kalerkantho


শুরুতেই সালাহকে পাওয়ার আশা

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



শুরুতেই সালাহকে পাওয়ার আশা

চোটের জন্য প্রতিপক্ষের সেরা খেলোয়াড়ের খেলা নিয়ে যখন অনিশ্চয়তা, তখন তো একটু স্বস্তিতেই থাকার কথা ফের্নান্দো মুসলেরার। কিন্তু তা না, উরুগুয়ের গোলরক্ষক যে সেরাদের সামলানোতেই আনন্দ খুঁজে পান। তাই শুক্রবার এ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মোহামেদ সালাহকেও পাওয়ার আশা তাঁর, ‘সেরা খেলোয়াড়দের খেলতে দেখাটাই আমার কাছে ভালো লাগার। আমি অনুশীলনও করি সেরাদের সঙ্গে এবং চাইও সেরারা খেলুক।’

কিন্তু মিসরের হয়ে প্রথম ম্যাচেই সালাহর মাঠে নামার সম্ভাবনা সবচেয়ে কম বলে উচ্চারিত হয়ে এসেছে এত দিন। এই যখন অবস্থা, এর মধ্যেই লিভারপুল তারকাকে প্রথম ম্যাচে খেলতে দেখার আশার বেলুন ফুলে উঠতেও শুরু করে দিয়েছে। কারণ গতকাল রাশিয়ার গ্রজনিতে মিসরের বেসক্যাম্পে যে দলের অনুশীলনে দেখা গেছে সব শেষ মৌসুমে লিভারপুলের হয়ে ৪৪ গোল করা সালাহকে। ২৬ মে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে সের্হিও রামোসের ধাক্কায় কাঁধে চোট পাওয়ার পর থেকেই মাঠের বাইরে আছেন ‘ফারাও’দের প্রাণ। তাঁর ফেরা নিয়ে মিসর শিবির লুকোছাপা করলেও বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদক সালাহকে ঠিকই সতীর্থদের সঙ্গে অনুশীলনে নেমে পড়তে দেখেছেন। চোট পাওয়ার পর এই প্রথম অনুশীলনে নামা নতুন এ বিশ্বতারকাকে গা গরমের ব্যায়ামও করতে দেখা গেছে।

অর্থাৎ চোট সামলে সালাহর দারুণ অগ্রগতির ব্যাপারটিও এখন দৃশ্যমান। এর পরও যথারীতি তাঁর অবস্থা জানাতে গিয়ে সতর্ক মিসরের টিম ডিরেক্টর আইহাব লাহিতা, ‘অবস্থার উন্নতি হয়েছে যথেষ্টই। কিন্তু খেলছে কিনা (প্রথম ম্যাচে), সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর মতো কিছু এখনো ঘটেনি। আমরা প্রতিদিনই ওর অবস্থা পর্যালোচনা করছি।’ ৩০ মে মিসর দলের পক্ষ থেকে এ-ও বলা হয়েছিল যে সেরে উঠতে তিন সপ্তাহের বেশি লাগবে না সালাহর। সেই হিসাবে উরুগুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে তাঁর খেলতে পারারই কথা নয়। সে ক্ষেত্রে ১৯ জুন রাশিয়া এবং ২৫ জুন সৌদি আরবের বিপক্ষে খেলার কথা আছে তাঁর। তবে পরের রাউন্ডে যেতে উরুগুয়ে ম্যাচেও তাঁকে পাওয়া কম জরুরি নয় মিসরের। বুধবারের অনুশীলনে সালাহকে দেখা যাওয়াটা কি শুরু থেকেই তাঁর নেমে পড়ার প্রস্তুতি?

কৌশলগত কারণেই সম্ভবত মিসর শিবির খবরটি আপাতত চেপে রাখতে চাইছে। রাশিয়ায় পৌঁছার পর দলের প্রথম অনুশীলনে না নামলেও মানসিকভাবে তাঁর তৈরি থাকার কথা গত রবিবারই বলে রেখেছিলেন সালাহ, ‘আমি ভীষণ রোমাঞ্চিত। ঈশ্বরের ইচ্ছায় আমি প্রস্তুত আছি। সব কিছু ঠিকঠাকই যাচ্ছে। এবং আমি মানসিকভাবেও চাঙ্গা আছি।’ চাঙ্গা সালাহ হেক্তর কুপারের দলকে দ্বিতীয় রাউন্ডে নিয়ে যেতে পারবেন বলেও আশা মিসরের সাবেক ফুটবলার মিদোর। মিসরের হয়ে ৫১ ম্যাচে ২০ গোল করা এই সাবেক স্ট্রাইকার বলছিলেন, ‘মিসরের প্রতিটি মানুষই গর্বিত, কারণ আমাদের এমন একজন খেলোয়াড় আছে যে কিনা সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলছে। যে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনাল খেলেছে এবং ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেরও সেরা খেলোয়াড় হয়েছে। এটা সবার জন্যই সম্মানিত হওয়ার মতো একটি ব্যাপার। তবে আমরা এখন সালাহকে বিশ্বকাপে চাই। সতীর্থদের সহায়তায় এই দলটিকে বিশ্বকাপে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে ও খুব খাটুনিও খেটেছে। আশা করি ও পুরো ফিট হয়ে নেমে যাবে এবং আমাদের গ্রুপ পর্বের বাধা পেরিয়ে নেবে।’ এএফপি



মন্তব্য