kalerkantho


আশায় আছেন গলফাররাও

১৪ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



আশায় আছেন গলফাররাও

ছবি : মীর ফরিদ

এশিয়ান গেমসে ব্যক্তিগত ইভেন্টে শুধু একটিই রুপা জিতেছে বাংলাদেশ। এবার সেই খরা কাটাতে ১৪ ইভেন্টে জাকার্তা যাচ্ছেন ১১৭ অ্যাথলেট। কঠিন হলেও শ্যুটিং, কাবাডি আর আর্চারিতে পদক জেতার স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন। চমকে দিতে পারে গলফও। সেই সম্ভাবনা নিয়ে এই ধারাবাহিক। আজ শেষ পর্বে থাকছে গলফ। লিখেছেন রাহেনুর ইসলাম

 

ছয় বছরে বদলে গেছে জীবনের ছবিটা। বলবয় হয়ে শফিক বাগা আসতেন কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে। গলফ ক্লাবে (স্টিক) হাত দেওয়ার শুরুও তখন থেকে। ধীরে ধীরে নেশায় পরিণত হলো গলফ। পেশাদারদের মতো না হলেও শট নিচ্ছিলেন ভালো। ধীরে ধীরে গলফে হাতেখড়ি হওয়া সেই শফিক বাগা এখন জাতীয় দলের অন্যতম খেলোয়াড়। এশিয়ান গেমসে অংশ নিতে লাল-সবুজের প্রতিনিধি হয়ে যাচ্ছেন জাকার্তায়। নিতে চান দেশের ভারও, ‘সব কিছু খুব দ্রুত বদলাতে শুরু করেছে। বলবয় হয়ে শুরু। সেখান থেকে জাতীয় দলে। এবার যাচ্ছি এশিয়ান গেমসেও। বাংলাদেশের মান রাখতে চাই আমি।’

জাকার্তায় গলফে অংশ নিচ্ছেন ছয়জন। ছেলেদের বিভাগে রয়েছেন শাহাবউদ্দিন, সম্রাট শিকদার, শফিক বাগা ও মোহাম্মদ ফরহাদ। মেয়েদের বিভাগে সোনিয়া আখতার ও লিজা আখতার। ছেলে ও মেয়েদের ব্যক্তিগত আর দলগত ইভেন্টে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশ। প্রথম রাউন্ড শুরু ২৩ আগস্ট। চার দিনের এ খেলার শেষ দিন ২৬ আগস্ট। কেমন করবে বাংলাদেশ? বাংলাদেশ পেশাদার গলফ অ্যাসোসিয়শনের মহাসচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জি এম কামরুল ইসলাম আশাবাদী, ‘ওরা কুর্মিটোলায় ভালো করছে। এখানে ভালো করার অর্থ এই নয় যে জাকার্তায় পদক জিতে যাবে। আমি বলতে চাচ্ছি অনুশীলনে যখন ভালো করছে, তখন এশিয়ান গেমসে হতাশায় ডোবাবে না দলকে।’

গত এশিয়ান গেমসে দলগত ইভেন্টে অংশ নিয়েছিলেন সজীব আলী, মোহাম্মদ ইসমাইল, মোহাম্মদ নাজিম ও মোহাম্মদ সাগর। ১৯ দেশের মধ্যে বাংলাদেশ হয়েছিল দশম। চারজনের মিলিত স্কোর ১২ ওভার, অর্থাৎ নির্ধারিত শটের চেয়ে ১২টি বেশি। এ ইভেন্টে প্রথম হওয়া চাইনিজ তাইপে দলের স্কোর ৪৫ আন্ডার পার! মানে নির্ধারিত শটের চেয়ে ৪৫টা কম। বাংলাদেশ আর চাইনিজ তাইপের ব্যবধান স্পষ্ট এমন স্কোরেই।

ব্যক্তিগত ইভেন্টে সোনা জিতেছিলেন চাইনিজ তাইপের পেন চুং সুন। তাঁর স্কোর ১৭ আন্ডার পার। বাংলাদেশি গলফারদের মধ্যে এ ইভেন্টে সেরা পারফরম্যান্স সজীব আলীর। তিনি হয়েছিলেন যৌথভাবে ২২তম, স্কোর ২ আন্ডার পার। মোহাম্মদ ইসমাইল ৩৯ আর মোহাম্মদ সাগর হয়েছিলেন ৫৩। মেয়েদের বিভাগে অংশ নেননি কেউ। সবচেয়ে ভালো করা সজীব আলী পেশাদার হয়ে গেছেন এখন। এশিয়ান গেমস অ্যামেচারদের দলে অংশ নিতে পারছেন না জাকার্তায়।

সজীব আলীর মতো এবারের দলের সেরা পারফরমার হতে পারেন শফিক বাগা। গত কিছুদিন তাঁর ফর্মও দুর্দান্ত। এ বছর জানুয়ারিতে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হয়েছিল ‘ওরিয়ন গ্রুপ গলফ চ্যাম্পিয়নশিপ’। সাতটি দেশের গলফারদের এ টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন শফিক। গত বছর ইরানের একটি টুর্নামেন্টে হয়েছিলেন রানার্স-আপ। জাকার্তায়ও আশাবাদী শফিক, ‘ভালো ফর্মে আছি আমি। এশিয়ান গেমস নিয়ে অনুশীলন চলছে নিয়মিত। কুর্মিটোলায় যেভাবে খেলছি জাকার্তায় সেটা পারলে অনেক দূর যাওয়ার আশা করছি।’

এশিয়ান গেমসে নারী দল অংশ নিচ্ছে এবারই প্রথম। বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে যাচ্ছেন সোনিয়া আখতার ও লিজা আখতার। লিজা গলফ পরিবারেরই মেয়ে। তাঁর বাবা সিকান্দার দেওয়ান অনেক দিন ধরে রয়েছেন গলফের সঙ্গে। বাবাকে দেখে কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে নাম লেখানো লিজা হাঁটি হাঁটি পা পা করে এখন জাতীয় দলে। ২০১৩ সালে লন্ডনের ব্রিটিশ ওপেন আর চীনের একটি টুর্নামেন্টে অংশ নেন লিজা। কাট পেয়েছিলেন দুটিতেই। কাট পাওয়ার অর্থ চার দিনের টুর্নামেন্টে শেষ দুই দিন খেলার ছাড়পত্র। এমন পারফরম্যান্স করে জাতীয় দলে আসা লিজা স্মরণীয় করতে চান জীবনের প্রথম এশিয়ান গেমস।



মন্তব্য