kalerkantho


‘সুপারম্যান’ মাশরাফিতে আবাহনীর জয়

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



‘সুপারম্যান’ মাশরাফিতে আবাহনীর জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক : দলের বিপর্যয়ে ব্যাট হাতে ঝোড়ো হাফসেঞ্চুরি। এরপর অল্প পুঁজি বাঁচানোর ম্যাচে বল হাতে ৪ উইকেট। ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ ইনিংস, বল হাতে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। এভাবেই সুপারম্যানের মতো মাশরাফি বিন মর্তুজা কলাবাগানের বিপক্ষে জেতালেন আবাহনীকে। খেলাঘরের বিপক্ষে ১ উইকেটের কষ্টার্জিত জয় প্রাইম দোলেশ্বরের আর শাইনপুকুরের বিপক্ষে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের জয় ২০ রানের।

বিকেএসপিতে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে আবাহনী। নাজমুল হোসেন শান্ত (৫৫) ও মোসাদ্দেক হোসেনের (৪০) রান বাদে রান ছিল না কারো নামের পাশে। এমন সময়েই মাশরাফির ৫৪ বলে ৬৭ রানের ইনিংস, যাতে ৩ বাউন্ডারির পাশাপাশি ৫টি বিশাল ছয়ের মার। ৪৯.৫ ওভারে ২২৭ রানে অল আউট হয় আবাহনী, মুক্তার আলী নেন ৩ উইকেট। বল হাতেও কলাবাগানের জন্য আতঙ্ক হয়ে দেখা দেন মাশরাফি। ৪৯ রানে ৪ উইকেট নিয়ে কলাবাগানকে ১৮১ রানে আটকে রাখতে বড় ভূমিকা তাঁরই। সঙ্গে তাসকিন আহমেদও ৩০ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ছিলেন মাশরাফির যোগ্য সঙ্গী। ৪৮.১ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ১৮১ রানেই থেমে যাওয়া কলাবাগানের হার ৩৬ রানে। এই ম্যাচে ৭১ বলে ২ বাউন্ডারিতে ২৫ রানের ধৈর্যশীল (?) ইনিংস খেলেছেন মোহাম্মদ আশরাফুল।

খেলাঘরের ৭ উইকেটে ১৯৯ রানের জবাবে একটা সময় সহজ জয়ের পথেই ছিল প্রাইম দোলেশ্বর। ৩৫ ওভারে ২ উইকেটে ১৩৫ রান, এমন অবস্থা থেকেই হঠাৎ ছন্দপতন। সহজ ম্যাচটা কঠিন করে তারা জিতেছে মাত্র ১ উইকেটে। বিশেষ করে শেষ ওভারে, পর পর দুই বলে দুই উইকেট হারিয়ে খাদের কিনারায় চলে গেলেও শেষ পর্যন্ত রক্ষা ফরহাদ রেজার দলের।

জাকির অনিক (৯০) আর নাদিফ চৌধুরীর  (৭১) হাফসেঞ্চুরির সঙ্গে রজত ভাটিয়ার ৩৪ বলে ৫৮ রানের ইনিংসে ভর করে ৬ উইকেটে ২৭৯ রানের বড় লক্ষ্যই বোর্ডে জমা করেছিল গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। জবাবে টপ অর্ডারের চারজন রান পেলেও কেউ শেষ পর্যন্ত টিকে না থাকায় ২০ রানে হেরে যায় প্রথম বিভাগ থেকে উঠে আসা শাইনপুকুর। সাব্বির ৫৫, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলে আসা তৌহিদ হৃদয় ৫১ আর ভারতীয় রিক্রুট উদয় কউল ৫৯ রান করলেও পারেননি দলকে জেতাতে। চট্টগ্রাম টেস্টের স্কোয়াডে ডাক পাওয়া নাঈম হাসান নিয়েছেন ৩ উইকেট।


মন্তব্য