kalerkantho



ম্যানসিটির আরো রেকর্ডের হাতছানি

১৭ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



ম্যানসিটির আরো রেকর্ডের হাতছানি

শহরের এক অংশে উৎসবের আনন্দ, অন্য অংশে হতাশার গ্লানি। পয়েন্ট টেবিলের একেবারে তলানিতে থাকা দল ওয়েস্ট ব্রমউইচ অ্যালবিওন, যারা আগামী মৌসুমে প্রায় নিশ্চিতভাবেই প্রিমিয়ার লিগে খেলছে না, তারাই কিনা বাড়ি এসে হারিয়ে দিয়ে গেল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে। তাও এমন সময়ে, এই হারেই যে জ্বলে উঠল ম্যানচেস্টার সিটির জয়ের নীল মশাল! পেপ গার্দিওলা ছেলেকে নিয়ে চলে গিয়েছিলেন গলফ খেলতে, ম্যানইউ-ওয়েস্ট ব্রম ম্যাচের ফলও শুনতে চাননি। হয়তো ভেবেছিলেন, অপেক্ষার প্রহরটা লম্বা হওয়ার খবরই আসবে। অথচ এসেছে সুসংবাদ! ম্যানচেস্টার ডার্বিতে হেরে একটু না হয় দেরিই করিয়ে দিয়েছিল ম্যানইউ, সেটাই বোধ হয় পুষিয়ে দিল ওয়েস্ট ব্রমের কাছে ১-০ গোলে হেরে। লিগের ম্যাচ বাকি পাঁচ রাউন্ড, এখনই শীর্ষে থাকা ম্যানসিটির সঙ্গে দুইয়ে থাকা ম্যানইউর ব্যবধান ১৬ পয়েন্টের। তাইতো পাঁচ ম্যাচ আগেই ২০১৭-১৮ মৌসুমের শিরোপা ম্যানচেস্টার সিটির। ৬ মে, হাডার্সফিল্ডের সঙ্গে ম্যাচের পর; যেটা তাদের সব শেষ হোম ম্যাচ, লিগ শিরোপা তুলে দেওয়া হবে সিটিজেনদের হাতে।

কোচ গার্দিওলা গলফ খেলতে চলে গেলেও সিটিজেনদের অধিনায়ক ভিনসেন্ট কম্পানি ম্যাচটি দেখেছেন টিভিতে। শেষ বাঁশির সঙ্গে সঙ্গেই তিনি মেতে ওঠেন শিরোপা জয়ের আনন্দে। স্কাই স্পোর্টসকে এই বেলজিয়ান জানান, ‘আজ (রবিবার) আমি খুবই খুশি এবং আমার মনে হয় আমার সব সতীর্থই এখন চোখ কচলাচ্ছে। আমার এখনই সবার প্রতিক্রিয়া দেখতে ইচ্ছা করছে। আমরা খুব খুশি, দারুণ একটা ফল করেছি আমরা; তবে এখনো অনেক কিছু করা বাকি আমাদের। গোটা দলের সামর্থ্যটা এখনো অপ্রকাশিত।’

ইত্তেহাদে দ্বিতীয় মৌসুমে রক্ষণে মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করেছেন গার্দিওলা। বুড়িয়ে যাওয়াদের বাদ দিয়ে দলে নিয়েছেন নতুনদের, ভরসা রেখেছেন তারুণ্যে। ৩৩ ম্যাচে মাত্র ২৫ গোল হজম করেছে ম্যানসিটি; গোল ব্যবধানটা বিস্ময়কর, ৬৮!  পরিসংখ্যান টালির বেশির ভাগ ঘরেই সবার ওপরে ম্যানসিটির কেউ, যার যোগফল লিগ টেবিলেও সিটিজেনদেরই সবার ওপরে থাকা। সামনে আরো বেশ কিছু রেকর্ডের হাতছানি ডাকছে তাদের। সর্বোচ্চ পয়েন্টের ব্যবধানে লিগ জেতাটাও খুবই সম্ভব গার্দিওলার দলের পক্ষে। ১৯৯৯-২০০০ মৌসুমে ম্যানইউ ১৮ পয়েন্টের ব্যবধানে আর্সেনালকে পেছনে ফেলে জিতেছিল শিরোপা, পাঁচ ম্যাচ আগেই ম্যানসিটি ১৬ পয়েন্ট পেছনে ফেলেছে ম্যানইউকে। সেই রেকর্ডটা ভেঙে ফেলার সমূহ সম্ভাবনা সিটিজেনদের সামনে। ২০০০-০১ মৌসুমে পাঁচ ম্যাচ আগে শিরোপা জিতেছিল ম্যানইউ, এবারও পাঁচ ম্যাচ আগেই জিতে সেই রেকর্ড ছুঁয়েছে রেড ডেভিলদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বীরা। হোসে মরিনহো প্রথম মেয়াদে চেলসির কোচ থাকাকালীন সম্ভাব্য ১১৪ পয়েন্টের ভেতর পেয়েছিল ৯৫ পয়েন্ট, গড়ে প্রতি ম্যাচে ২.৫ পয়েন্ট করে। ম্যানসিটির এখনই ৩৩ ম্যাচে ৮৭ পয়েন্ট, বাকি পাঁচ ম্যাচ থেকে ৯ পয়েন্ট তুলতে পারলেই তারা ভেঙে ফেলবে চেলসির রেকর্ডটা। সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ড আন্তনিও কন্তের চেলসির, ১০৩ গোলের। এই মৌসুমে ৯৩ গোল হয়ে গেছে ম্যানসিটির, বাকি পাঁচ ম্যাচে ১০ গোল কি হবে না! সবচেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ডও কন্তের চেলসির, ৩৮ ম্যাচে ৩০টি। গার্দিওলার ম্যানসিটি ৩৩ ম্যাচের ভেতর ২৮টি এরই মধ্যে জিতে গেছে, বাকি পাঁচ ম্যাচের তিনটি জিতলেই হবে নতুন রেকর্ড। অবশ্য এরই মধ্যে ১৮ ম্যাচ জিতে টানা সবচেয়ে বেশি ম্যাচ জেতার রেকর্ড গড়েছে তারা। এএফপি



মন্তব্য