kalerkantho


হ্যাটট্রিক শিরোপার সামনে সিদ্দিক

২৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



হ্যাটট্রিক শিরোপার সামনে সিদ্দিক

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ঘরের মাঠে তিনটি এশিয়ান ট্যুর টুর্নামেন্ট শেষ করেছেন তিনি শূন্য হাতে। তবে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ট্যুর মানেই সিদ্দিকুর রহমান। সেই ২০১১ সালে ঢাকায় এশিয়ার উঠতি গলফারদের এই ট্যুরের প্রথম টুর্নামেন্টেই শিরোপা জিতেছিলেন। সাত বছর পর গত জানুয়ারিতে হওয়া দ্বিতীয় আসরেও চ্যাম্পিয়ন তিনি। মাস দুয়েক যেতেই সেই ট্যুরেরই তৃতীয় টুর্নামেন্ট মাঠে গড়াচ্ছে কাল। এডিটিতে হ্যাটট্রিকের অপেক্ষায় তাই সিদ্দিক।

এবারের বিটিআই ওপেনের প্রাইজমানি ৬০ হাজার ডলার। আগের দুই আসরের চ্যাম্পিয়ন বলেই শুধু না, এশিয়ান ট্যুরের দুই শিরোপাজয়ী হিসেবে সিদ্দিকই এই আসরের সবচেয়ে হাই প্রোফাইল গলফার। এমনিতেই আলোটা তাঁর ওপর। এশিয়ান ট্যুরের ব্যস্ততার ফাঁকে সময় পেলে সিদ্দিক ভারতীয় ট্যুরের টুর্নামেন্ট খেলেন। ডেভেলপমেন্ট ট্যুর খেলেন শুধু ঢাকায় হওয়া আসরের আকর্ষণ বাড়াতেই। তবু এই আসরটা সহজ ভাবেন না তিনি কখনোই, ‘এখানে এশিয়ার সম্ভাবনাময় সব গলফার অংশ নেয়। তরুণদের নিজেদের মেলে ধরার প্ল্যাটফর্ম এটি। আমাদের দেশের অন্য পেশাদার গলফার যারা আছে, তারাও মুখিয়ে এই সুযোগটা কাজে লাগাতে।’ সিদ্দিক ছাড়া পেশাদারদের মধ্যে দুলাল হোসেন, জামাল হোসেন, সাখাওয়াত হোসেন, সজীব আলীরা দেশে হওয়া এমন আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের সুযোগগুলো এ পর্যন্ত আসলে কমই কাজে লাগাতে পেরেছেন। এশিয়ান ট্যুরের তিনটি টুর্নামেন্টে তাঁরা হতাশই করেছেন বেশি। গত মার্চে চট্টগ্রামে ভাটিয়ারী কোর্সে পিজিটিআইয়ের আসর চট্টগ্রাম ওপেনেও শিরোপা জিতে নিয়ে গেছেন শ্রীলঙ্কার এন থাঙ্গারাজা। এবারের বিটিআই ওপেনেও আছেন তিনি।

১৭টি দেশের মোট ১৩৪ জন গলফার অংশ নিচ্ছেন এ আসের। এর মধ্যে বাংলাদেশি পেশাদার ৪৯ জন, যাঁদের পাঁচজন পিজিটিআইয়েও নিয়মিত। তাঁদেরসহ পিজিটিআইয়ের গলফার এ আসরে ৪৫ জন। বাকি ৪৩ জন গলফার এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ট্যুরের।


মন্তব্য