআরটিসি নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করেনি। ভেহিকল ট্র্যাকিং প্রযুক্তির মাধ্যমে লাইভ ট্র্যাকিংসহ আরো কয়েকটি সেবা চালুর কথা ছিল। কিন্তু ওই ওয়াই-ফাই ছাড়া আর কিছু হয়নি।

সেবাটির বর্তমান অবস্থা নিয়ে বিআরটিসির পরিচালক (কারিগরি) কর্নেল মো. মাহবুবুর রহমানের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি ডিজিটাল বাস উদ্যোগ চালু সময়ে ছিলেন না বলে জানান। ডিজিটাল বাস কি তাহলে এখন চালু নেই—এমন জিজ্ঞাসায় তিনি বলেন, এসপাস কার্ড টিকেটিং সুবিধাটি চালু রয়েছে!


মন্তব্য