kalerkantho


টপ অর্ডারের ব্যাটে ম্যাচের ভাগ্য

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



টপ অর্ডারের ব্যাটে ম্যাচের ভাগ্য

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ডানেডিনের ইউনিভার্সিটি ওভালে বাংলাদেশ শেষবার ওয়ানডে খেলেছে সেই ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারিতে। ৯ বছর পর আরেক ফেব্রুয়ারিতেও বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের সঙ্গে মিল খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে সেই ম্যাচের। ৪৬ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে বসা দল শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে তুলতে পেরেছিল ১৮৩ রান। যে রান তাড়ায় মাত্র ২৭.৩ ওভারেই লক্ষ্যে পৌঁছে গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড।

শুরুর বিপর্যয়ে জেতার কথা ভুলে গিয়ে সফরকারীদের জন্য সেটি হয়ে উঠেছিল শুধুই মুখ রক্ষার ম্যাচ। আর মুখ রক্ষা করেছিল মুশফিকুর রহিমের ব্যাটিং। ১০৭ বলে ৮ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ৮৬ রান করা এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের তখনো কোনো ওয়ানডে সেঞ্চুরি ছিল না। ফিফটি ছিল, তাও মোটে চারটি। গত ৯ বছরে নিজেকে অন্য উচ্চতায় তুলে নেওয়া সেই মুশফিকই এখন দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। নামের পাশে ৬ সেঞ্চুরির সঙ্গে যোগ হয়েছে ৩২টি ফিফটিও। তিনিও এই সিরিজে ছন্দে নেই। ক্রাইস্টচার্চে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি ছিল তাঁর ২০০তম ওয়ানডে। দুইবার জীবন ফিরে পেয়েও পারেননি এমন উপলক্ষকে স্মরণীয় করে রাখতে।

ক্রাইস্টচার্চেই ২-০-তে সিরিজ হার নিশ্চিত হয়ে যাওয়ার পর আজ ডানেডিনের শেষ ওয়ানডেটিও বাংলাদেশের জন্য হয়ে থাকছে শুধুই মান রক্ষার ম্যাচ। অথচ নিউজিল্যান্ডে প্রথম জয় দিয়ে ব্যবধান কমানোর পাশাপাশি মান বাঁচানোর এই লড়াইয়ে মুশফিককে পাওয়া যাবে কি না, তা নিয়েও ছিল সংশয়। যদিও তা দূর করার মতো কথাই নিউজিল্যান্ড থেকে শুনিয়েছেন ম্যানেজার খালেদ মাসুদ, ‘মুশফিকের অবস্থা বেশ ভালো। স্ক্যানে কিছু ধরা পড়েনি। আজ তেমন একটা অনুশীলনও করেনি। কাল সকালে (বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টায় শুরু হতে যাওয়া ম্যাচের আগে) ওয়ার্ম আপের সময় ওর অবস্থা আবারও দেখা হবে। খেলার জন্য কতখানি ফিট আছে, সেটি দেখেই ওর খেলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে আশা করছি, মুশফিক খেলতে পারবে।’

এই সিরিজে বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুনকে নিয়ে অবশ্য কোনো আশাই আর অবশিষ্ট নেই। দুই ম্যাচে ৬২ ও ৫৭ রানের ইনিংস খেলা এই ব্যাটসম্যান হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পান ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাটিং করার সময়। সেটিই তাঁকে টেস্ট সিরিজের আগ পর্যন্ত বিশ্রামে পাঠিয়ে দিয়েছে বলেও কাল নিশ্চিত করেছেন মাসুদ, ‘মিঠুনের অবস্থা ভালো নয়। বেশ কিছুদিন সময় লাগবে। ফিট হতে ১০-১২ দিন লাগবে। তাই শেষ ওয়ানডেটি খেলতে পারছে না। তবে প্রথম টেস্টের আগে ফিট হয়ে যাবে বলে আশা করছি।’ মিঠুন ছিটকে পড়ায় টেস্ট দলের মমিনুল হক ঢুকে পড়েছেন ওয়ানডে স্কোয়াডে। টেস্ট স্কোয়াডের সদস্যদের সঙ্গে ক্রাইস্টচার্চে থাকা এই বাঁহাতিকে তড়িঘড়ি ডানেডিনে নিয়ে আসা হয়েছে তাই। তিনি তো বটেই, আজ ডানেডিনে অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের জায়গায় খেলার কথা আছে পেসার রুবেল হোসেনেরও।

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে তাঁর সামর্থ্য প্রশ্নাতীত হলেও প্রথম দুই ম্যাচে তাঁকে না খেলানোর সিদ্ধান্তও প্রশ্নের ঊর্ধ্বে নয়। অবশ্য আজ যেখানে খেলা হচ্ছে, সেই ডানেডিনের ইউনিভার্সিটি ওভালে বোলারদের জন্য সহায়তা আছে বলেও সাম্প্রতিক কোনো খবর নেই। কারণ এই মাঠের সব শেষ ওয়ানডেতে ইংল্যান্ডের ৩৩৫ রানও সহজসাধ্য বলে মনে করিয়েছিল কিউইরা। ওই রান তাড়া করে ৫ উইকেটে জিতেছিল স্বাগতিকরা। ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে কাল বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার কথায়ও এলো সেই প্রসঙ্গ, ‘যত দূর জানি, এখানকার উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য বেশ ভালোই। এই মাঠের শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ড মুখোমুখি হয়েছিল ইংল্যান্ডের। সেই ম্যাচে ৩৪০ রান তাড়া করেও জিতে গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড।’

স্বাভাবিকভাবেই এ ম্যাচের আগে ব্যাটিং নিয়ে জোরগলায় কিছু বলার মতো অবস্থায়ও তিনি নেই। এ কারণেই আশার কথা বলার সময় মাশরাফির কণ্ঠে অসহায়ত্বও ফুটে উঠল যেন, ‘এবারও উইকেট ভালো হবে বলেই মনে হচ্ছে। আশা করি আমরা সেটি বুঝতে পারব এবং ভালো কিছু করতে পারব।’ শেষ ম্যাচে অন্তত ভালো কিছু করে মুখ রক্ষার তাগিদও তাঁর কথায় শোনা গেল বারবারই, ‘আশা করি শেষ ম্যাচে টপ অর্ডার ভালো কিছু করবে।’



মন্তব্য