kalerkantho


জাতীয় দলের প্রথম ম্যাচের রোমাঞ্চ সিলেটে

ইয়াহইয়া ফজল, সিলেট থেকে   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



জাতীয় দলের প্রথম ম্যাচের রোমাঞ্চ সিলেটে

শুধু একটি ম্যাচ নয়, সিলেটবাসীর কাছে কালকের বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা টি-টোয়েন্টি ম্যাচের মাহাত্ম্য অন্যখানে। এবারই যে প্রথম বাংলাদেশ জাতীয় দল খেলতে এসেছে সিলেটে! দলকে তাই স্বাগত জানাতে এখানকার সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমীদের পাশাপাশি উন্মুখ স্থানীয় ক্রীড়াসংশ্লিষ্টরাও। মাহমুদ উল্লাহদের মাঠে বরণ করে নিতে তাই আলাদা প্রস্তুতিও নিয়েছে সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়াম আন্তর্জাতিক ভেন্যু হিসেবে অনেক আগে স্বীকৃতি পাওয়ার পর এখানে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের খেলা, বিপিএল হলেও বাংলাদেশ দলের কোনো খেলা হয়নি। শ্রীলঙ্কার সঙ্গে টি-২০ ম্যাচটির মাধ্যমে তাই প্রথমবার খেলতে নামছে বাংলাদেশ দল। বিসিবির পরিচালক ও সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরীর কণ্ঠে তাই উচ্ছ্বাস, ‘বাংলাদেশ দল প্রথমবার সিলেটের মাঠে পা রাখছে। আমরা তাদের আনুষ্ঠানিকভাবে বরণ করে নেওয়ার পরিকল্পনা করেছি। মূল সড়ক থেকে স্টেডিয়ামে ঢোকার মুখে তাঁদের বরণ করে নিতে ঘোড়ার গাড়ি, ব্যান্ড পার্টির ব্যবস্থা করা হয়েছে। এই সময়ের মধ্যে হাতি জোগাড়ের চেষ্টা চলছে। মূল সড়ক থেকে ঢোকার পর তাঁদের স্থানীয় রীতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে বরণ করে স্টেডিয়াম চত্বর পর্যন্ত নিয়ে আসা হবে।’ সিলেটের মাঠে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচকে স্মরণীয় করে রাখতে স্মারক মুদ্রাও তৈরি করছে বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা। এ ছাড়া অতিথিদের জন্য স্মারক উপহারেরও চিন্তাভাবনা আছে বলে জানালেন শফিউল আলম।

এদিকে দ্বিতীয় ও শেষ টি-২০ ম্যাচে অংশ নিতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা দল একই বিমানে গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টায় সিলেট এসে পৌঁছায়। সিলেট পৌঁছার পর দুই দলই বিশ্রামে কাটিয়েছে পুরো দিন। আজ দুই দলই অনুশীলনে ঘাম ঝরাবে।

এদিকে ম্যাচটিকে ঘিরে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা জানিয়েছে। বিপিএলের সময় সীমানাপ্রাচীর ডিঙিয়ে দর্শকদের মাঠে প্রবেশসহ নানা কারণে সমালোচনার মুখে পড়েছিল সিলেটের ভেন্যুটি। তবে এবার সেই সমস্যা থাকবে না বলে দাবি তাদের।

সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আশা করছি, সিলেটে ভালো একটি ম্যাচ উপহার পেতে যাচ্ছেন সিলেটের দর্শকরা।’ সীমানাপ্রাচীর সংক্রান্ত সমস্যা সম্পর্কে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, ‘গতবার আমাদের কিছু ঘাটতি ছিল। এবার সেগুলো আমরা যথাসম্ভব কাটিয়ে উঠেছি। সীমানাপ্রাচীর উঁচু করা হয়েছে। এবার আর অমন কিছু হওয়ার সুযোগ নেই।’



মন্তব্য