kalerkantho



মুখোমুখি প্রতিদিন

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশই ফেভারিট

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশই ফেভারিট

২০১২ এশিয়া কাপের সেই অবিস্মরণীয় যাত্রায় তিনিও ছিলেন মাঠের সৈনিক। ভারতের বিপক্ষে জয়ে ৫৩ রানের ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ইনিংসও খেলেন। সেই জহুরুল ইসলাম এখন জাতীয় দলের বাইরে। তবে আজ থেকে শুরু হওয়া এশিয়া কাপে বাংলাদেশকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন ঠিকই। ছয় বছর আগে ফাইনালে হারা পাকিস্তানকেই এবারও সবচেয়ে বড় প্রতিপক্ষ মানছেন ৭ টেস্ট ও ১৪ ওয়ানডে খেলা এই ব্যাটসম্যান।

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : যদিও ছয় বছর আগের টুর্নামেন্ট, তার পরও আরেকটি এশিয়া কাপ শুরুর আগে ২০১২ এশিয়া কাপ থেকে কতটা প্রেরণা নেওয়ার রয়েছে বাংলাদেশের?

জহুরুল ইসলাম : অনেকখানি অনুপ্রাণিত হতে পারে। সেই টুর্নামেন্টে আমরা ভারতকে হারিয়েছি; শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছি। ফাইনালে পাকিস্তানের কাছে হেরেছি মোটে ২ রানে। মনে রাখতে হবে, এখন যেমন বাংলাদেশ বড় দলগুলোকে নিয়মিত হারায়, তখন অবস্থা তেমন ছিল না। ২০১২ এশিয়া কাপ তাই আমাদের জন্য বড় অনুপ্রেরণা। ওই দলের অনেকেই তো এখনো রয়েছে। ওরা সেই স্মৃতিচারণ করে বাকিদের উজ্জীবিত করছে নিশ্চয়ই।

প্রশ্ন : এবারের ফরম্যাটে তো ভিন্ন। আগে গ্রুপের তিন দলের মধ্যে সেরা দুইয়ে থেকে পরের রাউন্ডে যেতে হবে। সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে নিয়ে আপনি কতটা আশাবাদী?

জহুরুল :  শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তানের গ্রুপ থেকে সেরা দুইয়ে থাকা নিয়ে আমার কোনো সংশয় নেই। কাল (আজ) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে আমি বাংলাদেশকেই ফেভারিট বলব। নিদাহাস ট্রফিতে ওদের আমরা হারিয়েছি। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজে জিতেছি ওয়ানডে সিরিজ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারলেও এবার খেলা হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে। যেখানে আমরা অনেক এগিয়ে। ওয়ানডে বলেই এই গ্রুপ থেকে পরের রাউন্ডে যাওয়া নিয়ে আমি খুব একটা চিন্তিত না।

প্রশ্ন : এরপর?

জহুরুল : পরের রাউন্ডে উঠলে বাংলাদেশের শিরোপা জয়ের সম্ভাবনাও রয়েছে। ভারত খুব ভালো দল, কিন্তু কোহলিকে ছাড়া ওদের মধ্যে কেমন যেন একটা গাছাড়া ভাব দেখা যায়। সবাই নিজের জন্য খেলে, দল হিসেবে সেভাবে খেলতে পারে না। এ সুযোগটা বাংলাদেশ নিতে পারে। আমার দৃষ্টিতে এবারের এশিয়া কাপে ফেভারিট পাকিস্তান। আবুধাবি, দুবাই ওদের ঘরের মাঠ। আর নতুন প্রজন্মের দারুণ কিছু ক্রিকেটারও এসেছে।

প্রশ্ন : বাংলাদেশ দলের শক্তির জায়গা কোনটি মনে হয়?

জহুরুল : আমাদের পাঁচজন ভীষণ অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রয়েছে। ওরা পারফরমও করছে দারুণ। এটি বাংলাদেশকে এগিয়ে রাখবে। তরুণরা নির্ভার হয়ে খেলে পারফরম করার সুযোগ পাবে। আর দলের ব্যাটিং-বোলিং সব মিলিয়ে বললে কেবল ছয়-সাত নম্বরে ফিনিশারের অভাব চোখে পড়ছে। যদি আরিফুল বা মোসাদ্দেক এখানটায় ঝলসে উঠতে পারে, তাহলে খুব ভারসাম্যপূর্ণ দল বাংলাদেশ।



মন্তব্য