kalerkantho


জুভেন্টাসেও ইতিহাস গড়তে চান রোনালদো

১৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



জুভেন্টাসেও ইতিহাস গড়তে চান রোনালদো

সেই একই রকম স্যুট-টাই পরা রোনালদো, সাংবাদিকদের সামনে হাস্যোজ্জ্বল, পেছনে রিয়াল মাদ্রিদের বদলে শুধু জুভেন্টাস ক্লাবের লোগো। ইতালিয়ান ক্লাবটিতে যোগ দেওয়ার পর পরশুই আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করেছেন তিনি। জানিয়েছেন রিয়াল ছাড়ার কারণ, নতুন ক্লাবে লক্ষ্য আর ষষ্ঠ ব্যালন ডি’অর জয়ের ইচ্ছার কথাও।

গত চ্যাম্পিয়নস লিগেও ১৫ গোল তাঁর, মৌসুম শেষ করেছেন ৪৪ গোলে। মাত্রই শেষ হওয়া বিশ্বকাপেও স্পেনের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন। সাদা-কালোর এই রোনালদো তবু ক্যারিয়ারের শেষ বেলার। নিজেই যখন বলেন, ‘এই বয়সে খেলোয়াড়রা চীন, কাতারে যায়। আমি তবু জুভেন্টাসের মতো বিশ্বের অন্যতম সেরা এক ক্লাবে এলাম। তারা আমাকে চেয়েছে বলে সত্যিই আমি কৃতজ্ঞ।’—তখন সাম্প্রতিক ফর্ম নয় ভবিষ্যত্টাই চলে আসে সামনে। সেই ভাবনায় রিয়াল মাদ্রিদেও তাঁকে ছাড়া নিয়ে হাহাকার নেই খুব একটা। রোনালদো জানিয়েছেন তিনি নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসেন বলেই ইতালিতে, ‘আমি আমার স্বাচ্ছন্দ্যের জায়গা ছেড়ে এসেছি চ্যালেঞ্জ নিতে ভালোবাসি বলেই। ইতালিয়ান লিগ সত্যিই খুব কঠিন। তবে আমি তৈরি।’ ৩৩ বছর বয়সে খুব বেশি সামনে তাকানোটা কঠিনই। তবে আরো একটা মৌসুম সেরা ফর্মের রোনালদোর পক্ষে বাজি তো ধরাই যায়। জুভেন্টাসে আনুষ্ঠানিক পরিচিতির দিনে সেই আশ্বাসটুকুও ঠিকই ছিল রেনালদোর কথায়, ‘আরো দু-তিনটি ব্যালন ডি’অর জিতব আমি ভাবি না। তবে আর একটা তো জিততেই পারি।’ সেই ১৯৯৬ সালে শেষ চ্যাম্পিয়নস লিগ ঘরে তুলেছে তুরিনের ক্লাবটি। মাঝখানে পেরিয়ে গেছে ২৪ বছর। রোনালদোর সঙ্গে সেই ট্রফিও কি ফিরবে জুভেন্টাসে? পর্তুগিজ তারকার জবাবে নতুন স্বপ্ন দেখতেই পারে তুরিনবাসীরা, ‘হয়তো সেই সৌভাগ্য নিয়েই আমি এসেছি। জুভেন্টস এর আগেও শিরোপা জেতার খুব কাছাকাছি গেছে। কিন্তু ফাইনালে কী হয় কেউই বলতে পারে না। এবারও আমরা সব ট্রফির জন্যই লড়ব নিশ্চিত। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, রিয়াল মাদ্রিদের জুভেন্টাসের ইতিহাসেরও অংশ হতে চাই আমি।’

তাঁর রিয়াল ছাড়ার গুঞ্জন ছিল অনেক দিন ধরে। সম্ভাব্য গন্তব্য হিসেবে যে ক্লবাটির নাম কখনোই শোনা যায়নি সেই জুভেন্টাসেই এখন তিনি। ইতালিয়ান পত্রিকাগুলো কয়েক দিন ধরেই মেতেছে পর্তুগিজ তারকাকে নিয়ে। কোরিয়ার দেললো স্পোর্ত তাদের প্রচ্ছদ করেছে ‘দ্য চ্যাম্পিয়ন’ লিখে। টুট্টো স্পোর্ত লিখেছে ‘জুভেন্টাস সমর্থকরা রোনালদো জ্বরে কাঁপছে।’ আলোচনা হচ্ছে ইতালির ফুটবলই তিনি পাল্টে দেবেন এবার। পর্তুগিজ কোচ হোসে মরিনহোই তো বলেছেন, ‘সিরিএ এখন বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ লিগ হয়ে গেল। ইন্টার, মিলান, রোমাও এখন বদলে যাবে।’ মেইলঅনলাইন



মন্তব্য