kalerkantho


রিয়ালে তারুণ্যের হাওয়া

১৯ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



রিয়ালে তারুণ্যের হাওয়া

রিয়াল মাদ্রিদ মানেই নক্ষত্রপুঞ্জ! বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়টিকে যেকোনো মূল্যেই হোক, চাই-ই চাই সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। মাদ্রিদের অভিজাতদের খেলোয়াড় তালিকা মানেই বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের ছড়াছড়ি, যে দলের সাইড বেঞ্চে থাকা ফুটবলারদেরও পেলে বর্তে যেত লা লিগার অন্য অনেক ক্লাব। এই দর্শন থেকে খুব সম্ভবত সরে আসছেন ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে যাওয়ার পর, তাঁর শূন্যস্থান পূরণে টাকার ঝুলি নিয়েই মাঠে নেমে পড়ার কথা তাঁর। কিন্তু তেমন কোনো তৎপরতা পড়ছে না চোখে। বরং কাল, সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে রিয়ালের নতুন যে খেলোয়াড়টিকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হলো, তাঁর নাম আলভারো অদ্রিওজোলা। ইউলেন লোপেতেগুই রাশিয়া বিশ্বকাপের স্পেন দলে রেখেছিলেন তাঁকে, শেষ পর্যন্ত দায়িত্বে থাকলে হয়তো নামাতেন মাঠে। রিয়ালের কোচ হওয়ার খবর ফাঁস হওয়ার ঘটনায় চাকরি হারালেন লোপেতেগুই, তাঁর জায়গায় কোচ হওয়া ফার্নান্দো হিয়েরো বোধ হয় খুব একটা ভরসা পাননি ২২ বছরের এই ডিফেন্ডারকে মাঠে নামাতে। রিয়ালের কোচ হয়ে এসে লোপেতেগুই বার্নাব্যুতে নিয়ে এলেন এই রাইটব্যাককে। রিয়াল সোসিয়েদাদ থেকে তাঁকে দলে আনতে রিয়ালের খরচা ৩০ মিলিয়ন ইউরো, সঙ্গে পারফরম্যান্স অনুযায়ী বোনাস আরো পাঁচ মিলিয়ন। প্রাথমিকভাবে চুক্তিটা ছয় বছরের।

বিশ্বকাপের মাঝেই ইউক্রেনের ক্লাব জোরিয়া লুহানস্ক থেকে ১৯ বছর বয়সী গোলরক্ষক আন্দ্রেই লুনিনকে সই করায় রিয়াল। ইউক্রেনের লিগে ৫১ ম্যাচের ২০টিতে ক্লিনশিট রাখা ১.৯১ মিটার উচ্চতার এই গোলরক্ষকের সঙ্গে ছয় বছরের চুক্তি করে রিয়াল, তাঁকে আনতে খরচ হয়েছে ৮.৫ মিলিয়ন ইউরো আর সঙ্গে পাঁচ মিলিয়ন পাউন্ডের শর্তভিত্তিক পাওনা। ৩৫ মিলিয়ন ইউরোতে চেলসি থেকে গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়াকেও নিয়ে আসছে রিয়াল। অন্যদিকে দলের তরুণ স্প্যানিশ মিডফিল্ডার দানি সেবোইয়াস ও মার্কোস ইয়োরেন্তের জন্য আসা সব প্রস্তাবই ফিরিয়ে দিচ্ছেন লোপেতেগুই।

তরুণ খেলোয়াড়দের সুযোগ দেওয়ার পক্ষে ছিলেন জিদান। লোপেতেগুই এই নীতির আরো জোরালো সমর্থক। ১২ জুলাই ১৮তম জন্মদিন পালন করেছেন ভিনিসিয়াস, ফ্ল্যামেঙ্গো থেকে এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডকে কেনার পর ২০১৮-র জুলাই পর্যন্ত তাঁকে ফ্ল্যামেঙ্গোতেই ধারে রেখে দেয় রিয়াল। বিশ্বের অন্যতম সেরা তরুণ প্রতিভাবান ফুটবলার মনে করা হয় তাঁকে। সেই ভিনিসিয়াসকে এখন থেকে চাইলে মূল দলেই খেলাতে পারবেন লোপেতেগুই। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে ১৮ মাসের ধারে মার্টিন ওডেগার্ডকে ডাচ ক্লাব হিরেনভিনে পাঠিয়েছিল রিয়াল, সেখান থেকে তরুণ এই নরওয়েজিয়ান অ্যাটাকিং মিডফিল্ডারও ফিরছেন মাদ্রিদে।

