kalerkantho


নেইমারের চোট হতে পারে শাপে বর!

৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



নেইমারের চোট হতে পারে শাপে বর!

মার্সেইর বিপক্ষে ম্যাচে মেটাটারসাল ভেঙে তিন মাসের জন্য মাঠের বাইরে নেইমার—এই খবরে যখন ব্রাজিলজুড়ে হায় হায় মাতম তখন উল্টো কথা শোনাচ্ছেন ‘সেলেসাও’দের ফিটনেস ট্রেনার! দলের ফিটনেস ট্রেনার হিসেবে কাজ করা ফাবিও মাহসেরেদিয়ান জোর দিয়েই বলছেন, বিশ্বকাপে ব্রাজিলের প্রথম ম্যাচটি নেইমার খেলবেনই খেলবেন। শুধু তা-ই নয়, বিশ্বকাপে নেইমারকে পাওয়া যাবে একদম তরতাজা অবস্থায়!

লম্বা ইউরোপিয়ান মৌসুম শেষে বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে বিশ্বকাপের মূল পর্বে পৌঁছতে পৌঁছতে অনেক তারকা ফুটবলারই দম হারিয়ে ফেলেন। বিশ্বকাপের আগে চোট পেয়ে অনেকের ঠাঁই হয় দর্শকের আসনে, কেউ বা মাঝপথে থিতু হন সাইডবেঞ্চে। ফাবিও বলছেন, মার্সেই আসলে এক অর্থে উপকারই করে দিয়েছেন ব্রাজিলের। তাইতো জুনের ১৭ তারিখে, রোস্তভ অ্যারেনায় ব্রাজিলের জার্সি গায়ে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে নেইমারকে দিব্যচোখে খেলতে দেখতে পাচ্ছেন দলের ফিজিও, ‘আমি নিশ্চিত, সে প্রথম ম্যাচে খেলবেই। প্রথমত, সে একজন অ্যাথলেট যে নিজের যত্ন নেয়। তার একজন ফিজিওথেরাপিস্ট আছে এবং একজন ফিজিক্যাল ট্রেনার আছে, যারা রোজ ওর যত্ন নিচ্ছে।’ গ্লোবো এস্পোর্তোকে ফাবিও জানিয়েছেন, ‘দ্বিতীয়ত, তাকে নিয়ে মোটা হয়ে যাওয়ার কোনো ভয় নেই, কারণ তার ওজন সহজে বাড়ে না। আর তৃতীয়ত, সে এখনো অনেক তরুণ আর তার মনের জোরটাও সাংঘাতিক; যেটা বিশ্বকাপের জন্য তার প্রস্তুতিকে সহজ করে দেবে। আমি নিশ্চিত, প্রথম ম্যাচ খেলার মতো সুস্থ হয়ে ওঠার জন্য তার হাতে অনেক সময় আছে।’

ম্যাচ ফিটনেসের ঘাটতির শঙ্কা যেমন আছে, তেমনি আছে বেশি খেলে নিজেকে ফুরিয়ে ফেলার শঙ্কাও। চোটটাকে তাই শাপে বর হিসেবেই দেখছেন ফাবিও, ‘নেইমারের ধকলটা কম থাকবে। খেলারও, প্রশিক্ষণেরও। ওর অবস্থাটা হবে মৌসুম শুরু করার মতো। এই মৌসুমে এত দিন খেলে সে যে ধকল ও শারীরিক বৈশিষ্ট্য অর্জন করেছিল, সেটা অস্ত্রোপচারের কারণে বাদ। এটা আমাদের জন্য ভালো কারণ সে অনেকগুলো ম্যাচ খেলার চাপ নিয়ে আসছে না।’

নেইমারের পায়ে কাঁচি চালাতে যাওয়া ডাক্তার রদরিগো লাসমারও বললেন, ঝুঁকি জেনেই অস্ত্রোপচারে রাজি হয়েছেন নেইমার, ‘নেইমারের মন অবশ্যই অনেক খারাপ। তবে সে জানে, এখন আর অন্য কোনো বিকল্প নেই। এখন তার কাজ অস্ত্রোপচারের পর নিজেকে সম্পূর্ণ রূপে মনপ্রাণ ঢেলে তৈরি করা, যাতে সে দ্রুত সেরে উঠতে পারে।’

অস্ত্রোপচারের পর নিজের কেনা বিলাসবহুল বাংলোতেই থেকে শরীর সারাবেন নেইমার। ২০১৬ সালের অক্টোবরে ৬ মিলিয়ন পাউন্ডে কেনা এই বাংলোয় আছে টেনিস কোর্ট, নিজস্ব হেলিপ্যাড, জিম আর জেটিও। সেই সঙ্গে বাড়ির মাটির তলার ঘরে মজুদ রাখা আছে বিশ্বের সেরা সব পানীয়! মেইল অনলাইন, সাম্বাফুট



মন্তব্য