kalerkantho



বসুন্ধরায় এবার ব্রাজিলীয় সৌরভ

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



বসুন্ধরায় এবার ব্রাজিলীয় সৌরভ

আর সব ব্রাজিলিয়ানের মতো তাঁর নামটাও দীর্ঘ—মার্কোস ভিনিসিয়াস দ্য কোস্তা সোয়ারেস দ্য সিলভা। থাইল্যান্ড লিগে দুই মৌসুম পার করে ২৭ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার এখন ঢাকার বসুন্ধরা কিংস ক্লাবে।

ক্রীড়া প্রতিবেদক : চেহারা-ছবি দিয়ে বাঙালির সঙ্গে তাঁর খুব পার্থক্য করা যাবে না। পার্থক্যটা স্পষ্ট হবে নাকি মাঠের খেলায়, গোলের আলোড়নে। মার্কোস ভিনিসিয়াসও গোলে গোলে নিজেকে চেনানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, ‘গোল করাই আমার কাজ। গোল দিয়েই নিজেকে চেনানোর চেষ্টা করব।’

আর সব ব্রাজিলিয়ানের মতো তাঁর নামটাও দীর্ঘ—মার্কোস ভিনিসিয়াস দ্য কোস্তা সোয়ারেস দ্য সিলভা। তবে তাঁর পছন্দের অংশটুকু এম ভিনিসিয়াস। দুই বছর ধরে ব্রাজিলের বাইরে থেকেও ইংরেজিটা ঠিক আয়ত্ত করতে পারেননি। বলে গেলেন পর্তুগিজ ভাষায়, যা অস্ট্রেলিয়ান এজেন্টের তর্জমায় দাঁড়িয়েছে, ‘ব্রাজিলে সাও পাওলোতে আমার জন্ম, একসময় স্টেট লিগে খেলতাম আমি। সর্বশেষ দুটি মৌসুম খেলেছি থাইল্যান্ডে, সুবাদে এশিয়ান ফুটবল সম্পর্কে আমার একরকম ধারণা হয়েছে। এখানে এসেছি গোল করে দলকে সাহায্য করার জন্য। ক্লাবের এএফসি খেলার লক্ষ্য পূরণের চেষ্টা করব আমি।’ থাইল্যান্ড লিগে দুই মৌসুম পার করে ২৭ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকার এখন ঢাকার বসুন্ধরা কিংস ক্লাবে। প্রিমিয়ারে নবাগত ক্লাবটি এবার ঘরোয়া ফুটবলের সবকটি শিরোপা জিতে সাড়া ফেলতে চায়।

দলের ধার-ভারও হয়েছে সে রকম। বাংলাদেশ জাতীয় দলের ৯ ফুটবলারের সঙ্গে বিশ্বকাপ খেলা কোস্টারিকান ড্যানিয়েল কলিনড্রেস এবং এক স্প্যানিশ ডিফেন্ডার। এরপর যোগ হয়েছে থাই লিগ মাতানো ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ভিনিসিয়াস। গতকাল চুক্তি সম্পাদন অনুষ্ঠানে হাজির তাঁর এজেন্টের দাবি অনুযায়ী, দুই মৌসুমে দুই ক্লাবের হয়ে তিনি করেছেন ৪০ গোল। পায়ে গোলের ফোয়ারা আছে, এমন এক স্ট্রাইকারকেই খুঁজছিল বসুন্ধরা কিংস। অনেক খোঁজাখুঁজির পর শেষ পর্যন্ত কিংস প্রেসিডেন্ট ইমরুল হাসানের মনে ধরেছে মার্কোস ভিনিসিয়াসকে, ‘নাম্বার নাইন পজিশনে আমাদের একজন স্কোরার দরকার ছিল, যার সঙ্গে কলিনড্রেসের ভালো পার্টনারশিপ হবে। মার্কোসের খেলার ভিডিও দেখে আমার এবং আমাদের কোচের ভালো লেগেছে। তাই এই স্ট্রাইকারকে নিয়ে আসা। আমাদের প্রত্যাশা এই বিদেশি জুটিতে আলোকিত হবে বসুন্ধরা কিংস এবং ঢাকা মাঠ।’ দলের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজোনও চাইছেন কলিনড্রেস-ভিনিসিয়াসের জুটি গড়ে তুলতে। বিশ্বকাপের অভিজ্ঞতা নিয়ে আসা কোস্টারিকান ঠিক স্ট্রাইকার নন, খেলা তৈরি এবং গোল বানিয়ে দেওয়াই তাঁর কাজ। পরের কাজটুকু ঠিকঠাক করতে না পারলে কলিনড্রেসের ওই খেলাটাই বৃথা। তাই জালে গোল পাঠানোর মোক্ষম কাজটা করতে হবে ভিনিসিয়াসকে।

মজার ব্যাপার হলো, জুটির দুজন কেউ কাউকে চেনেন না। গতকাল পর্যন্ত নিজেরা ছিলেন অচেনা। তবে ভিনিসিয়াস শুনেছেন, ‘বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা একজনের সঙ্গে খেলব, এটা দারুণ ব্যাপার হবে।’ তিন বিদেশি নেওয়া হয়ে গেছে ইতিমধ্যে। আজ-কালের মধ্যে চূড়ান্ত হয়ে যাবে চতুর্থ বিদেশিও। ক্লাব কর্মকর্তাদের ইঙ্গিত অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়া কিংবা উজবেকিস্তানের আরেক মিডফিল্ডার যোগ হতে যাচ্ছে বসুন্ধরা কিংসে। এমন দলকে চ্যালেঞ্জ জানানো কঠিই হবে যে কারো জন্য।



মন্তব্য