kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

মাশরাফি ভাই আমাদের সবার আদর্শ

২০১৫-র বিপিএলে আলো ছড়িয়ে জায়গা পান জাতীয় দলে। কিন্তু মাত্র পাঁচটি টি-টোয়েন্টি খেলার পর ছিটকে পড়েন আবু হায়দার। ২০১৭-র বিপিএলের পারফরম্যান্সে আবার বাংলাদেশ স্কোয়াডে ঠাঁই হয় এই পেসারের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি সিরিজে ডাক পেলেও কোনো ম্যাচ অবশ্য খেলা হয়নি। এখন তিনি পেস বোলিং ক্যাম্প করছেন কোর্টনি ওয়ালশের অধীনে। এই ক্যাম্প, নিজের বোলিং, সামগ্রিক অর্থে পেস বোলিং নিয়ে আবু হায়দার কাল নানা কথা বললেন গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মাশরাফি ভাই আমাদের সবার আদর্শ

প্রশ্ন : কোর্টানি ওয়ালশের অধীনে এই পেস বোলিং ক্যাম্প কেমন হচ্ছে?

আবু হায়দার : ভালোই হচ্ছে। এখানে নতুন বলে কাজ করছি। ডেথ ওভারের কাজ হচ্ছে, ইয়র্কার নিয়ে কাজ করছি। এই কাজগুলো যদি ঠিকঠাক করতে পারি তাহলে টি-টোয়েন্টি আর ওয়ানডেতে ভালো করব।

প্রশ্ন : নিজেদের সমস্যা কি বুঝতে পেরেছেন?

হায়দার : আসলে সমস্যাটা ওইরকম না। সুইং নিয়ে কাজ করছেন ওয়ালশ। নতুন বলে কিভাবে সুইং করানো যায়, তা শেখাচ্ছেন। পুরাতন বলে ইয়র্কার নিয়ে কাজ হচ্ছে। টি-টোয়েন্টিতে ব্লক হোলের প্রয়োগটা ভালো থাকলে টিকে থাকা সহজ।

প্রশ্ন : নিজেদের তাহলে ঝালাই করতে পারছেন?

হায়দার : এটি একেক জনের একেক রকম । কেউ কেউ হয়তো ক্যাম্পে বাড়তি অনুশীলন করে। ক্যাম্পের পরে আমাদের যখন খেলা হয় প্রিমিয়ার লিগের, তখন অনুশীলনটা হয় না। তবু খেলার ফাঁকে কেউ কেউ করে। আমাদের পেসারদের উচিত ইয়র্কারটা দুই-তিন ওভার হলেও নিয়মিত অনুশীলন করা।

প্রশ্ন : নতুন বলে ভালো করতে কী করতে হবে বলে মনে করেন?

হায়দার : অ্যাকুরেসিটা ভালো থাকতে হবে। জায়গায় বল ফেলতে হবে।

প্রশ্ন : সমস্যাটা কি পেসারদের স্কিলে?

হায়দার : আসলে সব জায়গায় সবাই পারফেক্ট হয় না। ঘাটতি থাকে। ওই ঘাটতি নিয়ে কাজ করতে করতে ভালো হবে।

প্রশ্ন : আপনার নিজের কী ঘাটতি?

হায়দার : সমস্যা কিছু বলেননি ওয়ালশ। সুইং নিয়ে বলেছেন। নতুন বলে সুইং নিয়ে কাজ করছেন। আর সুযোগ পাওয়া হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে। উনারাই ভালো জানেন। আমি আমার কাজ করে যাব।

প্রশ্ন : মাশরাফি বিন মর্তুজারর পরে বাংলাদেশে ভালো পেসার নেই—এটি শুনতে হতাশ লাগে কি না?

হায়দার : মাশরাফি ভাই তো অনেক দিন ধরে খেলছেন। মাশরাফি ভাই আমাদের সবার আদর্শ। অনেক অভিজ্ঞ। আর মাশরাফি ভাই তো এক দিনে হয় নাই, অনেক দিন খেলার পর হয়েছে। আমরা প্রতিদিন ভালো খেলতে খেলতে ভবিষ্যতে ভালো করব।

প্রশ্ন : শ্রীলঙ্কায় পেসাররা কেমন করবে বলে মনে হয়?

হায়দার : আমি শ্রীলঙ্কায় আসলে যাইনি কখনো। তবে মনে হয় আমরা স্কিলগুলো কাজে লাগতে পারলে ভালোই হবে।



মন্তব্য