kalerkantho



ফুটবল রক্ষণের পরীক্ষা আজ থাইল্যান্ডে

২১ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



ফুটবল রক্ষণের পরীক্ষা আজ থাইল্যান্ডে

ক্রীড়া প্রতিবেদক : লাওসের বিপক্ষে অভিষেকের স্বপ্নে বিভোর অ্যান্ড্রু ওর্ড। জাতীয় দলের কোচ হিসেবে তাঁর এই অভিষেক কতটা মধুর হবে কে জানে। সেটার খানিকটা ইঙ্গিত হয়তো আজ মিলবে থাই ক্লাব রাচাবুরি এফসির সঙ্গে বাংলাদেশের প্র্যাকটিস ম্যাচে।

১৭ মাস পর বাংলাদেশের আনুষ্ঠানিক ম্যাচ লাওসের বিপক্ষে। এর আগে অ্যান্ড্রু ওর্ড এ ম্যাচটিকে নিয়েছেন কৌশলের চর্চা হিসেবে, ‘প্র্যাকটিস ম্যাচ দুটিকে আমি কৌশলের পরীক্ষা-নিরীক্ষা হিসেবে নিচ্ছি। সব খেলোয়াড়কে আমি মাত্র তিনটি প্র্যাকটিস সেশনে পেয়েছি, তাই রাচাবুরির সঙ্গে ম্যাচে আমাদের তাড়াতাড়ি মানিয়ে নিতে হবে। এটাও ঠিক, অনেক খেলোয়াড় জানুয়ারির পর থেকে ৯০ মিনিট খেলার সুযোগ পায়নি। এই প্র্যাকটিস ম্যাচ তাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।’ শুধু এটা নয়, ২৩ তারিখে অন্য ম্যাচটিও বাংলাদেশ দলের জন্য কৌশল পরীক্ষার ম্যাচ। কৌশলটা কী হবে? ঢাকা ছাড়ার আগে ইংলিশ-অস্ট্রেলিয়ান কোচ দুটি থাই দলকে শক্তিতে অনেক এগিয়ে রেখেছিলেন। গতকালও বলেছেন একই কথা, ‘রাচাবুরি অনেক শক্তিশালী দল, তারা এশিয়ান চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলে। সুতরাং এএফসি কাপে খেলা বাংলাদেশের চেয়ে তারা অনেক এগিয়ে।’ সুতরাং এই ম্যাচে কৌশলটা হবে কত ভালো রক্ষণভাগ সামলানো যায়। সেটপিস থেকে গোল খাওয়া কমানোর জন্য তিনি প্র্যাকটিস করিয়েছেন কাতারে। নিজেদের গোল আগলে খেলার কৌশলটাই মুখ্য ওর্ডের কাছে। কারণ লাওস থেকে তিনি হার নিয়ে ফিরতে চান না, এই দল নিয়ে ড্র-ই প্রত্যাশা করেন অস্ট্রেলিয়ান কোচ।

অনেক দিন পর ম্যাচ খেলতে যাচ্ছে জাতীয় দল। তাই খেলোয়াড়দের মধ্যে আড়ষ্টতা আছে, কোচের আছে জানা-অজানার শঙ্কা। অ্যান্ড্রু ওর্ড চাইছেন, ‘ভালো দলের সঙ্গে খেলার সুবিধা হলো, আমাদের খেলোয়াড়রা ম্যাচ টেম্পুর সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার একটা দায় থাকে। সেটা করতে পারলে লাওসের ম্যাচের জন্য ভালো হবে।’ আসলে লাওসের ম্যাচের জন্য অনেক আয়োজন করেছে বাফুফে। বিকেএসপিতে এক দফা প্র্যাকটিসের পর এই দল নিয়ে কোচ কাতারে গিয়েছিলেন। সেখানে হয়েছে নিবিড় প্রশিক্ষণ। খেলোয়াড়রাও বলেছেন ইতিবাচক কথা, তাঁদের খাদ্যাভ্যাসও নাকি বদলে গেছে। তারপর থাইল্যান্ডে দুটি প্র্যাকটিস ম্যাচের ব্যবস্থা করেছে। এ ম্যাচগুলোতেই হবে তাদের প্রথম পরীক্ষা, সেখানে রক্ষণ সংগঠন ভালো করলে, গোল আগলে খেলতে পারলে সেটাই হবে বাংলাদেশের প্রাপ্তি।



মন্তব্য