kalerkantho



শাস্তির দাবিতে সোচ্চার তাঁরা

৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



শাস্তির দাবিতে সোচ্চার তাঁরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : যৌন নিপীড়ক সোহাগ আলীর শাস্তির দাবিতে সংগঠক-খেলোয়াড়রা গতকাল ঐক্যবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে। এই মানববন্ধনে দাঁড়িয়ে সবাই নির্যাতিত ভারোত্তোলকের সমব্যথী হয়ে আসামিকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক রকিবুল হাসান বলেছেন, ‘নারী ভারোত্তোলকের সম্ভ্রমহানির ঘটনার কথা শুনে মনে হচ্ছে, আমরা আদিম যুগে ফিরে গেছি। এ অবস্থা থেকে বের হওয়ার উপায় হলো, ধর্ষক অফিস সহকারীর শাস্তি।’ এমন ঘটনার কথা শুনে কঠিন ধাক্কা খেয়েছেন সাবেক তারকা আব্দুল গাফ্ফার, ‘এসব কী হচ্ছে ক্রীড়াঙ্গনে! আমাদের খেলোয়াড়ি জীবনে তো এমন কখনো দেখিনি। আমরা কি মানুষ হিসেবে আরো নিকৃষ্ট হয়ে যাচ্ছি।’ সাবেক ব্যাডমিন্টন তারকা ও সংগঠক কামরুন নাহার ডানা মোটেও সন্তুষ্ট নন মামলার অগ্রগতিতে, ‘এটা আমাদের সবাইকে এমন নাড়া দিয়েছে যে সবাই রাস্তায় এসে দাঁড়িয়েছি। নারীর সম্ভ্রম ও সম্মানের চেয়ে কোনো কিছু বড় হতে পারে না। সেটা আমরা দেখতে চাই ফেডারেশনের কর্মতৎপরতায় এবং মামলার অগ্রগতিতে। এখনো পর্যন্ত কেন আসামি ধরা পড়ল না, সেটা আমার কাছে বড় প্রশ্ন।’ গত ২৯ নভেম্বর নারী ভারোত্তোলকের মা পল্টন থানায় ধর্ষণ মামলা করলেও আসামি অফিস সহকারী সোহাগ আলীকে এখনো ধরতে পারেনি পুলিশ।

কুস্তিগীর শিরিন সুলতানা সরাসরিই প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে বসেন, ‘এভাবে চলতে দেওয়া যায় না। আমাদের প্রধানমন্ত্রী নারীদের এগিয়ে নেওয়ার জন্য অনেক কাজও করছেন। তাই ক্রীড়াঙ্গনে যৌন নির্যাতনের বিচার না হলে আমরা তাঁর কাছে আবেদন জানাব। নিপীড়কের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’ শাস্তির দাবি জানান সাবেক কৃতী ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় আবুল হাশেম, ফুটবলার হাসানুজ্জামান খান বাবলু, সাংবাদিক মোজাম্মেল হক চঞ্চল, সংগঠক নুরুল আলম চৌধুরীসহ অনেকে। ক্রিকেট কোচ ও কলামিস্ট জালাল আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘এখানে নারীদের নিরাপত্তা না থাকলে, তারা পৃষ্ঠপোষকতা না পেলে আমার নাতনিকে তো পাঠাব না আমি। এটা শুধু আমার কথা নয়, পুরো দেশের মানুষ এই অঘটনের কথা জেনেছে এবং তাদেরও দুশ্চিন্তার বিষয় হয়ে গেছে ক্রীড়াঙ্গনে নারীর নিরাপত্তাহীনতা।’ এটা এখন আর শুধু এক ভারোত্তোলকের জীবনের অঘটন নয়, ক্রীড়াঙ্গনেরই নতুন সংকট।



মন্তব্য