kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

এতটা খারাপ আশা করিনি, আমি লজ্জিত

২০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



এতটা খারাপ আশা করিনি, আমি লজ্জিত

অন্য সাঁতারুরা ফিনিশিং লাইন স্পর্শ করে ফেলেছেন। খাদিজা আক্তার তখনো সাঁতরে চলেছেন জেবিকের অ্যাকুয়াটিক সেন্টারে। ১০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোক শেষ করলেন ১.২৭ সেকেন্ডে। ২ নম্বর হিটে ১ নম্বর লেনে ছিলেন খাদিজা। সাতজনের মধ্যে সপ্তম। এ ইভেন্টের হিটে মোট ২৬ জনের মধ্যে খাদিজার অবস্থান ২৪। কালের কণ্ঠ’র মুখোমুখি হয়ে জানালেন এতটা খারাপ আশা করেননি তিনি নিজেও

 

প্রশ্ন : শুরুটা ভালো হলো না মোটেও?

খাদিজা আক্তার : এতটা খারাপ করব আশা করিনি। ভেবেছিলাম অন্তত সেরা ১৫-তে থাকব। কিন্তু ২৬ জনের মধ্যে ২৪ খুবই খারাপ ফল। আমি লজ্জিত।

প্রশ্ন : দেশে অনুশীলনে আপনার সেরা টাইমিং তো আরো ভালো ছিল।

খাদিজা : দেশে তো আসলে হ্যান্ডটাইমিং। সেখানকার টাইমিং দিয়ে বিচার করা কঠিন। অনুশীলনে আমার সেরা টাইমিং ১ মিনিট ২২ সেকেন্ড। জাকার্তার অ্যাকুয়াটিক সেন্টারে টাইমিং হলো ১ মিনিট ২৭ সেকেন্ড। এখানকার পুলটা দুর্দান্ত। কিন্তু ভালো আর করতে পারলাম কোথায়?

প্রশ্ন : মাহফিজুর রহমান সাগর ২০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে অংশ নেননি দেরিতে আসায়। আপনিও কি ভেবেছিলেন নাম প্রত্যাহারের?

খাদিজা : সাগর ভাই অনেক বড় তারকা। অলিম্পিক, কমনওয়েলথ গেমস খেলেছেন। আমি এখানে সুযোগ পেয়েছি এটাই সৌভাগ্যের। ভ্রমণ ক্লান্তির জন্য সরে যাওয়ার কথা ভাবতেই পারি না। এখানে আমরা এসেছি আসলে আত্মবিশ্বাস বাড়াতে, যেন ভালো করতে পারি এসএ গেমসে। টুর্নামেন্টটা খুব বেশি দূরে নেই।

প্রশ্ন : হলো তো উল্টোটা?

খাদিজা : কী আর করা যাবে। অনেক অজুহাতই দেওয়া যায়। অন্য দেশের সাঁতারুরা দীর্ঘমেয়াদি অনুশীলন নিয়ে এসেছে। সেখানে আমি সুযোগ পেয়েছি মাত্র এক মাস। তাও মিরপুর সুইমিং কমপ্লেক্সের নির্মাণকাজ চলায় কিছুদিন অনুশীলন করা হয়নি। কোনো অজুহাত দিচ্ছি না। আমার বয়স অল্প, এটা শেখার টুর্নামেন্ট। বিশ্বের সেরা তারকাদের কাছ থেকে শিখতে চাই অনেক কিছু।

প্রশ্ন : গেমস ভিলেজে সেই সুযোগ কি পাচ্ছেন?

খাদিজা : চীন, জাপান, কোরিয়ার সাঁতারুরা সবাই নিজেদের ইভেন্ট ও কাজ নিয়ে ব্যস্ত। তাঁদের চালচলন, প্রশিক্ষণ দেখে শিখছি। কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলব অবশ্যই।

প্রশ্ন : সাঁতারে আপনারা এসেছেন মাত্র দুজন। সঙ্গে কোনো কোচ নেই। কোচ ছাড়া খেলে কি ভালো করা সম্ভব?

খাদিজা : কোচ ছাড়া কিভাবে খেলা যায়? সাঁতার ব্যক্তিগত খেলাই। কিন্তু শেষ মুহূর্তে অনেক কৌশলের ব্যাপার থাকে, যা কোচ শুধরে বা ঠিক করে দেন। সেই সুযোগই তো আমার নেই জাকার্তায়।

প্রশ্ন : তাহলে পরের দুটো ইভেন্টেও ভালো কিছুর আশা করছেন না?

খাদিজা : আমি চেষ্টা করব। বাকিটা দেখা যাক।



মন্তব্য