kalerkantho



মুখোমুখি প্রতিদিন

সাঁতারে ভালো করতে হলে পার্ককে রাখা জরুরি

২৪ মে, ২০১৮ ০০:০০



সাঁতারে ভালো করতে হলে পার্ককে রাখা জরুরি

পার্ক তে গুন দুই মাস পর আবার ঢাকায় এসেছেন কয়েক দিন আগে। এক বছর শেষ হওয়ার পর তিনি ফিরে গিয়েছিলেন কোরিয়ায়। সাঁতার ফেডারেশনের অনুরোধে তিনি এসেছেন চুক্তি নবায়ন করতে। ফেডারেশন চেয়ে আছে অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের দিকে, কারণ কোচের বেতন দেয় বিওএ। সাঁতারে এই কোরিয়ান কোচের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়েছেন সাবেক কৃতী সাঁতারু ও কোচ শাহজাহান আলী রনি 

 

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : পার্ক ঢাকায় এসেছেন, দ্বিতীয় বছরের জন্য চুক্তি নবায়নের অপেক্ষায় আছেন...

শাহজাহান আলী রনি : তিনি ঢাকা এসেছেন কয়েক দিন আগেই। চুক্তির জন্য অপেক্ষা করে নেই, পরদিন থেকেই কাজে নেমে পড়েছেন, আমাদের প্রতিভা অন্বেষণের সাঁতারুদের নিয়ে ট্রেনিংও করাচ্ছেন। সাঁতারে ভালো করতে হলে এই কোরিয়ান কোচকে লাগবে। চুক্তির প্রথম বছরটা তিনি নতুন সাঁতারুদের খুব ভালো ট্রেনিং করিয়েছেন।

প্রশ্ন : তাঁর ট্রেনিংয়ে খুব ভালো করেছে, এমন কোনো সাঁতারু আছে ক্যাম্পে?

রনি : ৬০ জনকে নিয়ে ক্যাম্প চলছে। তারা সবাই পার্কের কাছ থেকে প্রতিদিনই কিছু না কিছু শিখছে। সঙ্গে আমরা দেশি চারজন কোচ হিসেবে কাজ করছি। এর সুফল হলো বাংলাদেশ যুব গেমসে আমাদের ক্যাম্পের ছেলে-মেয়েরাই সবচেয়ে ভালো করেছে। তাঁর অধীনে ট্রেনিং করা সাঁতারুরাই পুরো সাঁতারের আশি ভাগ পদক জিতেছে, বাকিটা জিতেছে বিকেএসপির সাঁতারুরা। তাঁর কাছ থেকে শুধু সাঁতারুরা নয়, আমরা তরুণ কোচরাও শিখি। সাঁতারের আধুনিক কলাকৌশল যেমন শেখার আছে, তেমনি আধুনিক সরঞ্জামগুলো কিভাবে এবং কী জন্য ব্যবহার করা হয়, সেটা আমাদের শেখান।

প্রশ্ন : তাঁর চুক্তি হলে নিশ্চয়ই সাঁতার জাতীয় দলের ক্যাম্প শুরু হবে?

রনি : জাতীয় দলের ক্যাম্পটা এখন বন্ধ আছে। সামনে এশিয়ান গেমস আছে। আশা করছি, তাঁর থাকা নিশ্চিত হলে ফেডারেশন আবার ক্যাম্প শুরু করবে। এই ক্যাম্পে বৃষ্টি নামের একজন নতুন সাঁতারু আছে, যে কিনা এবার এশিয়ান গেমসে যাবে। কোরিয়ান কোচের অধীনে ট্রেনিংয়ে তার পারফরম্যান্স ভালো হয়েছে।

প্রশ্ন : এশিয়ান গেমসে আসলে সেরকম কিছু পাওয়ার নেই। আমাদের সব কিছুই এখনো পর্যন্ত এসএ গেমসকেন্দ্রিক। আগামী বছরের এই গেমসে কি নতুন কোনো সাঁতারুর উত্থান দেখা যাবে?

রনি : ট্রেনিং ক্যাম্পে অনেকে ভালো করছে। কিন্তু তাদের ট্রেনিংয়ের ধারাবাহিকতা খুব দরকার। এ জন্যই পার্কের চুক্তি নবায়ন করা জরুরি। তারই টার্গেট ছিল আগামী এসএ গেমসে দারুণ কিছু উপহার দেওয়ার। তিনি একটি ধারায় ট্রেনিং করান, প্রত্যেকের কী রকম উন্নতি হয়েছে, কার কোথায় সমস্যা সেটা তিনি ভালো করে জানেন। এসএ গেমসে শীলার পদক জয়ের পেছনে তাঁর ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। সেরকম হয়তো নতুন কাউকে দিয়ে কোরিয়ান কোচ আবার চমকে দেবেন এসএ গেমসে।



মন্তব্য