kalerkantho


সংক্ষিপ্ত

দুই প্রতিদ্বন্দ্বীকে মেলালেন তিনি

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



দুই প্রতিদ্বন্দ্বীকে মেলালেন তিনি

জাকার্তা থেকে প্রতিনিধি : অভাবনীয় এক কাণ্ডই করে বসলেন হানিফিয়ান ইউদানি কুসুমা। পেনাক সিলাতে গ্রুপ ‘সি’র ৫৫-৬০ কেজিতে সোনা জিতেছেন তিনি। এরপর ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় পতাকা নিয়ে কান্না। কোর্টে মাথা ঠেকিয়ে কাঁদলেন কিছুক্ষণ। এ পর্যন্ত ঠিকই ছিল। এরপর ভিআইপি গ্যালারির দিকে দিলেন দৌড়। সেখানে পাশাপাশি বসে ম্যাচ দেখছিলেন ইন্দোনেশিয়ান প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ও আগামী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী প্রাবো সুবিয়ান্তো। আগামী বছর নির্বাচন বলে দুজনের তিক্ততা বেড়েছে আরো। সেই তিক্ততা কমানোরই দুরন্ত চেষ্টা করলেন হানিফিয়ান ইউদানি কুসুমা ।

প্রথমে হানিফিয়ান হাত মেলালেন প্রেসিডেন্ট উইদোদোর সঙ্গে। এরপর হাত মেলালেন সুবিয়ান্তোর সঙ্গেও। জড়িয়েও ধরলেন তাঁকে। এরপর হ্যাঁচকা টান। অনুরোধ করলেন উইদোদোর সঙ্গে হাত মেলানোর। সুবিয়ান্তো সম্মতি জানানোর আগেই নিয়ে এলেন প্রেসিডেন্টের কাছে। তিনজন মিলে গলা জড়িয়ে ধরলেন একে অন্যের! জাকার্তা পালেমবাং এশিয়ান গেমসে ইন্দোনেশিয়ান জনগণের সেরা পাওয়া হয়তো এটাই। দেশজুড়েই তাই চলছে হানিফিয়ান ইউদানি কুসুমার বন্দনা। এমনকি সেই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্টও করেছেন প্রেসিডেন্ট উইদোদো। ক্যাপশনে লেখা, ‘হানিফিয়ান, আমি আর প্রাবো তিনজন একসঙ্গে লাল-সাদা পতাকায়।’ গত নির্বাচনেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন উইদোদো আর সুবিয়ান্তো। সেখানে জয়ের পর আগামী বছর ‘দ্বিতীয় ম্যাচের’ অপেক্ষায় দুজন। তাঁদের গলা জড়িয়ে ছবি তোলাতে পেরে ভীষণ খুশি হানিফিয়ান, ‘আমি কখনো ভাবিনি সোনা জিতব এশিয়ান গেমসে। খুশিতে পাগল হয়ে পড়েছিলাম। দুই প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী গলা জড়িয়ে ছবি তুলবেন এতটা ভেবে গ্যালারিতে যাইনি। এটা শুধু হয়ে গেছে।’



মন্তব্য