kalerkantho


ওয়েঙ্গারকে ফার্গুসন-মরিনহোর শ্রদ্ধার্ঘ্য

২২ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



ওয়েঙ্গারকে ফার্গুসন-মরিনহোর শ্রদ্ধার্ঘ্য

তাঁরা ছিলেন প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বী। স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন ও হোসে মরিনহোর সঙ্গে কী ধুন্ধুমার লড়াই-ই না হয়েছে! কিন্তু আর্সেন ওয়েঙ্গারের বিদায়বেলায় বিষণ্ন তাঁরাও। আর্সেনালে তাঁর অর্জনের কথা মনে করিয়ে দিয়ে প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বীকে শ্রদ্ধার্ঘ্য ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক ও বর্তমান কোচের।

‘আর্সেন ওয়েঙ্গারের প্রতি এবং আর্সেনালে তাঁর কাজের প্রতি আমার প্রবল শ্রদ্ধা রয়েছে। যে যুগে ফুটবল কোচরা কখনো-কখনো এক ক্লাবে এক-দুই মৌসুম টেকেন, সেখানে আর্সেনালের মতো ক্লাবে ২২ বছর ছিলেন তিনি। এটিই তাঁর অর্জন বোঝাচ্ছে’—ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিবৃতিতে এমনটাই লিখেছেন ফার্গুসন। সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘আর্সেন নিজে দায়িত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেওয়ায় আমি আনন্দিত। কারণ এখন প্রাপ্য বিদায়টা পাবেন। কোনো রকম সন্দেহ ছাড়াই তিনি প্রিমিয়ার লিগ ইতিহাসের অন্যতম সেরা কোচ। এমন গ্রেট একজনের প্রতিপক্ষ, সতীর্থ ও বন্ধু হতে পারায় আমি গর্বিত।’

মরিনহোর সঙ্গেও কথার লড়াই চলেছে তাঁর খুব। বিশেষত এই পর্তুগিজ যখন ছিলেন চেলসির কোচ। এখন ম্যানইউর ডাগআউটে থাকা মরিনহো অবসরের সিদ্ধান্ত নেওয়া ওয়েঙ্গারকে দিয়েছেন শ্রদ্ধার্ঘ্য। পাশাপাশি এক প্রত্যাশার কথাও জানিয়েছেন, ‘তিনটি প্রিমিয়ার লিগ ও সাতটি এফএ কাপ জেতাটাই বোঝাচ্ছে আর্সেনের অর্জন। জাপান-ফ্রান্সে কী করেছেন, ফরাসি ফুটবলে কী পরিবর্তন এনেছেন, আর্সেনালকে কী দিয়েছেন, ক্লাবের এক স্টেডিয়াম থেকে আরেক স্টেডিয়ামে স্থানান্তরে তাঁর ভূমিকা কী ছিল—সব আমরা জানি। এখন দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তে তিনি খুশি হলে আমিও খুশি। তবে আশা করব, উনি ফুটবল থেকে একেবারে অবসর নেবেন না।’ জানা যাচ্ছে, আর্সেনাল ছাড়লেও ফুটবলটা এখনই ছাড়ছেন না ওয়েঙ্গার। হয়তো কোনো জাতীয় দলের দায়িত্ব নেবেন কিংবা হবেন ক্লাব দলের স্পোর্টিং ডিরেক্টর।

আর্সেনালের ২২ বছরে ওয়েঙ্গারের অধীনে খেলা সেরা খেলোয়াড় হিসেবে সবচেয়ে বেশি উচ্চারিত থিয়েরি অঁরির নাম। এই ফরাসি ফরোয়ার্ড গুরুর বিদায়বেলায় রঙিন সাফল্যের দিনগুলোতেই চোখ রাখছেন, ‘আমার জন্য এটি মিশ্র অনুভূতি। তাঁর মতো একজনকে চলে যেতে দেখাটা দুঃখের। আবার একইসঙ্গে এখন তিনি প্রাপ্য বিদায় পাবেন বলে আমি কিছুটা খুশি। তাঁর সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময়টা কি ঠিক হলো নাকি ভুল? এ নিয়ে লোকে তর্ক করবে। তবে আর্সেন বিদায়ের ঘোষণা দেওয়ায় এখন সবাই আলোচনা করবে এই ক্লাবের জন্য উনি কী কী করেছেন। আর্সেনালে তাঁর লিগেসি অস্পর্শনীয়।’

২২ বছর দায়িত্বে থাকার পর পদত্যাগের ঘোষণা ওয়েঙ্গারের। কিন্তু আর্সেনালের আরেক কিংবদন্তি ইয়ান রাইটের দাবি ভিন্ন, ‘আমি নিশ্চিত যে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে; উনি পদত্যাগ করেননি। তাঁর যত কদর্য সমালোচনাই হোক না কেন, চুক্তি শেষ হওয়ার আগে দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়ার মতো লোক তিনি নন। আগের সংবাদ সম্মেলনে এ নিয়ে বিন্দুমাত্র ইঙ্গিতও দেননি আর্সেন। এর পরই তাঁর পদত্যাগ। ব্যাপারটি গোলমেলে। এটি খুব বেদনাদায়ক পরিস্থিতি। কে যে এর জন্য দায়ী তা হয়তো কখনোই আমরা জানব না। কেননা দায়ীরা সবাই একে অন্যের পেছনে লুকাবে।’

ওদিকে আর্সেনালে ওয়েঙ্গারের উত্তরসূরি নিয়েও জল্পনা-কল্পনা কম হচ্ছে না। ক্লাবের আরেক কিংবদন্তি প্যাট্রিক ভিয়েরার নাম শোনা যাচ্ছে জোরেশোরে। বর্তমানে মেজর লিগ সকারের দল নিউ ইয়র্ক সিটি এফসির কোচ এই ব্যাপারটি একেবারে উড়িয়ে দেননি, ‘আর্সেনালে আমি ৯ মৌসুম কাটিয়েছি। এটি আমার কাছে বিশেষ এক ক্লাব। কিন্তু এটিই তো ওই ক্লাবের কোচ হওয়ার জন্য যথেষ্ট না। আর্সেনের উত্তরসূরি হিসেবে আমার নাম আসছে বলে ভালো লাগছে। একইসঙ্গে বর্তমান দায়িত্বেও আমি খুশি। দেখাই যাক না, সামনে কী হয়!’ গোল, মিরর, মেট্রো


মন্তব্য