kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


গেইম

সম্মান ফিরিয়ে আনার লড়াই

সামীউর রহমান   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সম্মান ফিরিয়ে আনার লড়াই

মধ্যযুগের ইউরোপ, এখানে ্বিজ্ঞান আর যাদুমন্ত্র চলে হাত ধরাধরি করে। আছে রাজতন্ত্র, অভিজাততন্ত্র।

তাই আছে প্রাসাদ ষড়যন্ত্রও। আছে রাজতন্ত্রের অত্যাচার, আছে গোপন মুক্তিকামী সংগঠন। এই সব নিয়েই ‘ডিস-অনারড’।

আসছে নভেম্বরের ১১ তারিখ মুক্তি পেতে যাচ্ছে ডিস-অনারড গেইমের দ্বিতীয় পর্ব। যাঁরা এখনো এই সিরিজের কোনো গেইম খেলেননি, তাঁদের পরিচিত করিয়ে দেওয়া যাক ২০১২ সালে মুক্তি পাওয়া স্টেলথ অ্যাকশন গেইম ‘ডিস-অনারড’-এর সঙ্গে। প্রথম পর্বটা খেললে নিঃসন্দেহে দ্বিতীয় পর্ব খেলতেও আগ্রহী হয়ে উঠবেন উত্সাহী গেইমাররা।

ঘটনাস্থল ১৮০০ থেকে ১৯০০ শতকের মাঝামাঝি কোনো এক সময়ের শিল্প শহর ডানওয়াল। লন্ডন ও এডিনবরাকে মাথায় রেখেই নকশা করা হয়েছে কাল্পনিক এই শহরের। দ্বীপরাজ্যের রাজধানী ডানওয়ালে চলছে স্বৈরাচারের লৌহশাসন। রানিকে খুন করে, রাজকন্যাকে গুম করে স্বৈরাচার জেঁকে বসেছে দেশে। তাদের শাসনের বিরুদ্ধে গোপনে জড়ো হচ্ছে রাজতন্ত্রের প্রতি অনুগত লয়্যালিস্ট দল। তাদের ইচ্ছা রাজকন্যাকে উদ্ধার করে এনে ক্ষমতায় বসানো। এরই মধ্যে শহরজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে অদ্ভুত এক প্রাণঘাতী অসুখ। ইঁদুরের মাধ্যমে ছড়াচ্ছে প্লেগের মতো এই রোগ, যাতে মানুষের চোখ দিয়ে নামছে অশ্রুর মতো রক্তধারা। আক্রান্ত মানুষ হয়ে উঠছে সহিংস। এই রোগ দমনেই অভিজাতরা নিজেদের আলাদা করে ফেলেছে ‘আলোর দেয়াল’ তুলে আর নির্বিচারে হত্যা করছে সাধারণ মানুষদের। এমন অস্থির সময়েই করভো আত্তানোর ভূমিকায় নামতে হবে গেইমারকে।

করভো ছিল রাজকন্যা জেসমিনের দেহরক্ষী। অথচ তাকেই ফাঁসানো হয় রানিকে হত্যার দায়ে। মুখোশধারী আত্তানো দক্ষ আততায়ী। তার হাতে ছোরা, বন্দুকের সঙ্গে আছে আরো মারাত্মক অস্ত্রশস্ত্র। এসব নিয়েই ডানওয়াল শহরের বিভিন্ন বাড়িঘরের দেয়াল বেয়ে, ছাদ থেকে ছাদে লাফিয়ে, রণপায় চড়া প্রহরীদের চোখ ফাঁকি দিয়েই মিশন শেষ করতে হবে আত্তানোকে।

এই গেইমের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো তিমির তেল। তিমি শিকার ও জ্বালানি তেল হিসেবে তিমির চর্বির ব্যবহারই এই শহরকে করেছে সমৃদ্ধ। তাই জলেও ব্যস্ত থাকতে হবে আত্তানোকে। এই দৃশ্যগুলো তৈরিতে রাফায়েল সাবাতিনিরির ক্লাসিক উপন্যাস ‘ক্যাপ্টেন ব্লাড’ থেকে অনুপ্রেরণা খুঁজেছে গেইমটির নির্মাতা সংস্থা বেথশেডা গেইমস।

গেইমারের কর্মকাণ্ডের ওপর নির্ভর করবে গেইমের সমাপ্তি। এমিলিকে বাঁচাতে পারলে এক রকম সমাপ্তি, বেশি শোরগোল তুললে এক রকম সমাপ্তি আর চুপিসারে কাজ সারতে পারলে আসবে সোনালি যুগ।

গেইম রেটিংস, মেটাক্রিটিকের মতো ওয়েবসাইট থেকে ৯০ শতাংশের বেশি রেটিং পাওয়া ডিস-অনারড না খেলে থাকলে অবশ্যই খেলা উচিত। কারণ বেথশেডার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ডিস-অনারড টু হবে আরো জমজমাট। প্রথম পর্ব না খেলে সিক্যুয়াল খেলে মজা হারাতে না চাইলে খেলেই ফেলুন ‘ডিস-অনারড’।

পিসি, প্লেস্টেশন থ্রি ও ফোর এবং এক্সবক্স ওয়ান ও থ্রি সিক্সটিতে খেলা যাবে গেইমটি।

 

পিসিতে গেইমটি খেলতে যা লাগবে

►  অপারেটিং সিস্টেম : উইন্ডোজ ভিসতা/সেভেন

► প্রসেসর : ৩ গিগাহার্জ ডুয়াল কোর বা তারও বেশি

►  র‍্যাম : ৪ গিগাবাইট

►  ডিস্কস্পেস : ৯ গিগাবাইট

►  গ্রাফিকস কার্ড : এনভিডিয়া জিইফোর্স জিটিএক্স ৪৬০এটিআই র‍্যাডিওন এইচডি ৫৮৫০

 

খেলতে পারবে

১৫+


মন্তব্য