kalerkantho



মিলার-দু প্লেসিস কীর্তিতে সিরিজ প্রোটিয়াদের

১২ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



মিলার-দু প্লেসিস কীর্তিতে সিরিজ প্রোটিয়াদের

শুরুতে কাঁপছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। ৫৫ রানে ৩ উইকেট হারালেও অবশ্য পথ হারায়নি ডেভিড মিলার ও ফাফ দু প্লেসিসের কীর্তিতে। চতুর্থ উইকেটে দুজন গড়েন রেকর্ড ২৫২ রানের জুটি। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যেকোনো উইকেটে যেকোনো দলের এর চেয়ে বেশি রানের জুটি নেই আর। প্রোটিয়ারা গড়ে ৩২০ রানের পাহাড়। অস্ট্রেলিয়া চাপা পড়ল তাতে। তাদের ২৮০-তে থামিয়ে ৪০ রানের জয়ে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ নিশ্চিত করল সফরকারীরা। ২০০৯ সালের পর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে এটাই প্রথম ওয়ানডে সিরিজ জয় প্রোটিয়াদের।

হোবার্টের ম্যাচটিতে বিতর্ক ছড়িয়েছে ডেভিড মিলারের রিভিউ নিয়ে। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের করা ৩৩তম ওভারে ৪১ রানে এলবিডাব্লিউ হন তিনি। মিলারের সঙ্গে আলোচনার পর আলিম দারের সিদ্ধান্তের বিপক্ষে রিভিউয়ের সংকেত দু প্লেসিসের। আলিম দার দ্বিধায় ছিলেন। কারণ নিয়ম অনুযায়ী রিভিউয়ের সংকেত দিতে হবে আউট হওয়া ব্যাটসম্যানটিকে। পরে বুঝতে পেরে রিভিউ চান মিলার। সমস্যা সেখানেও। ‘টি’ চিহ্ন না দেখিয়ে হাত নেড়ে সংকেত দিয়েছিলেন তিনি। পেরিয়ে গিয়েছিল নির্ধারিত ১৫ সেকেন্ড। ফক্স স্পোর্টস জানায়, ১৮ সেকেন্ডে রিভিউ নিয়েছে প্রোটিয়ারা। বেঁধে দেওয়া সময়সীমা অবশ্য কঠোরভাবে মানা হয় না রিভিউর বেলায়। এর পরও এতগুলো অনিয়ম থাকায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্ক চলছে এ নিয়ে।

জীবন পেয়ে তাণ্ডব চালান মিলার। খেলেন ১০৮ বলে ১৩ বাউন্ডারি ৪ ছক্কায় ১৩৯ রানের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। এটা তাঁর পঞ্চম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। দশম ওয়ানডে সেঞ্চুরি করা দু প্লেসিস ১১৪ বলে ১৫ বাউন্ডারি ২ ছক্কায় করেছিলেন ১২৫। দুজনের ২৫২ রানের জুটি অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যেকোনো উইকেটে যেকোনো দলের সেরা। ২০০৩ সালের আগের সেরা ছিল সনৎ জয়াসুরিয়া ও মারভান আতাপাত্তুর ২৩৭। আর চতুর্থ উইকেটে ওয়ানডে ইতিহাসে এটা তৃতীয় সর্বোচ্চ। প্রথম ২৫ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকার রান ৩.৭৩ ইকোনমি রেটে। মিলার-দু প্লেসিস তাণ্ডবে শেষ ২৫ ওভারে ২২৭ রান আসে ৯.০৮ হারে। শেষ ১৫ ওভারে এসেছে ১৭৪, এই সময়ে ২০০১ সালের পর অস্ট্রেলিয়ান বোলাররা এত বেশি রান দেননি আর।

অস্ট্রেলিয়া ম্যাচটি হেরেছে এখানেই। শন মার্শ ১০২ বলে ১০৬ রানের ইনিংস খেললেও সঙ্গ দিতে পারেননি সতীর্থরা। মার্কাস স্টোইনিস ৭৬ বলে ৬৩ আর অ্যালেক্স ক্যারির ব্যাট থেকে আসে ৪১ বলে ৪২। ৯ উইকেটে ২৮০-তে থামে স্বাগতিকরা। ৩টি করে উইকেট কাগিসো রাবাদা ও ডেল স্টেইনের। ম্যাচের পাশাপাশি সিরিজ সেরার পুরস্কারও ডেভিড মিলারের। ক্রিকইনফো



মন্তব্য