kalerkantho



নীরবে ঘরে ফিরল ফুটবল!

১৬ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



নীরবে ঘরে ফিরল ফুটবল!

ফুটবলস কামিং হোম... ঘরে ফিরছে ফুটবল।

গত কয়েক সপ্তাহে ইংল্যান্ডে প্রায় জাতীয় সংগীতের মর্যাদাই পেয়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ড ফুটবল দলের আন-অফিশিয়াল থিম সংটি। সেই গানের কথার সঙ্গে অবশ্য কোনো মিল রইল না শেষ পর্যন্ত গ্যারেথ সাউথগেটের দলের ঘরে ফেরার। ‘সফল’ বিশ্বকাপ অভিযান শেষে গতকাল মস্কো থেকে বার্মিংহাম পৌঁছেছে থ্রি লায়ন্সরা। কিন্তু সেখানে ইংলিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে কোনো সংবর্ধনার আয়োজন ছিল না, ছিল না হুড-খোলা বাসে নগর পরিভ্রমণের কোনো ব্যবস্থা। এমনকি যদি কোনো ভক্ত বিমানবন্দরে হাজির হওয়ার কথা ভেবেও থাকে, এফএর পক্ষ থেকে নিরুৎসাহই করা হয়েছে তাকে!

তার মানে কি সেই পুরনো রূপেই ফিরল ইংলিশ ফুটবলভক্তরা? একটা হার মানেই যেখানে ‘হিরো থেকে জিরো’? ঠিক অতটা না হলেও সেমিফাইনালের পর তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচেও আরেকটি হারে অনেকটা স্তিমিত হয়ে এসেছে ভক্তদের আবেগ। তবে বিশ্বকাপে চতুর্থ হওয়াটাকে ঠিক ‘ব্যর্থতা’ হিসেবেও দেখছে না তারা। লন্ডনের ক্লাব টটেনহামের পাঁড় ভক্ত রিচার্ড জনস্টোন যেমন বলছিলেন, ‘আসলে এবার আমাদের দলকে নিয়ে খুব একটা মাতামাতিই ছিল না; আমরা আশাও করিনি খুব একটা। সে হিসাবে চতুর্থ হওয়া খারাপ নয়, অনেক বছর পর সেমিফাইনালে তো উঠলাম।’ পেশায় বাসচালক এই তরুণের চেয়ে আরেক ধাপ এগিয়ে কোচ সাউথগেটের ভাবনা, ‘চতুর্থ হওয়ার মানে আসলে আমরা যেখানে আছি, তার চেয়েও এগিয়ে যাওয়া। খেলোয়াড়রাই এই সাফল্যের ভাগিদার, দেশে যখন ফিরবে, তখন সব ধরনের প্রশংসাই প্রাপ্য হবে ওদের।’ সাউথগেটের ইঙ্গিত ফিফার র‌্যাংকিংয়ের দিকে—বিশ্বকাপ শুরুর আগে ইংল্যান্ড ছিল ১২ নম্বরে। বিশ্বসেরাদের আসরে চতুর্থ হওয়া তো সে তুলনায় সাফল্যই!

সেমিফাইনালে বেলজিয়ামের কাছে হারটাকেও বাস্তবতা বলেই মানছেন ইংল্যান্ডের কোচ, ‘আমার তো মনে হয় ওরা আমাদের চেয়ে ভালো দলই। তা ছাড়া আমরা একটা দিন কম সময় পেয়েছি, সেমিফাইনালে হারের ধাক্কাটা সামলে ওঠাও একটা বড় ব্যাপার। এ রকম একটা ম্যাচে ভালো করার অনুপ্রেরণা পাওয়া খুব কঠিন।’ বেলজিয়ামের সঙ্গে নিজের দলের একটা বড় পার্থক্যের দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি, ‘বেলজিয়ামের দলটার দিকে তাকান, ওদের খেলোয়াড়রা যত ম্যাচ খেলেছে তাতে অভিজ্ঞতার চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে ওরা। আমরা তার ধারেকাছেও নেই।’

এই জায়গাটিতেই নিজেদের সাফল্যকে আরো বড় বলে মনে হচ্ছে সাউথগেটের, ‘আমরা যে সেমিফাইনালে উঠেছি, এটা কিন্তু দারুণ ব্যাপার। কারণ, এটা আমাদের আত্মবিশ্বাসী করে তুলবে। আমাদের দলটা তরুণ, আগামী শরতে আমাদের সামনে বেশ কিছু বড় ম্যাচ আছে—স্পেন, ক্রোয়েশিয়া, সুইজারল্যান্ডের মতো দলের সঙ্গে খেলব; তাই আমাদের সামনে উন্নতি করার অনেক সুযোগ আছে।’

২৮ বছর পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠেছে তাঁর দল, সাউথগেট তো এই দলটাকে নিয়ে গর্ব করতেই পারেন! বিবিসি, এএফপি



মন্তব্য