kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।

একের ভেতর দুই

এক ডিভাইসে পাওয়া যাবে দুটির সুবিধা। ব্যবহার করা যাবে ল্যাপটপ ও ট্যাবলেট কম্পিউটার হিসেবে। দেশের বাজারে এ রকম ডিভাইস রয়েছে কয়েকটি ব্র্যান্ডের। এগুলোর সুবিধা-অসুবিধা, প্রাপ্তিস্থান, দাম ইত্যাদি জানাচ্ছেন ইমরান হোসেন মিলন

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



একের ভেতর দুই

মডেল : জলি প্রধান ছবি : তারেক আজিজ নিশক

এইচপি স্পেকট্রা এক্স৩৬০ কনভার্টাবল

ডিসপ্লে ও ডিজাইন : স্পেকট্রা এক্স৩৬০ মডেলের ল্যাপটপটি সম্পূর্ণ ফোল্ড করে লক করে দিয়ে ট্যাব হিসেবেও ব্যবহার করা সম্ভব। ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি ডিসপ্লের ডিভাইসটির রেজল্যুশন ১৯২০ বাই ১০৮০ পিক্সেল।

টাচস্ক্রিনের মাধ্যমে কি-বোর্ড ছাড়াই ব্যবহার করা সম্ভব।

কনফিগারেশন : ইন্টেলের কোর আই সেভেনচালিত ডিভাইসটির গতি সর্বোচ্চ ৩ দশমিক ১ গিগাহার্টজ পর্যন্ত। আট জিবি এলপিডিডিআর৩-১৮৬৬ র‍্যাম এবং ২৫৬ জিবি পিসিএল এসএসডি দেবে আল্ট্রা স্পিড। ডিভাইসটিতে হোম ইউজার হিসেবে শুরুতেই পাওয়া যাবে ৬৪ বিটের উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম। ভালো মানের গ্রাফিক্সের কাজের জন্য এতে রয়েছে ইন্টেলের এইচডি ৫২০ গ্রাফিক্স কার্ড।

ব্যাটারি : দীর্ঘ সময় ব্যাকআপের জন্য ডিভাইসটির সুনাম রয়েছে। ৩ সেল লি-অন পলিমার ব্যাটারিটি একবার পূর্ণ চার্জে চলবে প্রায় সাড়ে ১২ ঘণ্টা।

দাম ও প্রাপ্তিস্থান : দুই বছরের আন্তর্জাতিক ওয়ারেন্টিসহ দেশের বাজারে ডিভাইসটি বিক্রি হচ্ছে এক লাখ সাড়ে ১৫ হাজার টাকায়। রাজধানীর বিসিএস কম্পিউটার সিটি (আইডিবি ভবন), মাল্টিপ্ল্যান সেন্টার, স্টার টেকের কম্পিউটার বিক্রয়কেন্দ্রগুলোসহ দেশের বেশির ভাগ শহরে ডিভাইসটি পাওয়া যাচ্ছে।

 

ডেল ইন্সপাইরন ৩১৪৮

গড়ন ও ডিসপ্লে : একই সঙ্গে ল্যাপটপ এবং ট্যাবলেট হিসেবে ব্যবহার করা যায় ডেলের এমন চারটি মডেলের একটি ইন্সপাইরন ৩১৪৮। ১১ দশমিক ৬ ইঞ্চি ডিসপ্লের মাল্টি-টাচ স্ক্রিনের আল্ট্রাবুকটি আঙুলের ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। এটি ১৮০ ডিগ্রি পর্যন্ত বেঁকিয়েও চালানো যায়।

কনফিগারেশন : এই আল্ট্রাবুকটিতে রয়েছে ১.৭ গিগাহার্টজ গতির চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই ৩ প্রসেসর। স্টোরেজ সুবিধার জন্য রয়েছে ৫০০ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক, ৪ গিগাবাইট র‍্যাম, ওয়্যারলেস ল্যান, ব্লুটুথ ৪.০, ইউএসবি পোর্ট ও এইচডিএমআই পোর্ট। আরো রয়েছে বিল্ট-ইন ইন্টেল গ্রাফিকস, এইচডি অডিও, স্টেরিও স্পিকার, মাইক্রোফোন, কার্ড রিডার ও ওয়েবক্যাম। ওজন এক কেজি ৪০০ গ্রাম।

ব্যাটারি : ডেলের এই আল্ট্রাবুকটি একবার চার্জে চলবে পাঁচ ঘণ্টা।

দাম ও প্রাপ্তিস্থান : দেশের বাজারে আল্ট্রাবুকটির পরিবেশক গ্লোবাল ব্র্যান্ড। রাজধানীর আইডিবি ভবন, মাল্টিপ্ল্যান সেন্টারসহ দেশের অধিকাংশ কম্পিউটার বাজারেই ডিভাইসটি পাওয়া যায়।

এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবাসহ দাম ৫২ হাজার ১৭০ টাকা।

 

ডেল এক্সপিএস ১২

গড়ন ও ডিসপ্লে : এর বডি কার্বন ফাইবার ও অ্যালুমিনিয়ামের মিশ্রণে তৈরি হওয়ায় ডিভাইসটি তুলনামূলক কিছুটা ভারী। এর ১৯২০ বাই ১০৮০ পিক্সেল রেজল্যুশনের ডিসপ্লেতে যেকোনো কোণ থেকে উজ্জ্বল ছবি দেখা সম্ভব।

কনফিগারেশন : এতে রয়েছে ২.৫ গিগাহার্টজ গতির ইন্টেল কোর আই ফাইভ হ্যাজওয়েল প্রসেসর ও ৪ জিবি ডিডিআর৩ র‍্যাম। আছে ১২৮ গিগাবাইট ইন্টার্নাল হার্ডড্রাইভ স্পেস। তাই উইন্ডোজ ৮ অপারেটিং সিস্টেমেও এর গতি কমবে না।

 তবে ইউএসবি পোর্ট রয়েছে মাত্র দুটি। ইথারনেট, ভিজিএ, কার্ড রিডার আর এচডিএমএল পোর্টও নেই।

কি-বোর্ড ও টাচপ্যাড : ধুলাবালি থেকে রক্ষা করতে কিবোর্ডের বাটনে রাবার জড়ানো আছে। সঙ্গে টাচপ্যাড তো আছেই!

ব্যাটারি : এর ব্যাটারি লাইফ বেশ ভালো। সাত ঘণ্টার বেশি ব্যাকআপ দিতে পারে।

প্রাপ্তিস্থান ও দাম : দেশের সব কম্পিউটার বাজারেই ডিভাইসটি পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে এর পরিবেশক স্মার্ট টেকনোলজিস। এক বছরের আন্তর্জাতিক ওয়ারেন্টিসহ দাম এক লাখ ২৭ হাজার ৬৫০ টাকা।

 

আসুস ট্রান্সফরমার বুকফ্লিপ

ডিজাইন ও ডিসপ্লে : ধাতব লিড ও মেটালের আবরণে ডিভাইসটির ঢাকনাটা ওপর দিকে উল্টে অথবা ‘ফ্লিপ’ ব্যবহার করা যায়। ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চির পর্দায় রেজল্যুশন ১৩৬৬ বাই ৭৬৮। ডিসপ্লেতে ব্যবহার হয়েছে টিএন টেকনোলজি, যা কালার কম্বিনেশনে দেবে আলাদা আমেজ।

কনফিগারেশন ও পারফরম্যান্স : ট্রান্সফরমার বুকফ্লিপে রয়েছে ১.৯ গিগাহার্টজের ইন্টেল কোর আই৩ প্রসেসর ও ৪ জিবি র‍্যাম। গ্রাফিকস কার্ড খুব বেশি উচ্চমানের না হলেও প্রসেসরের কারণে ভিডিও দেখা, ওয়েব ব্রাউজিং, ফটো এডিটিংসহ কম গতির গেইম খেলতেও খুব বেশি সমস্যা হবে না। ধারণক্ষমতা ৫০০ গিগাবাইট।

ব্যাটারি : একবার চার্জে চলবে প্রায় পুরো দিন।

প্রাপ্তিস্থান ও দাম : দেশের সব কম্পিউটার বাজারেই ডিভাইসটি পাওয়া যাবে। দাম ৪৫ হাজার টাকা।

 

জেনবুক ফ্লিপইউএক্স৩৬০

ডিজাইন ও ডিসপ্লে : ডিভাইসটি হালকা সোনালি ও রুপালি রঙের মিশ্রণে ডিজাইন করা। বিশেষত্ব হলো, এটি ৩৬০ ডিগ্রি পর্যন্ত বাঁকানো সম্ভব। ১৩ ইঞ্চির এইচডি ডিসপ্লের রেজল্যুশন ৩২০০ বাই ১৮০০। ১৩ দশমকি ৯ মিলিমিটার পাতলা ডিভাইসটির ওজন ১ দশমিক ৩ কেজি।

