kalerkantho


ফুটবলারদের প্রস্তুতি

থাইল্যান্ডকে হারানো সম্ভব!

১৬ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



থাইল্যান্ডকে হারানো সম্ভব!

প্রতিপক্ষ থাইল্যান্ড ধারে বা ভারে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে। এর পরও আশাবাদী বাংলাদেশ। কারণ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের এই টুর্নামেন্টে সুযোগ রয়েছে তিনজন সিনিয়র খেলোয়াড় নেওয়ার।

 

 

 

হাজারো দ্বীপ মিলে ইন্দোনেশিয়া। কিছু দ্বীপ দুর্গম। একেবারে মানুষ বাসের অনুপযুক্ত। কিছু দ্বীপ আর স্থাপনা আবার ছবির মতো সুন্দর। এর অন্যতম শিল্পীর আঁকা ছবির মতো পশ্চিম জাভার পাকান সারি স্টেডিয়াম। এত সুন্দর স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ফুটবল দলের শুরুটা হয়েছে ভুলে যাওয়ার মতো। উজবেকিস্তানের বিপক্ষে ০-৩ গোলে বিধ্বস্ত রীতিমতো। লড়াই-ই করতে পারেনি জেমি ডের শিষ্যরা। আজ একই স্টেডিয়ামে ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ বাংলাদেশি ফুটবলারদের। হেরে গেলে টুর্নামেন্টটা হয়ে পড়বে আনুষ্ঠানিকতা। ম্যাচটি তাই টিকে থাকারও।

প্রতিপক্ষ থাইল্যান্ড ধারে বা ভারে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে। এর পরও আশাবাদী বাংলাদেশ। কারণ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের এই টুর্নামেন্টে সুযোগ রয়েছে তিনজন সিনিয়র খেলোয়াড় নেওয়ার। সব দল নিয়েছেও, ব্যতিক্রম থাইল্যান্ড। সাবেক খেলোয়াড় ও বর্তমান কোচ উরাউট শ্রীমাকা দল গড়েছেন শুধু ২৩ বছরের যুবাদের নিয়ে। এই দল শেষ মুহূর্তের গোলে প্রথম ম্যাচে ড্র করেছে কাতারের সঙ্গে। তাতে আত্মবিশ্বাস বাড়ার কথা। কোচ বলছেনও সেটা, ‘আমার দলের ছেলেদের ভয়ডরহীন খেলতে বলেছি। ফল যা-ই হোক কিছু যায় আসে না। ওরা শুধু সাহসী ফুটবল খেলুক।’

বাংলাদেশও এশিয়ান গেমসে এসেছে ভালো ফুটবল খেলতে। আর এসএ গেমসে একটা চোখ রেখে। ফুটবলে জেমি ডের দল নকআউটে যাবে এমন আশা নেই কারো। তবে অন্তত একটি জয় চাওয়া বাড়াবাড়ি কিছু নয়। গত এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ জিতেছিল আফগানিস্তানের বিপক্ষে। তাহলে এবার একটি জয় আশা করা যাবে না কেন? বিশেষ করে দল যেখানে প্রস্তুতি নিয়ে এসেছে কাতার ও দক্ষিণ কোরিয়ায়। দলের সঙ্গে থাকা সিনিয়র খেলোয়াড় মামুনুল ইসলাম আশাবাদী অন্তত এই ম্যাচটি ভালো খেলা নিয়ে। গতকাল জাকার্তা থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে পাতেজা জারন স্টেডিয়াম গা ঘামিয়েছেন ফুটবলাররা। সেখানেই ভালো করার ব্যাপারে আশাবাদী মামুনুল বললেন, ‘এই দলটি প্রথম ম্যাচে পারেনি। তাই বলে ওরা খারাপও হয়ে যায়নি। উজবেকিস্তান আমাদের চেয়ে অনেক এগিয়ে থাকা দল। থাইল্যান্ডও বেশ এগিয়ে। তবে ওরা খেলছে একেবারে অনূর্ধ্ব-২৩ দল নিয়ে। তাদের বিপক্ষে অন্তত এক ম্যাচ জয়ের সেরা সুযোগ এটা। বাংলাদেশ জিতবে কি না জানি না, তবে বলতে পারি ভালো খেলবে নিঃসন্দেহে।’

