kalerkantho



শ্যুটিংয়ে চমকে দেওয়ার আশা

১১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



শ্যুটিংয়ে চমকে দেওয়ার আশা

এশিয়ান গেমসে ব্যক্তিগত ইভেন্টে শুধু একটিই রুপা জিতেছে বাংলাদেশ। এবার সেই খরা কাটাতে ১৪ ইভেন্টে জাকার্তা যাচ্ছেন ১১৭ অ্যাথলেট। কঠিন হলেও শ্যুটিং, কাবাডি আর আর্চারিতে পদক জেতার স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনও। সেই সম্ভাবনা নিয়ে এ ধারাবাহিক। আজ থাকছে শ্যুটিং। লিখেছেন রাহেনুর ইসলাম

 

১৮ আগস্ট গেমস উদ্বোধনের পরদিনই শুরু হয়ে যাবে শ্যুটিং। আনুষ্ঠানিকভাবে পতাকা না থাকলেও পুরো এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের পতাকার গৌরব বাড়ানোর প্রত্যাশা সবচেয়ে বেশি এ ইভেন্টে। কারণ শ্যুটিং এগিয়ে চলেছে অলিম্পিকে পদক জয়ের লক্ষ্যে। গত কমনওয়েলথ গেমসে দুটি রুপা জিতে প্রত্যাশাও বাড়িয়েছেন আবদুল্লাহ হেল বাকি ও শাকিল আহমেদ। দুজনই আশাবাদী এশিয়াডেতে ভালো কিছু করার। শাকিলের স্বপ্নের ভিত অনুশীলনের ভালো স্কোর, ‘কোরিয়া, জাপান, চীনের শ্যুটারদের স্কোর জানি আমরা। অনুশীলনে তাদের সমান স্কোর হচ্ছে আমাদেরও। এখন শ্যুটিং রেঞ্জে সেটা করতে পারলে পদক জয়ের আশা করাটা বাড়াবাড়ি নয়।’

 

গত এশিয়ান গেমসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পতাকা ছিল আবদুল্লাহ হেল বাকির হাতে। এবারও সেই সম্মান পেতে পারতেন বাকি কিংবা শ্যুটার শাকিল আহমেদ। গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে রুপা জিতে বাংলাদেশকে গর্বিত করেছেন দুজনই। কিন্তু পতাকা থাকছে ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তারের হাতে। এশিয়ান গেমসে পদকের সবচেয়ে বেশি সম্ভাবনা শ্যুটিংয়ে থাকলেও কোনো শ্যুটারের হাতে পতাকা দেওয়ার উপায়ই নেই। কারণ শ্যুটিং শুরু হবে গেমসের প্রধান ভেন্যু জাকার্তা থেকে প্রায় ৭০০ কিলোমিটার দূরের শহর পালেম্বাংয়ে। আর ১৮ আগস্ট গেমস উদ্বোধনের পরদিনই শুরু হয়ে যাবে শ্যুটিং।

আনুষ্ঠানিকভাবে পতাকা না থাকলেও পুরো এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশের পতাকার গৌরব বাড়ানোর প্রত্যাশা সবচেয়ে বেশি এ ইভেন্টে। কারণ শ্যুটিং এগিয়ে চলেছে অলিম্পিকে পদক জয়ের লক্ষ্যে। গত কমনওয়েলথ গেমসে দুটি রুপা জিতে প্রত্যাশাও বাড়িয়েছেন আবদুল্লাহ হেল বাকি ও শাকিল আহমেদ। দুজনই আশাবাদী এশিয়াডেতে ভালো কিছু করার। শাকিলের স্বপ্নের ভিত অনুশীলনের ভালো স্কোর, ‘কোরিয়া, জাপান, চীনের শ্যুটারদের স্কোর জানি আমরা। অনুশীলনে তাদের সমান স্কোর হচ্ছে আমাদেরও। এখন শ্যুটিং রেঞ্জে সেটা করতে পারলে পদক জয়ের আশা করাটা বাড়াবাড়ি নয়।’ আবদুল্লাহ হেল বাকির কণ্ঠেও একই সুর, ‘এবার দেখবেন শ্যুটিংয়ে কেউ না কেউ বিশেষ কিছু করে বসবে। অনুশীলনে সবাই ভালো করছে। প্রথম লক্ষ্য অবশ্যই ফাইনাল। এরপর নির্দিষ্ট দিনে ঠিকঠাক স্কোর করতে পারলে পদকের আশা করাই যায়।’

