kalerkantho


ভারতের বিশ্বকাপ পেছাল দুই দিন

২৫ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



ভারতের বিশ্বকাপ পেছাল দুই দিন

বিশ্ব ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় টুর্নামেন্ট কোনটি? বিশ্বকাপই তো হওয়ার কথা। কিন্তু গুরুত্বের দিক দিয়ে ইন্ডিয়ান ক্রিকেট লিগ (আইপিএল) বোধ করি সেটিকেও ছাড়িয়ে গেছে। নইলে আগামী বছর বিশ্বকাপ মাঠে গড়ানোর ১১ দিন আগেও কেন ক্রিকেটাররা ব্যস্ত থাকবেন আইপিএলে?

২০১৯ সালের ২৯ মার্চ শুরু হয়ে আইপিএল শেষ হবে ১৯ মে। ইংল্যান্ডের মাটিতে বিশ্বকাপ মাঠে গড়াবে ৩০ জুন। কাল ভারতের কলকাতায় ওই আসরের সূচি নির্ধারণী বৈঠক ছিল বিভিন্ন দেশের বোর্ডের প্রধান নির্বাহীদের ভেতর। প্রাথমিক সূচিতে ভারতের প্রথম ম্যাচ ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে, ২ জুন। কিন্তু তাতেও বিপত্তি। কারণ ‘লোধা কমিশন’-এর সুপারিশ অনুযায়ী আইপিএলের সঙ্গে আন্তর্জাতিক ম্যাচের মধ্যে অন্তত ১৫ দিন সময় দিতে হবে। অগত্যা, কী আর করা! ম্যাচটি পিছিয়ে নেওয়া হয় ৪ জুন।

‘২০১৯ সালের আইপিএল হবে ২৯ মার্চ থেকে ১৯ মে। যেহেতু আইপিএল শেষে ১৫ দিনের আগে আমরা খেলতে পারব না, সেই কারণে ৪ জুনের আগে ভারতের খেলার কোনো সুযোগ নেই। প্রাথমিকভাবে আমাদের খেলার সূচি ২ জুন পড়লেও পরে সেটি পিছিয়ে নেওয়া হয়েছে’—নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভারতীয় বোর্ডের এক কর্মকর্তা সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বলেছেন এমনটাই। বিশ্বকাপের সূচি নিয়ে প্রধান নির্বাহী কমিটির সভায় সবাই মতৈক্যে পৌঁছেছে, এখন সেটিকে পাঠানো হয়েছে আইসিসির বোর্ড সভায়। ৩০ এপ্রিলের মধ্যেই পূর্ণ সূচি প্রকাশ করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেই সূচিতে জানা যাবে, বাংলাদেশের ম্যাচগুলো কবে, কোন দলের বিপক্ষে, কোন কোন ভেন্যুতে। আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা ভারত-পাকিস্তান খেলা হবে ১৬ জুন, ওল্ড ট্রাফোর্ডে হতে পারে।

এদিকে ফিউচার ট্যুর প্রগ্রাম শেষে আগামী বছর থেকে নতুন এক চক্রে প্রবেশ করবে বিশ্ব ক্রিকেট। ২০১৯-২০২৩—এ চার বছরে ভারত ঘরের মাটিতে ১৯টি টেস্ট খেলবে বলে জানিয়েছেন ওই কর্মকর্তা, ‘এই সময়কালে সব ধরনের ফরম্যাট মিলিয়ে ভারত আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে সর্বোচ্চ ৩০৯ দিন, আগের সময়কালের চেয়ে যা ৯২ দিন কম। তবে ঘরের মাটিতে টেস্টের সংখ্যা ১৫-এর জায়গায় বেড়ে হবে ১৯। আর এসব ম্যাচই হবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ।’ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।


মন্তব্য