kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

নক আউটে খেলতে আত্মবিশ্বাসী আমরা

১৯ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



নক আউটে খেলতে আত্মবিশ্বাসী আমরা

একটা জয়ে হতে পারে নতুন ইতিহাস। প্রথমবার বাংলাদেশ চলে যাবে এশিয়ান গেমসের নক আউট পর্বে। কোচ জেমি ডে গতকাল অনুশীলন শেষে টিম হোটেলে কালের কণ্ঠ’র মুখোমুখি হয়ে জানালেন কাতারের বিপক্ষে জয়ের জন্য খেলার কথা। কাতার র‍্যাংকিংয়ে অনেক এগিয়ে থাকলেও নিজের শিষ্যদের ওপর আস্থা হারাননি বাংলাদেশের কোচ

প্রশ্ন : বাংলাদেশ তো দারুণ সম্ভাবনার সামনে দাঁড়িয়ে। কাতারকে হারালেই চলে যাবে এশিয়ান গেমসের নক আউট রাউন্ডে।

জেমি ডে : জয়টা এত সহজ নয়। কাতার র‍্যাংকিংয়ে আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে। ওরা উজবেকিস্তানের কাছে ৬ গোল খেলেও খারাপ দল হয়ে যায়নি। আমাদের মতো সমান সুযোগ আছে কাতারেরও। এর পরও আমরা আশাবাদী। ছেলেরা সবাই আত্মবিশ্বাসী।

প্রশ্ন : ড্র হলেও তো সম্ভব পরের রাউন্ডে যাওয়া?

জেমি ডে : নানা অঙ্কই আছে। একই সময়ে শুরু উজবেকিস্তান ও থাইল্যান্ড ম্যাচ। আমরা আশা করছি উজবেকিস্তান বড় ব্যবধানে জিতবে। এই টুর্নামেন্টে অন্যতম ফেভারিট হয়ে এসেছে উজবেকিস্তান। অন্যদের ম্যাচের দিকে না তাকিয়ে আমরা নিজেদের নিয়ে ভাবছি। অবশ্যই খেলব জয়ের জন্য। কিন্তু যদি ৮০ মিনিট পর্যন্ত ১ গোলে এগিয়ে থাকি তাহলে শেষ ১০ মিনিট ব্যবধানটা ধরে রাখার সব রকম চেষ্টা করব।

প্রশ্ন : একাদশে কি কোনো পরিবর্তন থাকবে?

জেমি ডে : কাতার দলে দ্রুতগতির কয়েকজন খেলোয়াড় আছে। ওদের থামানোর জন্য সব ধরনের অনুশীলনই করেছি আজ (গতকাল)। কারো কোনো ইনজুরি নেই। কার্ড সমস্যাও নেই। সবচেয়ে ভালো দিকটা হলো, তরুণ দলের সবাই খুব আত্মবিশ্বাসী। এই আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে পারাটা সন্তুষ্টির।

প্রশ্ন : থাইল্যান্ডের বিপক্ষে গোল মিস করেছিলেন মাহবুবুর রহমান। দুটি সুযোগ নষ্ট না করলে জিততেও পারত বাংলাদেশ।

জেমি ডে : আমি কাউকে কখনই দোষ দিইনি, দিতেও চাই না। ফুটবল টিম গেম। ব্যক্তিগত খেলা নয়। গোল করা খেলার অংশ, গোল না করাও অংশ। মাহবুবুর মিস করেছে তবে গোল কিন্তু ও-ই করেছে। ওর একটা গোলে এখন দ্বিতীয় রাউন্ডের সামনে আমরা।

প্রশ্ন : ৪-২-৩-১ ছকে খেলাচ্ছেন দলকে। এতে কতটা মানিয়ে নিতে পারছে দল?

জেমি ডে : দেশের মাটিতে কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচের পর কাতার, দক্ষিণ কোরিয়াতে খেলেছি একই ছকে। বেশ কিছুদিন ধরে খেলায় ছেলেরা অভ্যস্ত হয়ে উঠছে। আমার দলেও মাহবুবুর, বিপলুদের গতি অনেক। প্রতিআক্রমণে ওরা দ্রুত ওপরে উঠতে পারে। আগের ম্যাচে এভাবেই আমরা কয়েকটি সুযোগ তৈরি করতে পেরেছি।

প্রশ্ন : দলের সঙ্গে থাকা সিনিয়র খেলোয়াড়রা কিভাবে সাহায্য করছে তরুণদের?

জেমি ডে : এসএ গেমসের জন্য পুরো দল নিয়ে এসেছি। সিনিয়ররা দারুণ সাহায্য করছে। সাহস দিচ্ছে, প্রেরণা জোগাচ্ছে। আমার মনে হয় দারুণ কিছু হবে কাতারের বিপক্ষে।



মন্তব্য