শ্যুটিংয়ে এত আশাবাদী হওয়ার কারণ অলিম্পিক ঘিরে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা। কোরিয়ান কোচদের রাখার রেওয়াজ ভেঙে বিশ্বমানের দুই কোচ আনা হয় এ জন্য। টোকিও অলিম্পিক পর্যন্ত চুক্তি করা হয়েছে ডেনিশ রাইফেল কোচ ক্লাভস ক্রিস্টেনসেনের সঙ্গে। আর মন্টেনেগ্রোর পিস্তল কোচ মার্কো সকিচ ছিলেন দুই বছর। তাঁর অধীন শাকিল ৫০ মিটার এয়ার পিস্তলে গোল্ড কোস্টে রুপা জিতলেও চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়নি আর। ফিরিয়ে আনা হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ান কোচ কিম কালাইয়াংকে। বাংলাদেশের হয়ে আগেও কাজ করেছেন তিনি। এশিয়ান গেমসের আগে কোচ বদল নিয়ে অবশ্য আক্ষেপ নেই শাকিলের, ‘এটা ফেডারেশনের ব্যাপার। আমাদের লক্ষ্য নিয়মিত আন্তর্জাতিক মান ধরে রেখে অনুশীলন করে যাওয়া। সেটা করছিও। স্কোরও বাড়ছে। তাই আশাবাদী আমরা।’

শ্যুটিংয়ের বদলে যাওয়ার নেপথ্যে ফেডারেশনের মহাসচিব ইন্তেখাবুল হামিদ। ২০২০ অলিম্পিক সামনে রেখে বিদেশি কোচের অধীন শ্যুটারদের অনুশীলনের ওপর রেখেছেন তিনি। ওয়াইল্ড কার্ড না থাকলে যেখানে অলিম্পিকে অংশ নেওয়া হতো না, সেখানে ক্রীড়াঙ্গনের সবচেয়ে বড় এ আসরে পদক জেতার স্বপ্ন দেখতেও সাহস লাগে। সেই সাহসটা ইন্তেখাবুল হামিদ দেখেছেন বলে ২৮ বছর পর কমনওয়েলথ গেমসে পিস্তল ইভেন্টে নিশানা খুঁজে পেয়েছেন শ্যুটাররা। তবে খেলোয়াড়দের মতো এশিয়ান গেমসে পদক জেতার স্বপ্ন দেখাচ্ছেন না ইন্তেখাবুল হামিদ। তাঁর লক্ষ্য আপাতত ফাইনাল, ‘এশিয়ান গেমস অলিম্পিকের পর সবচেয়ে মর্যাদার ও প্রতিদ্বন্দ্বিতার আসর। সেরা আটে থেকে ফাইনাল খেলা লক্ষ্য আমাদের। আশা করছি শ্যুটারদের কেউ না কেউ নিশ্চয়ই ফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছবে।’

এশিয়ান গেমসে অংশ নিচ্ছেন বাংলাদেশের ১৬ শ্যুটার। ছেলে ৯ আর নারী সাতজন। ১০ মিটার এয়ার রাইফেল মিশ্র দলে রয়েছেন অর্ণব শারা ও সৈয়দা আতকিয়া হাসান। ১০ মিটার এয়ার পিস্তল মিশ্র দলে নুর হাসান আলীফ ও আরদিনা ফেরদৌস। ছেলেদের ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে আবদুল্লাহ হেল বাকি ও রিসাতুল ইসলাম। মেয়েদের ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে আছেন উম্মে জাকিয়া সুলতানা আর শারমিন আখতার রত্না। গত জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে ১০ মিটার এয়ার রাইফেলে রুপা ও ৫০ মিটার থ্রি পজিশন ইভেন্টে সোনা জেতা রত্নাকে জাতীয় দলে ফেরানো হয়েছে তিন বছর পর। ছেলেদের ১০ মিটার পিস্তলে শাকিল আহমেদ, পিয়াস হোসেন আর ৫০ মিটার রাইফেল থ্রি পজিশনে খেলবেন রবিউল ইসলাম ও শোভন চৌধুরী। মেয়েদের ৫০ মিটার রাইফেল থ্রি পজিশনে সুরাইয়া আখতার, শারমিন শিল্পা, ১০ মিটার এয়ার পিস্তলে আরদিনা ফেরদৌস, আরমিন আশা আর স্কিট ম্যানে খেলছেন এস এম সাব্বির হাসান। বিওএ মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা আশাবাদী শ্যুটারদের নিয়ে, ‘নিজেদের উদ্যোগে টানা অনুশীলন করছে শ্যুটাররা। সেই ফল ওরা এশিয়ান গেমসে পাবে বলে আশাবাদী আমি।’



মন্তব্য