এশিয়া কাপের এবারের স্লোগান ‘এনার্জি অব এশিয়া’। জাকার্তাজুড়ে ব্যানার-ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে স্লোগানটা। এর পরও দলের ‘এনার্জি’ বাঁচিয়ে রাখতে গতকাল সেরা একাদশের খেলোয়াদের বল পায়ে অনুশীলনে নামাননি কোচ জেমি ডে। সুইমিংপুলে একটি সেশন কাটিয়েছেন তাঁরা। অনুশীলন করেছেন শুধু প্রথম ম্যাচে সুযোগ না পাওয়া খেলোয়াড়রা। সেখানে আসেননি কোচ জেমি ডে-ও। এসএ গেমসের প্রস্তুতিতে বড় একটা বহর দলের সঙ্গে জাকার্তা আসায় তাঁদেরই পাঠানো হয় মাঠে। ৪-২-৩-১ ছকে প্রথম ম্যাচ খেলা বাংলাদেশ আজও একইভাবে খেলবে বলে জানালেন মামুনুল, ‘ইংলিশ কোচ আমাদের এই ছকে অভ্যস্ত করে তোলার চেষ্টা করছেন। উজবেকিস্তানের সঙ্গে এটা কাজে লাগেনি শারীরিক শক্তি ও টেকনিকে ওরা অনেক এগিয়ে থাকায়। তবে থাইল্যান্ডের বিপক্ষে এটা কাজ করবে হয়তো।’

ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপুও আশাবাদী ভালো খেলা নিয়ে। জয়ের নিশ্চয়তা না দিলেও লজ্জার হারে মাঠ ছাড়তে হবে না বলে জানালেন রুপু, ‘দলটি অনেক দিন একসঙ্গে অনুশীলন করছে। প্রথম ম্যাচে ফল ভালো হয়নি। একটি ম্যাচ খারাপ হতেই পারে। আমার বিশ্বাস থাইল্যান্ডের বিপক্ষে আমরা ভালো খেলব।’ বিশ্বাসের উৎসটা কী? ‘থাইল্যান্ড-কাতারের ম্যাচটি দেখেছি। থাইল্যান্ড রক্ষণাত্মক খেলেছিল। ওদের ২৩ বছর বয়সী ছেলেরা গুটিয়ে ছিল। এটা আমরা কাজে লাগাতেই পারি।’

ফিফা র‍্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ ১৯৪ আর থাইল্যান্ড আছে ১১২ নম্বরে। জাতীয় দলের ম্যাচে মুখোমুখি লড়াইয়ে ১৪ ম্যাচে থাইল্যান্ডের জয় ৯ আর বাংলাদেশের ২টি। সবশেষ ম্যাচেও বাংলাদেশ বিধ্বস্ত ০-৫ গোলে। এর পরও অনূর্ধ্ব-২৩ দল নিয়ে আসা থাই যুবাদের চেয়ে ভালো খেলার আশা টিম লিডার শওকত আলী খান জাহাঙ্গীরের, ‘প্রথম ম্যাচের হারটা পাশে রেখে বলতে পারি আমাদের দল উন্নতির ধারায় আছে। থাইল্যান্ডের বিপক্ষে সেটা দেখবেন আপনারা।’

এসএ গেমসের জন্যই বাংলাদেশ এসেছে বিশাল বহর নিয়ে। টুর্নামেন্ট খেলতে না পারলেও এসএ গেমসে খেলবেন এমন খেলোয়াড়রা এখন জাকার্তায়। আছেন তিন তিনজন কোচ, ফিজিও, টিম লিডারও। তবে নেই একজন অফিশিয়াল ডাক্তার! কোনো খেলোয়াড় ইনজুরিতে পড়লে চিকিৎসা দেবেন কে? প্রশ্নটা করতেই বিব্রত টিম লিডার শওকত আলী খান জাহাঙ্গীর, ‘অবশ্যই একজন ডাক্তারের আসা উচিত ছিল। এসএ গেমসে নিশ্চিতভাবে ডাক্তার থাকবেন দলের সঙ্গে।’ মানে ভুল থেকে শিক্ষা নিতে চান কর্তারা। এভাবে আগের ম্যাচের ভুলগুলো আজ খেলোয়াড়রা কাটাতে পারলেই হয়। অন্তত একটি জয় নিয়ে ফেরার সান্ত্বনা থাকবে তাতে।



মন্তব্য