kalerkantho


দুর্বার রাজ্জাকে শিরোপা দক্ষিণাঞ্চলের

২৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



দুর্বার রাজ্জাকে শিরোপা দক্ষিণাঞ্চলের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : প্রথম ইনিংসে ২০.৩ ওভারের টানা স্পেলে ৫৩ রানে ৫ উইকেট নিয়ে মাত্র ১৮৭ রানেই বিসিবি উত্তরাঞ্চলকে গুটিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। এবার দ্বিতীয় ইনিংসে আরো সক্রিয় ভূমিকা আব্দুর রাজ্জাকের। ২১.২ ওভারের টানা স্পেলে ৪৮ রানে ৬ শিকার ধরা এ বাঁহাতি স্পিনার প্রতিপক্ষকে গুঁড়িয়ে দিয়েছেন আরো অল্পতে। ১১৫ রানেই অল আউট উত্তরাঞ্চলের বিপক্ষে প্রাইম ব্যাংক দক্ষিণাঞ্চল তাই জিতেছে তিন দিনেই। খুলনায় তারা ইনিংস ও ৬৩ রানে জেতেইনি শুধু, বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) শেষ রাউন্ড শুরুর আগে প্রতিপক্ষের চেয়ে পয়েন্টে অনেক পিছিয়ে থাকা দলটি ঘুরে দাঁড়িয়ে জিতে নিয়েছে শিরোপাও। বিসিএলে এই নিয়ে তৃতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হলো দক্ষিণাঞ্চল।

ষষ্ঠ রাউন্ড তারা যেখানে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে শুরু করেছিল, সেখানে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে উত্তরাঞ্চল শিরোপায় এক পা দিয়েই রেখেছিল। চ্যাম্পিয়ন হতে হলে তাই দক্ষিণাঞ্চলের জিতলেই হতো না, ব্যাটিং আর বোলিং থেকে সম্ভাব্য সব বোনাস পয়েন্টও পেতে হতো। একই সঙ্গে প্রতিপক্ষ যাতে বেশি বোনাস পয়েন্ট না পেয়ে যায়, দৃষ্টি রাখতে হয়েছে সেদিকেও। ৮ উইকেটে ৩৬৫ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে দেওয়াও সেই কারণেই। দুর্বার রাজ্জাকে অবশ্য এই রানও ইনিংস ব্যবধানে জেতার জন্য যথেষ্ট বলে প্রমাণিত হয়েছে। যদিও ড্র করতে পারলেই শিরোপা যেত উত্তরাঞ্চলে। কিন্তু এই ম্যাচ থেকে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে সেটি একরকম কেড়েই নিল দক্ষিণাঞ্চল। তাদের পয়েন্ট ৬৫ আর রানার্স-আপ উত্তরাঞ্চলের ৬২।

খুলনায় শিরোপার নিষ্পত্তি হয়ে যাওয়ায় রাজশাহীতে ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল ও ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের ম্যাচটি হয়ে গেছে শুধুই আনুষ্ঠানিকতার। তবে অর্থহীন এই ম্যাচকেও অর্থপূর্ণ করে তুলেছে দুই দলের রানোৎসব। মধ্যাঞ্চলের ৫৪৬ রানের জবাবে পূর্বাঞ্চল তৃতীয় দিন শেষ করেছে ৬ উইকেটে ৫৯২ রান তুলে। আব্দুল মজিদের ডাবল সেঞ্চুরির সঙ্গে সেঞ্চুরি করেছিলেন মধ্যাঞ্চলের শাদমান ইসলামও। এর জবাবে ডাবল সেঞ্চুরি করলেন পূর্বাঞ্চলের লিটন কুমার দাশও, সঙ্গে যোগ তরুণ আফিফ হোসেনের (১৪২) সেঞ্চুরিও। চতুর্থ উইকেটে এই দুজনের ২৯৮ রানের পার্টনারশিপ। অবশ্য দিনের শেষে লিটনের  ডাবল সেঞ্চুরির আনন্দের সঙ্গে বেদনাও মিশে গিয়ে থাকতে পারে। কারণ ট্রিপল সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়ে তাঁর ইনিংসটি যে থেমেছে ২৭৪ রানে।

খুলনায় বিনা উইকেটে ৩২ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করে গতবারের চ্যাম্পিয়ন উত্তরাঞ্চল। সেখান থেকে দিনের প্রথম সেশনেই ৮৩ রানে ১০ উইকেট হারায় তারা। জুনায়েদ সিদ্দীককে তুলে নিয়ে শুরুটা রাজ্জাকের। শিকারযজ্ঞে তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দেন আরেক বাঁহাতি স্পিনার সাকলায়েন সজীবও (৩/৩৪)। উত্তরাঞ্চলের হয়ে ইনিংস সর্বোচ্চ ৪১ রান করা সোহরাওয়ার্দী শুভ রাজ্জাকের পঞ্চম শিকার। এই ম্যাচের প্রথম ইনিংসেই সবচেয়ে বেশি ৫ উইকেট নেওয়া বাংলাদেশি বোলার বনে যান রাজ্জাক। কাল সেই সংখ্যাটি নিয়ে গেলেন ৩৪-এ। এই ম্যাচে ১০৫ রানে ১১ উইকেট তাঁর। ক্যারিয়ারে ম্যাচে ১০ উইকেট নিলেন এই নিয়ে নবমবার।



মন্তব্য