kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপেই আমার অম্ল-মধুর স্মৃতি

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপেই আমার অম্ল-মধুর স্মৃতি

জাতীয় দলের সেন্ট্রাল ব্যাক হিসেবে একটা সময় নিয়মিত ছিলেন জাতীয় দলে। ইয়াসিন খান মাঝখানে পথ হারিয়ে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের আগে আবার ডাক পেয়েছেন দলে। কাল ক্যাম্পেও যোগ দিয়েছেন। কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি এ প্রসঙ্গেই কথা বলেছেন তিনি

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : অনেক দিন পর আবার জাতীয় দলের ক্যাম্পে, কেমন লাগছে আপনার?

ইয়াসিন খান : অবশ্যই ভালো লাগছে। এমন কিছুর জন্যই তো সব সময় অপেক্ষা করে থাকি। শেখ রাসেলের ক্যাম্পেই ছিলাম। বিকেলে মুক্তিযোদ্ধার বিপক্ষে একটা প্রস্তুতি ম্যাচও খেলেছি। এরপর রাতেই যোগ দিলাম জাতীয় দলের ক্যাম্পে। কাল থেকে আশা করি অনুশীলনও শুরু করব।

প্রশ্ন : কত দিন পর ফিরলেন?

ইয়াসিন : সর্বশেষ বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে খেলেছিলাম। টম সেইন্টফিটের দলে ছিলাম না, যে দলটি মালদ্বীপ আর ভুটান গেল। এরপর তো অনেক দিন আর বাংলাদেশের খেলাই নেই। আমিও ইনজুরিতে পড়লাম। লাওস ম্যাচের আগে অ্যান্ড্রু ওর্ড ডেকেছিলেন। আমি এক মাস সময় চাই। এরপর তো উনি চলেই গেলেন।

প্রশ্ন : জেমি ডের দলের খেলা তো দেখেছেন, ডিফেন্ডার হিসেবে তাঁর দলে জায়গা পাওয়াটা কতটা চ্যালেঞ্জ?

ইয়াসিন : ডেমি ডের দলের ডিফেন্স এশিয়ান গেমস এবং সাফ দুটি আসরেই বেশ ভালো করেছে। দারুণ প্রেসিং ফুটবল খেলিয়েছে সে। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ শুরুর আগে অবশ্য সময় অল্প। এর পরও চেষ্টা করব নিজেকে তাঁর সামনে মেলে ধরার।

প্রশ্ন : সেন্টার ব্যাকে তপু বর্মণ ও টুটুল হোসেন এত ভালো করছেন যে নাসিরউদ্দিন চৌধুরীই বাইরে বসে ছিলেন সাফে, আপনাকেও এখন সেই প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়তে হবে।

ইয়াসিন : একটা সময় আমি আর তপুই খেলেছি নিয়মিত। এখন টুটুলও ভালো খেলছে। কোচ আরিফ ভাইকেও (আরিফুল ইসলাম) ডেকেছেন। জায়গার জন্য তাই জোর লড়াই হবে মানছি। তবে আমি আত্মবিশ্বাসী নিজেকে প্রমাণ করার ব্যাপারে।

প্রশ্ন : নিজের ফিটনেস ও পারফরম্যান্স কোন অবস্থায় আছে বলে মনে করেন?

ইয়াসিন : মাস তিনেক ধরেই আমি ফিট। অবশ্য শেখ রাসেলের ক্যাম্পটা শুরু হয়েছে খুব বেশি দিন হয়নি। তার আগ পর্যন্ত ছুটিতেই ছিলাম। জেমি ডের ক্যাম্পে যারা ছিল তাদের ফিটনেস তো অবশ্যই ভালো। আমাকে তাই সব দিক দিয়েই লড়তে হবে।

প্রশ্ন : এই বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপেই তো আপনার দারুণ স্মৃতি...

ইয়াসিন : হ্যাঁ, অম্ল-মধুর স্মৃতি। নতুন করে শুরু হওয়ার পর প্রথম আসরের ফাইনালে গোল করেও হেরে গিয়েছিলাম। পরেরবারও গোল আছে। এই বঙ্গবন্ধু কাপ সামনে রেখেই আমার ডাক পাওয়াটা তাই বিশেষ কিছুই। জানি না মূল দলে থাকতে পারব কি না শেষ পর্যন্ত। তবে এই ডাক পাওয়া দিয়ে সুযোগ তো তৈরি হলো।



মন্তব্য