kalerkantho


পিএসজিতেই থাকছেন নেইমার

২১ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



পিএসজিতেই থাকছেন নেইমার

রোনালদোর কোনো উত্তরসূরি ঠিক না করেই তাঁকে জুভেন্টাসে যেতে দেওয়া, বিশ্বকাপের পর কোনো ফুটবলারকে নিয়ে রিয়ালের পড়িমড়ি করে না ঝাঁপানো—সব কিছুই যেন আচমকা কোনো ঝড়ের ইঙ্গিত। হঠাৎ একদিন নেইমারকে দেখা যাবে না তো মাদ্রিদে? ব্রাজিলিয়ান এই তারকা নিজেই আশ্বস্ত করে বললেন, ‘আমি থাকছি, আমি প্যারিসেই থাকছি, আমার তো একটা চুক্তি আছে।’

 

 

গত কয়েক দিনে বেশ কয়েকবার রিয়াল মাদ্রিদ কর্তৃপক্ষকে ওয়েবসাইটে ঘোষণা দিয়ে জানাতে হয়েছে যে তারা নেইমারকে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে নিয়ে আসতে প্যারিস সেন্ত জার্মেই কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দেনদরবার করছে না। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর মাদ্রিদ ছাড়ার পর, একজন তারকা ফুটবলারকে তাঁর জায়গায় দলে নিতে চাইবে রিয়াল; অন্তত অতীতে এমনটাই তো হয়ে আসত! কিন্তু রোনালদোর কোনো উত্তরসূরি ঠিক না করেই তাঁকে জুভেন্টাসে যেতে দেওয়া, বিশ্বকাপের পর কোনো ফুটবলারকে নিয়ে রিয়ালের পড়িমড়ি করে না ঝাঁপানো—সব কিছুই যেন আচমকা কোনো ঝড়ের ইঙ্গিত। হঠাৎ একদিন নেইমারকে দেখা যাবে না তো মাদ্রিদে? ব্রাজিলিয়ান এই তারকা নিজেই আশ্বস্ত করে বললেন, ‘আমি থাকছি, আমি প্যারিসেই থাকছি, আমার তো একটা চুক্তি আছে।’

নেইমারের পিএসজি ছেড়ে রিয়ালে যোগ দেওয়া নিয়ে এত কথা গত সপ্তাহে এসেছে গণমাধ্যমে যে রিয়াল কর্তৃপক্ষ বাধ্য হয়েছে লিখিত বিবৃতি দিতে! তাতে লেখা ছিল, ‘নেইমারকে রিয়ালের সঙ্গে জড়িয়ে ক্রমাগত যেসব প্রতিবেদন প্রকাশিত হচ্ছে, এর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা আমাদের অবস্থান স্পষ্ট করে বলতে চাই যে নেইমারকে সই করানোর কোনো ইচ্ছা আমাদের নেই। দুটি ক্লাবের ভেতর চমৎকার সুসম্পর্ক বিদ্যমান। রিয়াল যদি পিএসজির কোনো খেলোয়াড়কে চায়, তাহলে শুরুতেই ক্লাব কর্তৃপক্ষকে জানাবে।’ যদিও ব্রিটিশ গণমাধ্যম ক্রমাগত ধারণা প্রকাশ করেই যাচ্ছে যে নেইমারকে বিক্রি করে দেওয়ার ব্যাপারে অনড় অবস্থানে নেই পিএসজি। রিয়াল প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজও সম্প্রতি আভাস দিয়েছেন শীর্ষস্থানীয় কাউকেই দলে আনার, ‘রিয়ালের দারুণ একটা দল আছে, অসাধারণ সব ফুটবলার এনে দলের শক্তি আরো বাড়ানো হবে। প্রতি মৌসুমে দলের মধ্যে কী চাহিদা তৈরি হয়, সেটা আমরা জানি। আমরা রিয়াল মাদ্রিদ, আমরা সব সময় আরো বেশি চাই। আমাদের বর্তমানকে শক্তিশালী করতে হবে আর ভবিষ্যেক সুরক্ষিত।’

নেইমারের ব্যাপারে কোনো সুসংবাদ শোনাতে পারেননি পেরেজ, তবে নেইমারের পরবর্তী প্রজন্মে ব্রাজিলের সবচেয়ে প্রতিভাবান ফুটবলারটিকে রিয়াল নিজেদের করে নিয়েছিল আগেই। গতকাল সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে পরিচিতি অনুষ্ঠান ছিল ভিনাসিয়াস জুনিয়রের। তরুণ এই ব্রাজিলিয়ানকে দলে পেতে আগ্রহী ছিল বার্সেলোনাও। তাই তো ৪৫ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে বছরখানেক আগেই তাঁকে নিশ্চিত করেছিল রিয়াল। এরপর আগের ক্লাব ফ্ল্যামেঙ্গোতোই রেখে দিয়েছিল বয়সটা ১৮ হওয়ার আগ পর্যন্ত। প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পরই ভিনাসিয়াস এলেন ইউরোপে। তাঁকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার দিনে পেরেজ জানালেন, ‘সে এমন একজন ফুটবলার, যে আমাদের ভবিষ্যৎ গড়ে দেবে। তবে একই সঙ্গে সে বর্তমানেরও। তার বয়স মাত্র ১৮ হলো, এরই মধ্যে তাকে ব্রাজিল ও বিশ্ব ফুটবলের আগামীর প্রত্যাশা মনে করা হচ্ছে।’ ভিনাসিয়াসও বললেন, ‘রিয়াল মাদ্রিদ হচ্ছে ফুটবলের শীর্ষবিন্দু। একজন ফুটবলারের সম্ভাব্য সেরা সুযোগটা আমি পেয়েছি। এখন আমাকে অনেক ত্যাগের বিনিময়ে এই সুযোগটা কাজে লাগাতে হবে।’

এ ছাড়া জোরালো গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে বেশ কয়েকজনের বায়ার্ন মিউনিখ ছাড়ার। রোনালদোর বিদায়ে রিয়ালে ফিরে এসে একাদশে নিয়মিত হতে চাইছেন হামেস রোদ্রিগেস, এ তো পুরনো খবর। কিংসলে কোম্যানও নাকি বায়ার্ন থেকে চলে আসছেন আর্সেনালে। বায়ার্ন থেকে আর্তুরো ভিদালের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে আসার গুঞ্জনটাও জোরালো। ইতালি দলে যাঁকে জিয়ানলুইগি বুফনের উত্তরসূরি মনে করা হচ্ছে, সেই জিয়ানলুইগি দনারুমাও নাকি চলে আসছেন চেলসিতে! ক্লাব ওয়েবসাইট, এএফপি



মন্তব্য