kalerkantho



রোনালদোহীন বিবর্ণ রিয়াল

১ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



রোনালদোহীন বিবর্ণ রিয়াল

মনে হচ্ছিল বিপর্যয়ের মেঘ সরিয়ে ফেলেছে রিয়াল মাদ্রিদ। টানা পাঁচ জয়ে ফিরেছিল চেনা ছন্দেও। কিন্তু এস্পানিওলের মাঠে আবারও সেই বিবর্ণ জিনেদিন জিদানের দল। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে ছাড়া খেলতে নেমে ১-০ গোলে হেরেই গেছে তারা গত পরশু। তাও ইনজুরি টাইমের তৃতীয় মিনিটের গোলে! রিয়ালের হারের রাতে নতুন ইতিহাস সোয়ানসি সিটির। শেফিল্ড ওয়েডনেসডেকে ২-০ গোলে হারিয়ে এফএ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে তারা। ১৯৬৪ সালের পর এবারই প্রথম শেষ আটের টিকিট পেল সোয়ানসি।

২০০৭ সালের অক্টোবরের পর খেলা ২২ ম্যাচে রিয়ালকে হারাতে পারেনি এস্পানিওল। এই ২২ ম্যাচে হার ১৯ আর ড্র তিনটিতে। তাই হয়তো চোটের জন্য লুকা মদরিচ, টনি ক্রুস, মার্সেলোরা না থাকলেও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোকে বিশ্রাম দেন জিদান। পিএসজির বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে সতেজ রাখতে বেঞ্চে ছিলেন করিম বেনজিমাও। তাঁদের ছাড়া ৬২ শতাংশ বলের দখল রাখা রিয়াল লক্ষ্যে শট নিতে পেরেছিল মাত্র পাঁচটি। ছন্নছাড়া ছিলেন গ্যারেথ বেল, ইসকোরা। বদলি হয়ে বেনজিমা নামার পর আক্রমণে গতি এলেও ফিনিশিংয়ে বারবার মনে হচ্ছিল রোনালদোর না থাকাটা। বিপরীতে এস্পানিওলের ১৬ শটের সাতটিই ছিল লক্ষ্যে। বিরতির আগে মোরেনোর একটি গোল বাতিলও হয় অফসাইডের কারণে। ইনজুরি টাইমের তৃতীয় মিনিটে সেই মোরেনোর গোলে ১১ বছর পর রিয়ালকে হারাল বার্সেলোনা শহরের এই দল। স্বদেশি সের্হিয়ো গার্সিয়ার ক্রসে বক্সে নিজেকে একা করে ফেলা এই স্প্যানিশ ফরোয়ার্ডের জোরালো শট জালে জড়ালে সমুদ্রের গর্জন ওঠে গ্যালারিতে। পাশাপাশি বার্সেলোনা শহরেও।

ড্র হতে চলা ম্যাচে শেষ মুহূর্তের গোলে এমন নাটকীয় হারটা মানতে পারছেন না জিদান, ‘১-০ গোলের হারটা পাওনা ছিল না আমাদের। এটাই ফুটবল। খেলোয়াড়দের জন্য খারাপ লাগছে আমার। রোনালদোর না থাকাটা মোটেও প্লান বি নয়। এটা ২৫ জনের দল। আর ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে সবাইকে খেলাব আমরা।’ লা লিগার অপর ম্যাচে জিরোনা ১-০ গোলে হারিয়েছে সেল্তা ভিগোকে। ১৪ মিনিটে জয়সূচক একমাত্র গোলটি পোর্তুর। এএফপি



মন্তব্য