kalerkantho


স্প্যানিশ আর্মাডা থামাল ইংরেজ সিংহ

১৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



স্প্যানিশ আর্মাডা থামাল ইংরেজ সিংহ

১৩০টা জাহাজের স্প্যানিশ আর্মাডাকে হারিয়ে দিয়েছিলেন স্যার ফ্র্যান্সিস ড্রেক। ১৫ বছর ও ৩৮টা ম্যাচ পর, স্পেনকে স্পেনের মাটিতে কোনো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে হারানোর পর গ্যারেথ সাউথগেট তাই নাইট পদবি দাবি করতেই পারেন! উয়েফা নেশনস কাপের ম্যাচে স্পেনকে ৩-২ গোলে হারিয়ে দিয়েছে ইংল্যান্ড। আসরটা যতই প্রীতি ম্যাচগুলোকে একটা প্রতিযোগিতার মোড়ক দেওয়ার গালভারি নাম হোক না কেন, খাতা-কলমে তো প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ। আর সব শেষ বিশ্বকাপেও তো স্প্যানিয়ার্ডদের জারিজুরি খতম হয়ে গেছে শুরুর দিকেই, ইংল্যান্ড তো উঠেছিল শেষ চারে। তাই স্প্যানিশদের বিপক্ষে জয়টাকে মোটেও অঘটন বলা যাচ্ছে না। বরং বিশ্বকাপে বদলে যাওয়া ইংরেজ সিংহের আরেক শিকার বলা যায় স্প্যানিয়ার্ডদেরই!

স্কোরবোর্ড বলছে ৩-২। তবে বাস্তবতা হচ্ছে, ম্যাচের ৩৮ মিনিটের ভেতরই স্প্যানিশ রক্ষণকে তিনবার চিচিং ফাঁক করে দিয়ে গোল ইংল্যান্ডের। এমন নয় যে তারকা ফুটবলারদের বিশ্রাম দিয়েছিল স্পেন। বরং লুই এনরিকে প্রায় পূর্ণ শক্তির দলই নামিয়েছিলেন। দুই দলেরই ছক ছিল ৪-৩-৩। পার্থক্যটা আসলে গড়ে দিয়েছে কোচিংয়ের ধারাবাহিকতা। বিশ্বকাপের আগে ইউলেন লোপেতুগি, বিশ্বকাপের সময় ফের্নান্দো হিয়েরো আর বিশ্বকাপের পর এনরিকে, তিন দফা বদলের ভেতর দিয়ে গেছেন স্পেনের ফুটবলাররা। অন্যদিকে গ্যারেথ সাউথগেটের হাতে বিশ্বকাপের দলটাই। তারুণ্যে জোর দিয়ে যে দলটা বেছেছেন ওয়েস্টকোটধারী এই কোচ। বিশ্বকাপে তারা প্রথমবার জিতেছে পেনাল্টিতে, ১৯৯০-এর পর এবারই উঠেছিল সেমিফাইনালে। সেভিলের স্টেডিয়ামে প্রায় তিন বছরের গোল খরা ঘোচালেন রহিম স্টার্লিং। ২০১৫ সালের অক্টোবরে এস্তোনিয়ার বিপক্ষে গোল করার পর স্পেনের বিপক্ষেই গোল করলেন, মাঝে তিনটা বছর, এক হাজার ১০২ দিন, ২৭টা ম্যাচ জাতীয় দলের জার্সিতে গোলহীন। ১৬ ও ৩৮ মিনিটে স্টার্লিংয়ের দুটো গোলের মাঝে, ৩০ মিনিটে একটা গোল করেছেন মার্কাস রাশফোর্ডও। ৫৮ মিনিটে পাকো আলকাসার একটা গোল শোধ করেছিলেন, আর একেবারে অন্তিমলগ্নে ৯৮তম মিনিটে ব্যবধানটা কমানোর সান্ত্বনা পেয়েছেন সের্হিয়ো রামোস। তবে তাতে ইংল্যান্ডের জয়টা আটকায়নি। হ্যারি কেইন নিজে কোনো গোল করেননি, তবে ইংল্যান্ডের প্রতিটি গোলেই তাঁর ভূমিকা ছিল গুরুত্বপূর্ণ। 

ইংল্যান্ড থেকে স্পেনে যাওয়া হাজার তিনেক দর্শক সাক্ষী হয়ে রইলেন অবিস্মরণীয় কীর্তির। প্রতিযোগিতামূলক কোনো ম্যাচে এই প্রথমবারের মতো যে ৩ গোল হজম করল স্পেন!

হ্যারি কেইনদের ‘স্পেন বিজয়’-এর খবর আর ছবিতে সয়লাব ইংল্যান্ডের পত্রপত্রিকা। ‘স্পেনের রাজা’, ‘স্পেন বিজয়’ এমন সব শিরোনামে স্টার্লিং-রাশফোর্ডদের রাজসিক ছবি। হ্যারি কেইন ম্যাচের পর জানালেন, ‘অভাবনীয় অনুভূতি। স্পেন বিশ্বের ভেতর ফর্মের তুঙ্গে থাকা দলগুলোর একটা, তবে আমরা জানতাম তাদের হারাতে পারব। আমরা ভালোভাবেই জিতেছি। দ্বিতীয়ার্ধটা কঠিন ছিল। তবে আমরা ভালোই রক্ষণ করেছি আর চাপটা সামলে নিয়েছি।’ লুই এনরিকে অবশ্য প্রথমার্ধেই ৩ গোল হজমের পর হাল না ছাড়ার মানসিকতার প্রশংসাই করছেন, ‘মধ্যবিরতির সময় সাধারণত এ রকম পরিস্থিতিতে এটাই বলা হয় যে আর যেন গোল হজম করতে না হয়। এ অবস্থায় রেখেই হার মেনে ফিরে আসার। আমরা সেটা করিনি। আমি খেলোয়াড়দের মনোবলটা জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করেছি আর বলেছি অনেক বড় দলই সম্প্রতি হোঁচট খেয়েছে। ওদের দ্বিতীয়ার্ধের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়তে হয়েছে। এটা লজ্জার যে আমরা দ্বিতীয় গোলটা আরেকটু আগে করতে পারিনি। পারলে আমাদের দর্শকরাই তৃতীয় গোলটা করিয়ে ফেলত।’

সোমবার এস্তোনিয়া ৩-৩ গোলে ড্র করেছে হাঙ্গেরির সঙ্গে, ফিনল্যান্ড ২-০ গোলে হারিয়েছে গ্রিসকে, আইসল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েছে সুইজারল্যান্ড আর বসনিয়া হার্জেগোভিনা ২-০ গোলে হারিয়েছে নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডকে। ইএসপিএনএফসি



মন্তব্য