kalerkantho


সুয়ারেসের হ্যাটট্রিকের সঙ্গে মেসির দুই গোল

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সুয়ারেসের হ্যাটট্রিকের সঙ্গে মেসির দুই গোল

সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর জোড়া গোল, ন্যু ক্যাম্পে লিওনেল মেসিও। হ্যাটট্রিক লুই সুয়ারেসে। এদিকে রোনালদোর পাশাপাশি স্কোরশিটে নাম তুলেছেন করিম বেনজিমা ও গ্যারেথ বেল, ওদিকে লিগে বার্সা জার্সিতে প্রথম গোল ফিলিপে কৌতিনিয়োর। সব মিলিয়ে তারার হাটে ঝলমলিয়ে উঠেছেন সবাই। আলাভেসের বিপক্ষে রিয়ালের জয় ৪-০ গোলে আর জিরোনার বিপক্ষে বার্সেলোনার জয় ৬-১ গোলে।

এবারই প্রথম লা লিগায় খেলছে জিরোনা। অষ্টম কাতালোনিয়ান দল হিসেবে শনিবার রাতে ন্যু ক্যাম্পে অভিষেক হয় ‘লাল-সাদা’দের। বার্সেলোনার মতো বটবৃক্ষের ছায়ায় কাতালোনিয়ার অন্য দলগুলো খুব একটা সবল হয়ে ওঠেনি। কাতালান ডার্বিতে তাই প্রতিদ্বন্দ্বিতার আঁচ কমই। সত্তরের দশকের মাঝামাঝি সেইন্ট অ্যান্ড্রই কেবল হেরেছিল ১-০ ব্যবধানে। বাকিদের ন্যু ক্যাম্পে অভিষেক বার্সার কাছে বড় ব্যবধানে হেরেই। ব্যতিক্রম হয়নি জিরোনার বেলাতেও। ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে ক্রিস্তিয়ান পোর্তু জিরোনার হয়ে গোল করে একটা অঘটনের মৃদু শঙ্কা জাগালেও মিনিট দুয়েকেই সেটা উধাও করে দেন সুয়ারেস। এরপর একে একে জলের স্রোতের মতো আক্রমণ জিরোনার আঙিনায়, ফল ৬ গোলের বন্যায় ভেসে যাওয়া।

অথচ স্যামুয়েল উমতিতির ভুলে সুযোগ নিয়ে শুরুতেই গোল করে এগিয়ে গিয়েছিল জিরোনাই। তবে সে হাসি মিলিয়ে যায় সুয়ারেসের গোলে। মেসি থ্রু দেন বাঁ প্রান্ত দিয়ে বক্সে ঢোকা সুয়ারেসকে, এরপর গোল করতে কোনো ভুলই হয়নি তাঁর। এরপর বার দুয়েক মেসি ও সুয়ারেসের শট বাঁচিয়েছেন জিরোনা গোলরক্ষক, একটা সময় ভেঙেছে বাঁধ। ৩০ মিনিটে মেসির জোড়া গোলের প্রথম গোলটা, বল বাড়িয়ে দিয়েছিলেন সুয়ারেস। ৭ মিনিট পর মেসির আরেকটি গোল, ফ্রিকিকে। বুদ্ধিদীপ্ত গড়ানো ফ্রিকিকে গোল করে স্কোরলাইন ৩-১ করে এর্নেস্তো ভালভের্দেকে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলার সুযোগ দেন মেসি। প্রথমার্ধ শেষের আগে সুয়ারেসের আরেক গোলে নিশ্চিত হয়ে যায় বার্সার জয়। বিরতির পর খুব একটা গোলক্ষুধা দেখা যায়নি বার্সার খেলায়। এর মধ্যেও সুয়ারেসের শট লাগে পোস্টে, উসমান দেম্বেলের শট ফেরান গোলরক্ষক। ৬৬ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে দারুণ বাঁকানো শটে গোল করেন কৌতিনিয়ো। এরপর সুয়ারেসের তৃতীয় গোল, ম্যাচের ৭৬ মিনিটে। ৬-১ গোলের বড় জয়, সেই সঙ্গে বেশ কিছু রেকর্ড হয়েছে বার্সেলোনার।

জিরোনার বিপক্ষে গোল করে, লা লিগায় সবচেয়ে বেশি; ৩৬ দলের বিপক্ষে স্কোরশিটে নাম তুলেছেন মেসি। রেকর্ড অবশ্য হয়েছে জিরোনার একমাত্র গোলদাতা পোর্তুরও। এই মৌসুমে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ; লা লিগার তিন যুযুধানের বিপক্ষে গোল করা একমাত্র খেলোয়াড় যে পোর্তুই! জিরোনার সঙ্গে প্রত্যাশিত জয় পেয়ে লা লিগায় টানা ৩২ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড গড়ল বার্সেলোনা। ২০১০-১১ মৌসুমে পেপ গার্দিওলা আমলে ৩১ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ডটা ভেঙে গেল ভালভার্দের প্রথম মেয়াদেই।

আলাভেসের সঙ্গে ৪-০ গোলে জেতার ম্যাচে জোড়া গোল করে রোনালদো লা লিগায় করেছেন ৩০০ গোল। যদিও সেটা রিয়ালের হিসাব, লিগ কর্তৃপক্ষের খাতায় সেটা এখনো ২৯৯! পেপের পিঠে লেগে জালে যাওয়া রোনালদোর ফ্রিকিক থেকে করা সেই গোলটা রিয়াল রোনালদোর নামের পাশে দিলেও লিগ কর্তৃপক্ষ দিয়েছিল পেপেকেই। সব মিলিয়ে রিয়ালের জার্সি গায়ে ৪৩৫ গোল রোনালদোর। লিগে ২৮৫ ম্যাচ খেলে ৩০০ গোলের মাইলফলক ছোঁয়া রোনালদো এই জায়গাটায় মেসির চেয়ে এগিয়ে থাকার জোরালো দাবি করতে পারেন! মেসির যে বার্সেলোনার হয়ে ৩০০ গোল করতে লেগেছিল ৩২৬ ম্যাচ। ক্লাব ওয়েবসাইট, স্কাই স্পোর্টস



মন্তব্য