kalerkantho



সেই উইম্বলডন থেকে নতুন শুরু

১৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



সেই উইম্বলডন থেকে নতুন শুরু

টানা ২৪ মাস শিরোপা নেই গ্র্যান্ড স্লামে। ইনজুরিতে ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কা। পারিবারিক অশান্তি। হারিয়ে যেতে বসেছিলেন নোভাক জোকোভিচ। কিন্তু তিনি যে যোদ্ধা। এত তাড়াতাড়ি হাল ছাড়লে চলে? জোকোভিচ তাই ফিরে এলেন প্রবলভাবে। উইম্বলডন জিতে জানান দিলেন, হারিয়ে যাননি এখনো। এরই প্রভাব টেনিস র‌্যাংকিংয়ে। সব শেষ প্রকাশিত র‌্যাংকিংয়ে জোকোভিচ এখন ১০ নম্বরে। এগিয়েছেন ১১ ধাপ। গত আট মাস সেরা দশের বাইরে থাকার পর অবারও তিনি সেরাদের কাতারে। উইম্বলডন সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেওয়া রাফায়েল নাদাল ধরে রেখেছেন শীর্ষস্থান। রজার ফেদেরারও রয়েছেন দুইয়ে।

একটা সময় জোকোভিচের কোচ থাকা বরিস বেকার ভীষণ খুশি প্রিয় শিষ্যটির এভাবে ফিরে আসায়। যদিও তিনি আশা করেননি এত তাড়াতাড়ি গ্র্যান্ড স্লাম জিতবেন জোকোভিচ, ‘উইম্বলডনেই বছর দুয়েক আগে পতন শুরু হয়েছিল জোকোভিচের। সেই উইম্বলডন থেকে শুরু হলো নতুন করে। আমি ওর কোচ না থাকলেও দুজনের সম্পর্কটা দারুণ। আমার মনে হয়েছিল জোকোভিচ হয়তো আর গ্র্যান্ড স্লাম জিততে পারবে না। চ্যাম্পিয়ন কিন্তু ফিরে এলো আবারও। দুই বছর আগে ওর যেমন সার্ভিস আর রিটার্ন ছিল, ফিরে এসেছে সেগুলো।’

উইম্বলডন জয়ের পর ঐতিহ্যবাহী ডিনারে হাজির ছিলেন জোকোভিচ ও মেয়েদের একক চ্যাম্পিয়ন অ্যাঞ্জেলিক কেরবার। তাঁর সঙ্গে নেচে অনুষ্ঠান মাতিয়ে দিয়েছিলেন চতুর্থবার উইম্বলডন জেতা এই সার্বিয়ান। সেখানেই জানালেন, উইম্বলডন জিতে নিজের বিস্ময়ের কথা। ছন্দে যখন ফিরেছেন তখন থামতে চান না এখানেই, ‘সত্যি আমি ভাবিনি উইম্বলডনে ফিরে পাব নিজেকে। রোলাঁ গারোর সময় কেউ জিজ্ঞেস করলে বলতাম, উইম্বলডন জেতা সম্ভব নয় এ বছর। যদিও নিজের ওপর বিশ্বাস হারাইনি। চোট কাটিয়ে উঠতে লড়াই করে গেছি। এখন অনেকটা ফিট আমি। ফ্ল্যাশিং মিডোয় ভালো কিছুর স্বপ্ন নিয়ে যাব।’

উইম্বলডনে রাফায়েল নাদালের সঙ্গে স্বপ্নের এক ম্যাচ খেলেছেন সেমিফাইনালে। ম্যারাথন ম্যাচটা শেষ হয়েছে ৫ ঘণ্টা ১৫ মিনিটে। ইউএস ওপেনে নাদালই যে বড় পরীক্ষা নেবেন ভালো জানা ১৩ গ্র্যান্ড স্লামজয়ী এ তারকার, ‘নাদাল সব সময় লড়াই করে। প্রতিটা পয়েন্ট এভাবে পেতে চায় যেন এটা হারলে ম্যাচও হারবে। ওর সঙ্গে জিততে হলে নিজেকে নিংড়ে দিয়ে খেলতে হবে। ফেদেরার এখনো দারুণ খেলছে। তবে নাদাল এক কথায় অসাধারণ।’ এপি



মন্তব্য