কনফিগারেশন ও পারফরম্যান্স : ডিভাইসটিতে গেইমারদের জন্য নতুন করে সংযোজন করা হয়েছে রিপাবলিক অব গেইমার সিরিজে জি ৭০১ ভিও। উচ্চতর গ্রাফিকসে গেইম খেলার জন্য ডেস্কটপ গ্রেড গ্রাফিকস কার্ড দিয়ে তৈরি করা হয়েছে মডেলটি। ব্যবহার করা হয়েছে ষষ্ঠ প্রজন্মের ইন্টেল কোর আই-৭ প্রসেসর, ৮ গিগাবাইট ডেস্কটপ-গ্রেড এনভিডিয়া জিফোর্সের জিটিএক্স ৯৮০ ভিডিও কার্ড, ৬৪ গিগাবাইটের ডিডিআর ৪ র‍্যাম ও এক টেরাবাইট এসএসডি।

ব্যাটারি : ওয়াইফাইয়ে ওয়েব ব্রাউজ করতে থাকলেও এটি প্রায় ১১ ঘণ্টা পর্যন্ত ব্যাকআপ দেবে।

দাম ও প্রাপ্তিস্থান : রাজধানীসহ দেশের যেকোনো বড় কম্পিউটার বাজারে আসুসের এই ডিভাইসটি পাওয়া যায়। দাম ৯৪ হাজার টাকা।

 

লেনোভো ইয়োগা ৫০০

ডিজাইন ও ডিসপ্লে : মাল্টিটাচ ইয়োগা ৫০০ মডেলের মাল্টিমোড সুবিধার ডিভাইসটিতে আছে ১৪ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লে। ঘোরানো যায় ৩৬০ ডিগ্রি কোণে।

কনফিগারেশন : উইন্ডোজ ৮.১ অপারেটিং সিস্টেম দিয়ে ডিভাইসটি ছাড়া হয়েছে। ৫০০ জিবি হার্ডডিস্কের সঙ্গে এই আল্ট্রাবুকে রয়েছে ৮ জিবি এসএসএইচডি স্টোরেজ সুবিধা। ব্যবহার করা হয়েছে পঞ্চম প্রজন্মের ইন্টেল কোর আইথ্রি এবং ২ দশমিক ৫ গিগাহার্টজ প্রসেসর। এ ছাড়া রয়েছে স্মার্ট টাচ, মোশন এবং ভয়েস কন্ট্রোল পদ্ধতি।

ব্যাটারি : ব্যবহারকারীদের আল্ট্রাবুকটি ব্যবহারে ভালো অভিজ্ঞতা দিতে এতে দেওয়া হয়েছে থ্রি সেল লি-অন পলিমার ব্যাটারি, যা প্রায় আট ঘণ্টা পর্যন্ত ব্যাকআপ দিতে সক্ষম বলে জানিয়েছে পরিবেশক প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল ব্র্যান্ড।

দাম ও প্রাপ্তিস্থান : দেশের বাজারে কালো ও সাদা এ দুটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে। দাম এক বছরের ওয়ারেন্টিসহ ৫০ হাজার ৫০০ টাকা।

 

লেনোভো ইয়োগা ৯০০

ডিসপ্লে ও ডিজাইন : দেখতে অনেকটা ম্যাকবুক প্রোর মতো। সিলভার মেটাল বডির ডিভাইসটির ডিসপ্লে ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি। ব্যবহার করা হয়েছে এলইডি মাল্টিটাচ প্রযুক্তি। রেজল্যুশন ৩২০০ বাই ১৮০০ পিক্সেল। সম্পূর্ণ উল্টো করে ট্যাবলেট হিসেবে ব্যবহার করা যায় এটি।

কনফিগারেশন : এতে ব্যবহার করা হয়েছে সর্বোচ্চ ৩ দশমিক ১০ গিগাহার্টজ গতির ইন্টেলের কোর আই সেভেন প্রসেসর। র‍্যাম রয়েছে আট জিবি। গ্রাফিকস কাজের জন্য ব্যবহার করা হয়েছে ইন্টেলের এইচডি ৫২০ গ্রাফিকস কার্ড। রয়েছে মাঝারি মানের ওয়েবক্যাম, ওয়াই-ফাই ও ব্লুটুথ সুবিধা।

ব্যাটারি : ১ দশমিক ২৯ কেজি ওজনের লেনোভো ইয়োগা ৯০০ মডেলের ডিভাইসটিতে ব্যবহার করা হয়েছে লি-পলিমার ফোর সেল ব্যাটারি। এতে টানা ৯ ঘণ্টা চলবে ডিভাইসটি।

 

দাম ও প্রাপ্তিস্থান : দেশের প্রায় সব কম্পিউটার মার্কেটে এটি পাওয়া যায়। এক বছরের আন্তর্জাতিক ওয়ারেন্টিসহ দাম এক লাখ ৩০ হাজার টাকা।


মন্তব্য