kalerkantho


ষষ্ঠ হয়ে শেষ করল যুবারা

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ষষ্ঠ হয়ে শেষ করল যুবারা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটে দক্ষিণ আফ্রিকা কঠিন প্রতিপক্ষ নয় বাংলাদেশের। গতকালের আগে মুখোমুখি ২১ ম্যাচে মাত্র সাতটিই জিতেছিল প্রোটিয়ারা। কিন্তু বিশ্বকাপে সব সময় উল্টো ছবি। দুই দলের পাঁচবারের দেখায় বাংলাদেশকে চারবার হারিয়েছিল তারা। এবারও ব্যর্থতার বলয় ভাঙা হলো না বাংলাদেশি যুবাদের। পঞ্চম ও ষষ্ঠ স্থান নির্ধারণী ম্যাচে গতকাল সাইফ হাসানের দলকে বিধ্বস্তই করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কুইন্সটাউনে সাইফের দলের ১৭৮ রানের চ্যালেঞ্জ ৬৯ বল আর ৮ উইকেট হাতে রেখে পেরিয়ে যায় প্রোটিয়ারা। ৮ উইকেটে হেরে বাংলাদেশ বিশ্বকাপ অভিযান শেষ করল ছয়ে থেকে। আর রায়নার্দ ফন টনডারের দল দেশে ফিরবে পঞ্চম হয়ে।

কুইন্সটাউনে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ১০ ওভারেই ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে বাংলাদেশ। ফ্রেজার জোন্স ও আকোনা এমনায়েকের গতি সামলাতে না পেরে নবম ওভারে ৩৩ রানে হারিয়ে বসে ৫ উইকেট। অধিনায়ক সাইফ হাসান ১, মোহাম্মদ নাইম ২, আমিনুল ইসলাম ৭, তৌহিদ হৃদয় ১ ও মোহাম্মদ রাকিব ফেরেন ২ রানে। ষষ্ঠ উইকেটে আফিফ হোসেন ও শাকিল হোসেনের ৯৬ রানের জুটিতে বিপর্যয় এড়ায় তারা। তবে জুটিটা ভাঙার পর শেষ দিকের ব্যাটসম্যানরা করতে পারেননি তেমন কিছু। বাংলাদেশ গুটিয়ে যায় ৪১.৪ ওভারে ১৭৮-এ। আফিফ ৫৯ বলে ৭ বাউন্ডারি ২ ছক্কায় ৬৩ আর শাকিল ৮৯ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ফেরেন ৬১ রানে। জোন্স ৫ ও এমনায়েকে নেন ৩ উইকেট।

এত কম রানের পুঁজি নিয়ে বিশেষ কিছু করতে হতো বোলারদের। সেটা হয়নি। অধিনায়ক রায়নার্দ ফন টনডারের ৯৯ বলে হার না মানা ৮২ রানে ভর করে ৮ উইকেটের সহজ জয় পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। হারমান রোলফ অপরাজিত ছিলেন ৪৪ রানে। রনি হোসেন ও কাজী অনিক নেন একটি করে উইকেট। এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের মধ্যে ছয় ম্যাচে চার ফিফটিসহ ৪৬.০০ গড়ে সবচেয়ে বেশি রান আফিফ হোসেনের। টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ রান করা ব্যাটসম্যানদের তালিকায় তিনি রয়েছেন ৮ নম্বরে। এ ছাড়া সাইফ হাসান ১৭৪ ও তৌহিদ হৃদয় করেছেন ১৫৪ রান। বোলিংয়ে সেরা কাজী অনিক। বাংলাদেশিদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১০ উইকেট তাঁর। এ ছাড়া হাসান মাহমুদ ৯ ও আফিফ হোসেন বিশ্বকাপ শেষ করলেন ৮ উইকেট নিয়ে।



মন্তব্য