করিম বেনজিমার দিন বোধ হয় ফুরোচ্ছে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে। ফরাসি দলে ব্রাত্য এই স্ট্রাইকার রিয়াল মাদ্রিদে নিয়মিতই শুরুর একাদশে ছিলেন, যদিও গত দুই মৌসুমে তাঁর পা থেকে গোলের দেখা কমই পেয়েছে মাদ্রিদিস্তারা। নাপোলিও চাইছে বেনজিমাকে, এমনটাই খবর বেশ কিছু স্প্যানিশ গণমাধ্যমে। তাঁকে পেতে ৪০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাবও আছে নাপোলি থেকে। অন্যদিকে লোপেতেগুইও চাইছেন না বেনজিমাকে একাদশে রাখতে, তাঁর পছন্দ ভ্যালেন্সিয়ার রদরিগো মোরেনোকে। সব শেষ মৌসুমে ৩৭ ম্যাচে ১৬ গোল করা রদরিগোর বয়স ২৭, তাঁকে রিয়ালে আনতে আগ্রহী লোপেতেগুই নিজেই। বিশ্বকাপের উদ্বোধনী দিনে সান্তোসের তরুণ প্রতিভা রদরিগো গোসেকে চুক্তিবদ্ধ করেছে রিয়াল। আগামী বছর রদরিগো যোগ দেবেন রিয়ালে, তাঁর জন্য ৪৫ মিলিয়ন ইউরো দিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। রোনালদোর ছায়া হিসেবে মনে করা হচ্ছে অস্কার রদ্রিগেসকে। রিয়াল মাদ্রিদের যুবদলের এই উঠতি তারকার সঙ্গেও প্রথম পেশাদার চুক্তি করে ফেলেছে রিয়াল। ম্যানচেস্টার সিটি, মোনাকো ও বায়ার্ন মিউনিখ আগ্রহী ছিল তাঁকে নিয়ে, কিন্তু রিয়াল তাঁকে চুক্তিবদ্ধ করে ফেলেছে ২০২১ সাল পর্যন্ত। তবে এই তারুণ্যের মিছিলেও রিয়াল আশরাফ হাকিমিকে দুই বছরের জন্য ধারে পাঠিয়েছে ডর্টমুন্ডে। একই সঙ্গে তারা ধারে বায়ার্ন মিউনিখে পাঠানো হামেস রোদ্রিগেসকেও ফিরিয়ে আনার তোড়জোর শুরু করেছে। জার্মান ক্লাবে হামেসের মেয়াদ আরো ১২ মাস থাকলেও তাঁর এজেন্ট হোর্হে মেন্দেস দেনদরবার শুরু করেছেন রোনালদো পরবর্তী রিয়ালে হামেসের জায়গাটা ফিরিয়ে আনার। এই মাসের প্রথম দিনে ফ্রি ট্রান্সফারে লিওন গোরেত্জকা শালকে থেকে চলে এসেছেন বায়ার্নে, তাই বায়ার্নও খুব একটা আঁকড়ে রাখতে ইচ্ছুক নয় হামেসকে। টানা তিনবারসহ গত পাঁচ বছরে চারবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতা রিয়াল মাদ্রিদ গত এক দশকে লিগ জিততে পেরেছে মাত্র দুইবার, সব শেষ মৌসুমে রিয়াল লা লিগায় হয়েছে তৃতীয়। তা ছাড়া গত ১০ বছরে মাত্র একজন স্প্যানিশ কোচ নিয়োগ দিয়েছিল রিয়াল, রাফায়েল বেনিতেজের মাস ছয়েকের বার্নাব্যু-বাসের অভিজ্ঞতা রীতিমতো দুঃসহ! তাই হয়তো এবার স্প্যানিশ কোচ ও স্প্যানিশ ফুটবলারদের নিয়ে নতুন করে তারুণ্যের হাওয়াতেই পাল ওড়াতে চাইছে রিয়াল। মার্কা, এএস, ক্লাব ওয়েবসাইট



মন্তব্য