kalerkantho


পাণ্ডের পাঁচে অল আউট ইংল্যান্ড

২০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



পাণ্ডের পাঁচে অল আউট ইংল্যান্ড

টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত ইনিংসে ৫ উইকেট পেয়েছেন এই মিডিয়াম পেসার। ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসটা তাতে দুইশর নিচেই গুটিয়ে যাবার শংকায়।

৬ উইকেটে ৩০৭ রানে শেষ করা প্রথম দিনের পর দ্বিতীয় দিনে খুব বেশি রান জুড়তে পারেনি ভারত। ঋষভ পান্টের প্রতিরোধ ভাঙতেই শেষ বাকিটা, ৩২৯ রানে অল আউট। কিন্তু এরপর যা হলো, সেটা কেউই বোধ হয় ভাবেনি। যে উইকেটে প্রথম দিন উইকেট পেতে ব্রড-অ্যান্ডারসনরা মাথা কুটেছেন, সেখানেই কিনা হার্দিক পাণ্ডের ৫ উইকেট! টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ইনিংসে ৫ উইকেট পেয়েছেন এ মিডিয়াম পেসার। ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংসটা তাতে ২০০-এর নিচেই গুটিয়ে যায়।

অথচ ইংল্যান্ডের ইনিংসের শুরুটা মন্দ হয়নি। অ্যালিস্টার কুক-কিটন জেনিংসের জুটি ভাঙে দলীয় ৫৪ রানে, ঈশান্ত শর্মার বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন কুক। সেটা ছিল ওভারের শেষ বল। নতুন ওভারের প্রথম বলেই জেনিংসও ক্যাচ দিলেন উইকেটের পেছনে, বোলার ছিলেন বুমরাহ। পর পর দুই বলে দুই ওপেনারের উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে ইংল্যান্ড। ধাতস্থ হওয়ার আগেই ঈশান্তের আবার আঘাত, এবার অলিভার পোপ। তিনিই ক্যাচ দিয়েছেন ঋষভের হাতে। ইংল্যান্ডের প্রথম চার ব্যাটসম্যানের তিনজনই ক্যাচ দিয়েছেন উইকেটের পেছনে। তবে সর্বনাশ করেছে জো রুটের আউটটাই। পাণ্ডের করা বলটা রুটের ব্যাট ছুঁয়ে স্লিপে লোকেশ রাহুলের হাতে তালুবন্দি হওয়ার আগে মাটি স্পর্শ করেছে বলেই মনে হয়েছে খালি চোখে। তবে রিভিউ ও তৃতীয় আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত গেল ভিন্ন দিকেই, রুট যখন আউট হলেন তখন স্কোরকার্ডে ৮৬/৪। তারপর একে একে বেন স্টোকস, জনি বেয়ারস্টো, ক্রিস ওকস সবাই ধরেছেন ফিরতি পথ। জশ বাটলার ৩৯ রানের ইনিংসে খানিকটা প্রতিরোধের চেষ্টা করেছিলেন। বুমরাহর বলে শার্দুল ঠাকুরের হাতে ক্যাচ দিয়ে তারও ইতি। ১৬১ রানে অল আউট ইংল্যান্ড, ভারত লিড পায় ১৬৮ রানের। তা বেড়ে এ প্রতিবেদন লেখার সময় ছিল ২৬৪ রান। তখন দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের স্কোর ছিল এক উইকেটে ৯৬। 

২৯ বলের ভেতর ৫ উইকেট নিয়ে পাণ্ডেই ধসিয়ে দিয়েছেন ইংল্যান্ডকে। বিনা উইকেটে ৫৪ থেকে ১৬১ রানে অল আউট, ভারতকে এনে দিয়েছে ২০০৭ সালের পর ইংল্যান্ডের মাটিতে সবচেয়ে বড় লিড। অভিষেকে ঋষভ পান্টও নীরবে করে ফেলেছেন একটি রেকর্ড। টেস্ট অভিষেকেই ৫টি ডিসমিসালের কৃতিত্ব দেখিয়েছেন তিনি। প্রথম ভারতীয় উইকেটরক্ষক হিসেবে টেস্ট অভিষেকেই ৫টি ডিসমিসালের কৃতিত্ব ঋষভের।

অন্যদিকে, গত দুই বছরে এই নিয়ে তৃতীয়বারের মতো এক সেশনেই অল আউট হয়ে গেল ইংল্যান্ড। অথচ ১৯৩৮ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ৭৮ বছরে এমনটা একবারও হয়নি। ক্রিকইনফো

 



মন্তব্য