kalerkantho


ইউটিউব বিস্ময় পিউডিপাই!

ইউটিউবে নিজের একটি চ্যানেল। সেই চ্যানেলে ভিডিও গেইম খেলার কৌশল দেখিয়ে আর কৌতুক করে আয় করেন মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার। ‘পিউডিপাই’ নামের বিস্ময়কর এই চ্যানেলটির উদ্যোক্তা ফেলিক্স শ্যালবার্গ। জানাচ্ছেন আলী নূর ফাহাদ

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ইউটিউব বিস্ময় পিউডিপাই!

সুইডেনের নাগরিক ফেলিক্স শ্যালবার্গ। ছেলেবেলা থেকেই ভিডিও গেইমের পোকা।

পড়াশোনার ফাঁকে অবসর সময়ের পুরোটাই কাটে বাসার কম্পিউটারে গেইম খেলে। সুইডেনের চালমার্স ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজিত ভর্তি হওয়ার পর খেলার পাশাপাশি নিজেই ছোটখাটো গেইম বানানো শুরু করলেন। এসব গেইম অন্যদের কাছে পৌঁছে দিতে ২০১০-এ ইউটিউবে খুললেন নিজের প্রথম চ্যানেল pewdie। চালুর কিছু দিন পরই পাসওয়ার্ড ভুলে যাওয়ায় চ্যানেলটি আর চালু করতে পারলেন না। বাধ্য হয়ে আরেকটি চ্যানেল খুললেন। এবার নাম দিলে—pewdiepie। পূর্ণ ঠিকানা : youtube.com/pewdiepie| চ্যানেলটি নেশার মতো পেয়ে বসল তাঁকে। একসময় ছেড়ে দিলেন বিশ্ববিদ্যালয়। সারা দিন পড়ে থাকেন ইউটিউব নিয়ে।

পরিবার বিষয়টিকে ভালোভাবে নিল না। টাকা দেওয়া বন্ধ করে দিল। ইউটিউবের নেশায় বুঁদ শ্যালবার্গ গেইমের টাকা জোগাড়ে হটডগ বিক্রি শুরু করলেন। আর্থিক কষ্ট হলো জীবনের সঙ্গী। এভাবে অনটনেই কাটল দুই বছর। তবে তাঁর ইউটিউব চ্যানেলটি পেতে থাকল জনপ্রিয়তা।

পিউডিপাই চ্যানেলের বিশেষত্ব হচ্ছে—এখানে ভিডিও গেইমগুলোকে উপস্থাপন করা হয় কৌতুকের মাধ্যমে। অনেক সময় শ্যালবার্গকে উদ্ভটভাবে নাচতেও দেখা যায়। আর এসব কৌতুক, নাচ চ্যানেলের ভক্তদের দারুণ মজা দেয়। চ্যানেলটিতে ‘লেটস প্লে’ নামে ভিডিও গেইমের ধারাভাষ্যও দেন তিনি। তাঁর ধারাভাষ্যও চরম জনপ্রিয়তা পায়।

২০১২ সালে তাঁর চ্যানেলে দশ লাখ সাবস্ক্রাইবার যুক্ত হয়। ২০১৩ সালে এসে ইউটিউবের ইতিহাসে সর্বোচ্চ সাবস্ক্রাইবার পায় তাঁর চ্যানেল। তখন থেকে তাঁকে বলা শুরু হলো ‘ইউটিউবের রাজা’ বা ‘দ্য ইউটিউব কিং’। ২০১৬ সালে টাইমস সাময়িকী তাঁকে বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকায় স্থান দেয়।

বর্তমানে তাঁর পিউডিপাই চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা চার কোটি ৮৫ লাখেরও বেশি। তাঁর এই বিশাল ভক্তকুলকে ব্রো (ব্রাদারের সংক্ষিপ্ত রূপ) বলে সম্বোধন করেন এবং তাঁর ভক্তদের সঙ্গে দেখা হলে তিনি তাঁর বহুল পরিচিত হাত মুষ্ঠি করে  (ব্রোফিস্ট) একে অপরের সঙ্গে সৌহার্দ্য বিনিময় করেন। টুইটারেও তাঁর অনুসারীর সংখ্যা ৯০ লাখের বেশি। আর ফেইসবুক ফ্যানপেইজে ভক্ত প্রায় ৭৪ লাখ।

ফোর্বস সাময়িকীর মতে, ২০১৫ সালে ফেলিক্স ওরফে পিউডিপাই-এর আয় ছিল ১২ লাখ মার্কিন ডলার। অর্থাৎ বাংলাদেশের টাকায় হিসাব করলে তা দাঁড়ায় প্রায় ৯৩ কোটি টাকার মতো।

পিউডিপাই যে শুধু নিজেকে ইউটিউবেই বেঁধে রেখেছেন, তা নয়। তাঁর এই বিশাল অনুসারীদের কাজে লাগিয়ে তিনি সেবামূলক বিভিন্ন কাজ করছেন। তিনি তাঁর ভক্তদের নিয়ে ‘সেফ দ্য চিলড্রেন’ নামক এক দাতব্য সংস্থার জন্য প্রায় ছয় লাখ ৩০ হাজার মার্কিন ডলার সংগ্রহ করেছেন। আরেকটি সংস্থার জন্য তোলেন চার লাখ ৪৬ হাজার মার্কিন ডলার অনুদান।

পিউডিপাই-এর জীবনের গল্প তাঁর নিজের মুখে শুনতে ঘুরে আসতে পারেন এই লিংকে:

https://www.youtube.com/watch?v=6yBBO8PzWFI

পিউডিপাই-এর মতো বাংলাদেশের অনেকে এখন ইউটিউব চ্যানেল খুলছেন। ভালো সাড়াও পাচ্ছেন অনেকে।


মন্তব্য