kalerkantho


ফিরেই পেনাল্টি বাঁচালেন বুফন

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ফিরেই পেনাল্টি বাঁচালেন বুফন

‘চল্লিশেও চালশে নয়’—এই প্রবাদও ক্লিশে হয়ে গেছে জিয়ানলুইজি বুফনের কাছে। চল্লিশে পা রেখে পরশুই প্রথম পোস্টের নিচে দাঁড়িয়েছিলেন। ইতালিয়ান কাপের ম্যাচে তো দীর্ঘ পাঁচ বছর। আর  ইনজুরিতেও খেলার বাইরে ছিলেন গত দুই মাস। কিন্তু তেকাঠির নিচে দাঁড়াতেই বয়স, না খেলা—সব কিছু যেন গৌণ হয়ে যায় এই ইতালিয়ান কিংবদন্তির সামনে। কাপে সেমিফাইনালের প্রথম লেগে পেনাল্টি শটেও তাই তাঁকে হারানো যায় না। ১-০ গোলের জয়ে একমাত্র গোল করে গনসালো হিগুয়েইনকেও তাই পার্শ্বনায়ক হয়ে থাকতে হয়।

হিগুয়েইন এদিন এ মৌসুম জুভেন্টাসের সবচেয়ে দ্রুততম গোলটি করেছেন। খেলা শুরুর আড়াই মিনিটের মাথায়ই প্রতিপক্ষ ডিফেন্স চিরে বেরিয়ে প্লেসিং শটে বল জালে জড়িয়েছেন। ম্যাচের আধঘণ্টার মধ্যেই আতালান্তা সমতায় ফেরার সুযোগ পায় বক্সের ভেতর মাধি বেনাতা হ্যান্ডবল করলে। কিন্তু আলেজান্দ্রো গোমেজের পেনাল্টি কিক বাঁদিকে ঝাঁপিয়ে ফিরিয়ে দেন বুফন। এরপর আরো দুটি অসাধারণ সেভ ছিল তাঁর ম্যাচে। কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো আলেগ্রির বিশেষ প্রশংসাই তাই বরাদ্দ ছিল বুফনের জন্য, ‘ওকে নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। পাঁচ বছর পর প্রথম কাপের ম্যাচ খেলেছে সে। ইনজুরিতে মাঠেও ছিল না ৪৫ দিন। কিন্তু সে যা জানে তা তো ভুলে যায়নি। সব সময়ই তাই আমাদের নাম্বার ওয়ান গোলরক্ষক বুফন।’ তুরিনে দ্বিতীয় লেগে কোনো অঘটন না হলে নিশ্চিতভাবেই আরেকটি ট্রফির জন্য ঝাঁপাতে যাচ্ছেন বয়সকে হার মানানো বুফন।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ট্রফির হিসাব-নিকাশ নেই আর্সেনাল ও লিভারপুলের। পরশু সোয়ানসি সিটির কাছে ৩-১ গোলে হেরে গানারদের এখন ইউরোপা লিগে জায়গা পাওয়া নিয়েও অনিশ্চয়তা। সোয়ানসি লিগে পর পর দুটি বড় মাছ শিকার করেছে। আগের ম্যাচেই ১-০তে হারিয়েছে তারা লিভারপুলকে। পরশু লিবার্টি স্টেডিয়ামে আর্সেনালই অবশ্য এগিয়ে গিয়েছিল নাচো মনরিয়ালের গোলে। স্যামুয়েল ক্লুকাসের গোলে স্বাগতিকরা প্রতিক্রিয়া দেখায় প্রায় সঙ্গে সঙ্গে। দ্বিতীয়ার্ধে আরো এক গোল করে ব্যবধান বাড়িয়েছেন তিনি। মাঝখানে ২-১ করেছিলেন আন্দ্রে আইয়ু। এই জয়ে অবনমন অঞ্চল থেকেও মাথা তুলেছে ওয়েলসের ক্লাবটি। আর্সেনাল টটেনহামের চেয়ে ৩ পয়েন্ট পেছনে এখনো ষষ্ঠ স্থানে। লিগের অন্য ম্যাচে বিপরীত অভিজ্ঞতা লিভারপুলের। সোয়ানসি ও ওয়েস্ট ব্রমউইচের কাছে টানা দুই হারের পর হাডার্সফিল্ডের মাঠে এদিন ৩-০ গোলের জয় পেয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। এমেরি চ্যান, রবার্তো ফিরমিনোর পর পেনাল্টি থেকে গোল করেছেন মোহাম্মদ সালাহও। জানুয়ারির শুরুতেই ম্যানচেস্টার সিটিকে ৪-৩ গোলে হারানোর তৃপ্তি মুছে গিয়েছিল তাদের টানা দুই হারে। পরশুর এই জয় অলরেডদের তাই আত্মবিশ্বাস ফেরানোরও। এএফপি


মন্তব্য