kalerkantho


বোলারদের চওড়া হাসি

২৪ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



বোলারদের চওড়া হাসি

ক্রীড়া প্রতিবেদক : জাতীয় লিগের চতুর্থ রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনেও ব্যাটসম্যানদের বড় ইনিংস নেই। রংপুরে তো রীতিমতো খরা চলছে রানের। তবে তাতে রোমাঞ্চ আছে। স্বাগতিকদের পদাঙ্ক অনুসরণ করে গতকাল বরিশালের প্রথম ইনিংসও শেষ হয়েছে ঠিক ১৪৭ রানে। শুভাশীষ রায়ের ৫ উইকেট প্রাপ্তির সুবাদে প্রাপ্ত সুযোগ কাজে লাগানোর মিশনে এখন রংপুরের ব্যাটসম্যানরা। চলমান রাউন্ডের বাকি তিনটি ম্যাচের ভাগ্যে আপাতত ড্র-ই দেখা যাচ্ছে। ড্র ম্যাচে প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থাকার তাৎপর্য রয়েছে।

রংপুরের ক্রিকেট গার্ডেনের ম্যাচ নিষ্পত্তির সম্ভাবনা জেগেছিল প্রথম দিনেই। স্বাগতিকদের মাত্র ১৪৭ রানে গুটিয়ে দিয়ে জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করা বরিশালকে গতকাল জোর ঝাঁকুনি দিয়েছেন পেসার শুভাশীষ। তাঁর ৫ উইকেট প্রাপ্তির মধ্যে রবিউল হক ও তানভীর হায়দার দুটি করে শিকার লিড পেতে দেয়নি রংপুরকে। প্রথম ইনিংস ‘টাই’ করে ম্যাচে ফেরা বরিশাল দ্বিতীয় ইনিংসে এরই মধ্যে যোগ করেছে ৭৭ রান। তবে ৩ উইকেট হারানোয় সফরকারীদের পরিষ্কার ফেভারিট বলা যাচ্ছে না।

ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে এগিয়ে থাকার প্রহর গুনতেই পারে সিলেট। আগের দিনের সংগ্রহকে গতকাল খুব বেশি বাড়াতে পারেনি সিলেট। তবে দলটির বোলারদের কৃতিত্বে সেই ৩১২ রানও প্রথম ইনিংসে অগ্রগামিতার আশার বাণী শোনাচ্ছে দলটিকে। মার্শাল আইয়ুব ও শামসুর রহমান শুভর ফিফটিতে একটা সময় ঠিক পথেই এগোচ্ছিল ঢাকা মেট্রো। কিন্তু তাদের বিদায়ের পর আর কোনো ব্যাটসম্যান লড়তে পারেননি। আসলে লড়তে দেননি সিলেটের পেসার খালেদ আহমেদ। ৪ উইকেট নিয়েছেন এ তরুণ। মেট্রো এখনো পিছিয়ে ৪৫ রানে, হাতে আছে মাত্র ২ উইকেট। তবে আশার কথা, আজ দলকে এগিয়ে নেওয়ার মিশনে নামা জাবিদের পেছনে রয়েছে ৩৯ রানের আত্মবিশ্বাস।

নিজেদের মাঠে খুলনাও আগের দিনের সংগ্রহকে বেশি দূর নিতে পারেনি কাল। তাদের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ৩০৯ রানে। জবাব দিতে নেমে রাজশাহী দিন শেষ করেছে ৫ উইকেটে ২০২ রান তুলে। ফরহাদ হোসেনের ফিফটিই তাদের চালিকাশক্তি। তবে ১০৫ রানের ঘাটতি পেরিয়ে রাজশাহীর প্রথম ইনিংসে এগিয়ে যাওয়া অনেকটাই নির্ভর করছে সাব্বির রহমানের ওপর, যিনি ব্যাট করছেন ব্যক্তিগত ১৬ রানে।

কক্সবাজারের ম্যাচে চট্টগ্রাম যেন তাদের যাবতীয় দায়িত্ব তুলে দিয়েছে নাঈম হাসানের তরুণ কাঁধে। বোলিংয়ে ৮ উইকেট নিয়েছেন এ অফস্পিনার। এখন ঢাকা বিভাগের প্রথম ইনিংসে টপকে যাওয়ার দায়িত্বও তাঁর। ঢাকার ২৮৮ রানের প্রথম ইনিংস টপকাতে এখনো ৪৬ রান করতে হবে চট্টগ্রামকে। অথচ উইকেট আছে মাত্র দুটি, যার একটি নাঈমের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর : রংপুর-বরিশাল : রংপুর ১৪৭ ও ৪৭ ওভারে ৭৭/৩ (মাহমুদুল ব্যাটিং ২৭, সোহরাওয়ার্দী ব্যাটিং ৬, মনির ৩/১২)। বরিশাল ৫০ ওভারে ১৪৭/১০ (রাফসান ৪০, কামরুল ২৭*, শুভাশীষ ৫/৪৯, তানভীর ২/১৯, রবিউল ২/২৬)।

সিলেট-ঢাকা মেট্রো : সিলেট ৯৮ ওভারে ৩১২/১০ (খালেদ ১৮*)। ঢাকা মেট্রো ৭৯ ওভারে ২৬৭/৮ (মার্শাল ৭৪, শামসুর ৬৩, জাবিদ ব্যাটিং ৩৯, আসিফ ব্যাটিং ২, খালেদ ৪/৬৯)।

খুলনা-রাজশাহী : খুলনা ৯১ ওভারে ৩০৯/১০ (জিয়া ৪৩, ফরহাদ ৩/৫৪, শফিউল ৩/৬১, সানজামুল ৩/৭৩)। রাজশাহী ৭০ ওভারে ২০২/৫ (জুনায়েদ ৪৭, মিজানুর ৪৩, ফরহাদ হোসেন ৫৬, সাব্বির ব্যাটিং ১৬, সৌম্য ২/৪১, আল আমিন ২/৬২)।

ঢাকা বিভাগ-চট্টগ্রাম : ঢাকা ৮৮ ওভারে ২৮৮।

চট্টগ্রাম ৯০ ওভারে ২২৩/৮ (ইয়াসির ৬০, ইফতেখার ৪৬, মাহিদুল ৪০, নাঈম ব্যাটিং ১৬, মোশারফ ২/৫১)।



মন্তব্য