kalerkantho



সৌদি আরবের গোল মেশিন

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



সৌদি আরবের গোল মেশিন

২২ বছরের লিকলিকে এক তরুণ। তাঁকে নিয়েই কাড়াকাড়ি সৌদি আরবে। বাড়তে বাড়তে দাম গিয়ে ঠেকে আট মিলিয়ন ডলারে। সৌদি আরবের ক্লাব ফুটবল ইতিহাসে এত বেশি টাকায় দলবদল হয়নি কখনো। দমে না গিয়ে আট মিলিয়ন ডলারেই ২০০৯ সালে ফরোয়ার্ড আল-শাহলাইকে কিনে নেয় সৌদির ঐতিহ্যবাহী দল আল নাসর। বিনিময়ে এরই মধ্যে ক্লাবকে দুটি লিগ আর একটি কাপ উপহার দিয়েছেন আল-শাহলাই। প্রথম মৌসুমে ২১ গোল করে জিতেছিলেন লিগের সেরা তরুণ খেলোয়াড়ের পুরস্কার। এখন আল-শাহলাই পরিণত আরো। তেলখনির দেশের গোল মেশিনকে ঘিরেই বিশ্বকাপে ভালো কিছুর আশায় সৌদি আরব।

একটা দিক দিয়ে লিওনেল মেসি, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোদেরও ছাড়িয়ে গেছেন আল-শাহলাই। সব মহাদেশ মিলিয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে সর্বোচ্চ ১৬ গোল করেছেন তিনজন। পোল্যান্ডের রবার্ত লেভানদোস্কি পরিচিত মুখ। তাঁর সমান ১৬ গোল আরব আমিরাতের আহমেদ খলিল আর সৌদি আরবের আল-শাহলাইয়ের। তাই তাঁকে নিয়ে আশাবাদী অভিজ্ঞ কোচ হুয়ান আন্তোনিও পিজ্জি। চিলিকে ২০১৬ সালের কোপা আমেরিকা জেতানো পিজ্জির প্রথম পছন্দের ফরোয়ার্ড আল-শাহলাই, ‘ও এক কথায় বিশ্বমানের। গোলটা খুব ভালো চেনে। শাহলাইয়ের কাছে বলের জোগান দিতে পারলে কিছু একটা ঘটার আশা করতেই পারেন আপনি।’

এই গোলটাই বেশি দরকার সৌদি আরবের। বিশ্বকাপে সবশেষ ৯ ম্যাচ খেলে সাতটিতেই বল জালে জড়াতে পারেনি তারা। হেরেছে বিশ্বকাপ প্রস্তুতিতে টানা তিন ম্যাচেও। ইতালির বিপক্ষে ১-২, পেরুর সঙ্গে ০-৩ আর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি হারিয়েছে ১-২ গোলে। আজ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক রাশিয়াকে হারাতে হলে স্ট্রাইকারদেরই করতে হবে বিশেষ কিছু। আর নিজেকে বিশ্বকাপে মেলে ধরতে আল-শাহলাই তিন সপ্তাহ অনুশীলন করেছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। এই চুক্তির পর উচ্ছ্বসিত ছিলেন সৌদি আরব জেনারেল স্পোর্টস অথরিটির প্রধান তুর্কি আল-শেইখ, ‘ম্যানইউর মতো ঐতিহ্যবাহী দলের সঙ্গে অনুশীলন করে নিজেকে আরো পরিণত করবে ও। আমাদের আস্থার নাম আল-শাহলাই।’

এই অনুশীলনের প্রয়োজনটা বেশি ছিল, বাছাই পর্বের শেষ দিকে আল-শাহলাই নিজের ছন্দ হারানোয়। তাঁর ১৬ গোলের মাত্র দুটি চূড়ান্ত পর্বে। আর ১৪টি ছোট দলের বিপক্ষে প্রথম পর্বে। এর মাঝেও বেশ জমেছিল বাছাই পর্বের যৌথ সর্বোচ্চ গোলদাতা আল-শাহলাইয়ের সৌদি আরব আর আহমেদ খলিলের আরব আমিরাতের প্রথম লেগের ম্যাচ। সে ম্যাচ জেতে  সৌদি আরব। ২-১ ব্যবধানে জেতা ম্যাচের দুটি গোলই আল-শাহলাইয়ের। আমিরাতের হয়ে গোলটি আহমেদ খলিলের। তবে দ্বিতীয় লেগে ১-১ সমতায় শেষ হওয়া ম্যাচে গোল পাননি দুজনের কেউ।

চূড়ান্ত পর্বে জাপানের পেছনে থেকে রানার্স-আপ হয়ে বিশ্বকাপে এসেছে সৌদি আরব। সেখানে আল-শাহলাইয়ের দুই গোলের একটি থাইল্যান্ডের বিপক্ষে আরেকটি অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে। বাছাইয়ের পর এবার বিশ্বকাপের মূল মঞ্চে জ্বলে ওঠার অপেক্ষায় ৪০ ম্যাচে ২৮ গোল করা এই তারকা।



মন্তব্য