kalerkantho



যেভাবে খেলেছেন তাতে সন্তুষ্ট তামিম

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



যেভাবে খেলেছেন তাতে সন্তুষ্ট তামিম

ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে নিজের আউটটা মনে পড়লে এখনো অনুতাপে পোড়েন তামিম ইকবাল। দারুণ ফর্মে থেকেও বিভিন্ন ফরম্যাটে সেঞ্চুরির সুযোগ হাতছাড়া হওয়ার খেদও আছে তাঁর মনে। তবে গতকাল চট্টগ্রাম টেস্টের শুরুর দিনে আরেকটি ফিফটিকে সেঞ্চুরিতে টেনে নিয়ে যেতে না পারা নিয়ে কোনো দুঃখ নেই। বরং দিন শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে প্রশান্তির কথাই জানিয়েছেন বাংলাদেশের বাঁহাতি এই তারকা ওপেনার। সেখানে উপস্থিত ছিলেন কালের কণ্ঠের প্রতিনিধিও

 

দিন শেষের মূল্যায়ন...

দ্বিতীয় উইকেটে (মমিনুল-মুশফিক জুটি) আমরা যেভাবে পারফরম করেছি, আমার মনে হয় ওইভাবে দিনটা শেষ করতে পারলে এটা আমাদের কমপ্লিট পারফরম্যান্স হতে পারত। সত্যি বলতে কি, এটা নিয়ে চিন্তায় ছিলাম, যদি ধস নামে! সাধারণত বড় কোনো জুটি হলে আমাদের ক্ষেত্রে এমন (ধস) হয়। একটু বেশিই হয়। তাই আমরা আমাদের পক্ষ থেকে ব্যাটসম্যানদের এই বিষয়ে বার্তা দিচ্ছিলাম। কিন্তু দুঃখজনকভাবে মুশফিক আউট হওয়ার পর লিটনও আউট হয়ে গেল। তার পরও বলব, দারুণ একটা দিন গেছে। আমরা আক্রমণাত্মক ছিলাম, ইতিবাচক ছিলাম; একেবারে প্রথম বল থেকেই। এটা দারুণ অভিজ্ঞতা। আমরা ভাগ্যবান যে আগে ব্যাটিং করছি। শেষ দিকে দুটি উইকেট না হারালে প্রত্যাশা পুরোপুরি পূর্ণ হতো।

নিজের ব্যাটিং পরিকল্পনা...

আমার মনে হয়েছিল, আমি যদি ইতিবাচকভাবে শুরু করি, তাহলে ওরা (শ্রীলঙ্কা) চাপে পড়ে যাবে। সেটাই হয়েছে। আমার প্ল্যানটা কাজে লেগেছে। ওদের মূল বোলারদেরই টার্গেট করেছিলাম। আমরা সফলও হয়েছি। ওদের যে অবস্থায় দেখতে চেয়েছিলাম, সেটা দেখেছি। সত্যি কথা বলতে কি, একটা পর্যায়ে তারা বুঝতেই পারছিল না কোথায় বল করবে।

মমিনুলের ইনিংস...

চোখ জুড়ানো ইনিংস খেলেছে মমিনুল। প্রথম থেকেই ও আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেছে, সেভাবেই পুরো ইনিংস খেলে গেছে। সেঞ্চুরি করার সময় ওর স্ট্রাইক রেট ছিল সম্ভবত ১০৩। আমরা জানতাম এই উইকেটে প্রথম দিন ব্যাটিং করা সহজ হবে। তবে সেই সুবিধা কাজে লাগানোও গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আমরা সেই সুযোগটা নিতে পেরেছি। অনেক সময় দেখা যায়, ব্যাটিং উইকেট পেয়ে বেশি উত্তেজিত হয়ে ঝুঁকিপূর্ণ শট খেলে অনেকে আউট হয়ে যায়। আজ ওরকম হয়নি। মমিনুল জানত ওর উইকেটটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। একটা বড় জুটি গড়া দরকার ছিল। মুশফিক ও মমিনুল ইতিবাচক থেকে সেরকম একটা জুটি গড়েছে। মারার বল পেলে তারা মেরেছে। আমার দৃষ্টিতে তাদের খেলাটা কমপ্লিট ছিল। মমিনুল এখনো ক্রিজে আছে। আশা করি সে আরো অনেক দূর যাবে। ব্যক্তিগতভাবে মনে করি, মমিনুলের কিছু প্রমাণ করার ছিল এবং ও সেটা দারুণভাবে করেছে।

তাঁর সেঞ্চুরি উদ্‌যাপন...

ওই যে বললাম, মমিনুলের কিছু একটা প্রমাণ করার ছিল এবং সেটাই ও করেছে। আমার কাছেও দেখে খুব ভালো লেগেছে। ওর সঙ্গে কথা হয়নি এটা নিয়ে। তবে জানি কেন ও এভাবে উদ্‌যাপন করেছে!

উইকেট প্রসঙ্গে...

ভেবেছিলাম উইকেটে আরো বেশি বল ঘুরবে। কিন্তু আমরা আগে ব্যাটিং করছি, তাই এটা নিয়ে কোনো অভিযোগ নেই। আমরা যত বেশি রান করতে পারি, সেই চেষ্টাই থাকবে। আমার মনে হয় কাল (আজ) থেকে রান করা কঠিন হবে। তবে আমরা এখন ভালো অবস্থানে আছি। এখান থেকে আমাদের আরো রান করতে হবে। যতই ফ্ল্যাট উইকেট হোক না কেন, বড় রান সব সময়ই পরে ব্যাটিং করা দলের জন্য কঠিন। আমরা সেটাই নিশ্চিত করতে চাই।

দ্বিতীয় দিনের লক্ষ্য...

আমরা যে অবস্থানে আছি, সেখান থেকে অনেক রান করা সম্ভব। ঠিক কত রান করতে চাই, সেরকম কিছু বলতে পারছি না। তবে আমরা খুব ভালো একটা রান রেট নিয়ে এগোচ্ছি। কালও আমাদের দারুণ শুরু করতে হবে।

লিটনের আউট...

(হাসি) ও কতবার এভাবে আউট হয়েছে, তা আপনাদের মনে থাকে কী করে? আমারই তো মনে নাই! আমিও এভাবে আউট হয়েছি বারদুয়েক। আমাদের ভুলের কারণেই এটা হয়।



মন্তব্য