kalerkantho


বিশ্বকাপ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী সালাহ

২৮ মে, ২০১৮ ০০:০০



বিশ্বকাপ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী সালাহ

গ্যালারির লাল অংশের উচ্ছ্বাস ছিল শুরু থেকে। মোহামেদ সালাহকে ঘিরে রিয়াল মাদ্রিদের ওপর চড়াও অল রেডরা। এই বুঝি খুলল গোলের তালা! হঠাৎ স্তব্ধ সব। সের্হিয়ো রামোসের ট্যাকলে কাঁধ ধরে শুয়ে পড়লেন সালাহ। আর দশজনের মতো মাঠে অভিনয় করেন না তিনি। তাই সালাহর ব্যথায় কাতরানোর সময়ই জাগে শঙ্কাটা, খারাপ কিছু হয়নি তো? অকল্পনীয়, অপ্রত্যাশিত সেই শঙ্কাটাই সত্যি শেষ পর্যন্ত। কাঁধের চোটে ম্যাচের ৩০ মিনিটে মাঠ ছাড়তে হলো প্রথম মিসরীয় হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনাল খেলা এই তারকাকে।

নিয়তিটা বুঝতে পেরে মাঠেই কান্নায় ভেঙে পড়েন সালাহ। সতীর্থ সাদিও মানে বুঝতে পেরে দিচ্ছিলেন সান্ত্বনা। কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ পায়চারি করে বোঝাচ্ছিলেন নিজের অস্থিরতা। গ্যালারির লাল অংশে তখন মাতম। সালাহ মাঠ ছাড়লেন লিভারপুলের চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার স্বপ্ন মাঠেই রেখে দিয়ে। তাঁকে ছাড়া বাকি সময়টা খেলা লিভারপুল হেরে যায় ১-৩ গোলে। এর পর থেকে উড়ছে প্রশ্নটা, বিশ্বকাপ নিয়ে শঙ্কা নেই তো লিভারপুলের হয়ে এই মৌসুমে ৪৪ গোল আর ১৫টি অ্যাসিস্ট করা এই তারকার? সংবাদ সম্মেলনে হতাশই শোনাল ইয়ুর্গেন ক্লপের কণ্ঠ, ‘আমরা গুরুত্বপূর্ণ এক খেলোয়াড় হারিয়েছি। মিসরও হয়তো বিশ্বকাপে হারাল গুরুত্বপূর্ণ একজনকে। ওর চোটটা দেখে মোটেও ভালো লাগেনি।’

মিসরীয় ভক্তরা এমন কিছু শুনে আশাহত হতেই পারেন। তবে পরশু রাতেই এক্স-রে করানোর পর মো সালাহর বিশ্বকাপ নিয়ে অবশ্য এখনই শঙ্কার কিছু দেখছে না মিসরীয় ফুটবল ফেডারেশন। এক্স-রের পর লিভারপুলের ডাক্তারদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে তারা। এরপর ফেডারেশনের পক্ষ থেকে আশাবাদ জানিয়ে সংস্থাটির টুইট, ‘আমাদের দলীয় ডাক্তার মোহামেদ আবু এল-এলা যোগাযোগ করেছে লিভারপুলের ডাক্তারদের সঙ্গে। কাঁধের জয়েন্টের লিগামেন্টে ব্যথা পেয়েছে ও। আমরা আশাবাদী সালাহ বিশ্বকাপে খেলবে শুরু থেকে।’ ১৯৯০ সালের পর এবারই প্রথম বিশ্বকাপে মিসর। সেখানে দলের সেরা তারকাকে যেকোনো মূল্যেই পেতে চায় তারা।

বিশ্বকাপে খেলার ব্যাপারে সমর্থকদের আশার বাণী শুনিয়েছেন সালাহ নিজেও। ‘রাতটি ছিল খুবই কষ্টকর। তবে আমি একজন যোদ্ধা। আমি আত্মবিশ্বাসী সব ধরনের প্রতিকুলতা জয় করে রাশিয়ায় খেলব এবং সবাইকে গর্বিত করতে পারব। আপনাদের ভালোবাসা এবং সমর্থনই আমাকে প্রয়োজনীয় শক্তি যোগাবে।’—নিজের টুইটারে লিখেছেন মিসর তারকা।

সালাহর এই চোটের জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় চলছে সের্হিয়ো রামোসকে ঘিরে। রিয়াল মাদ্রিদের এই ডিফেন্ডার ইচ্ছা করে কাঁধে আঘাত করেছেন বলে অভিযোগ অনেকের। ইয়ুর্গেন ক্লপ সরাসরি না বললেও ঘুরিয়ে দোষ দিলেন রামোসকে, ‘ম্যাচ হারার পর এমন কিছু বললে মনে হবে হার মানতে কষ্ট হচ্ছে। তবে আমার কাছে এটা খুব বাজে ট্যাকল ছিল। কিছুটা রেসলিংয়ের মতো। আর মো দুর্ভাগ্যজনকভাবে পড়েছে কাঁথের ওপর।’ ম্যাচ শেষে এ নিয়ে রামোসের টুইট, ‘ফুটবল কখনো এর ভালো দিকটি দেখাবে আপনাকে। আবার কখনো এর খারাপটা। সব মিলিয়ে আমরা এরই অংশ। দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠো সালাহ, উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে তোমার জন্য।’ মার্কা


মন্তব্য