kalerkantho


ম্যানইউতে সানচেস

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ম্যানইউতে সানচেস

আনুষ্ঠানিক ঘোষণাটাই বাকি শুধু। নইলে অ্যালেক্সিস সানচেস চলে এসেছেন ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। হেনরিক মিখিতারিয়ান গেছেন লন্ডনে। দুজনেরই মেডিক্যাল হওয়ার কথা গতকাল। আজ আনুষ্ঠানিকভাবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড জানিয়ে দেবে সানচেস এখন তাদের। তেমনি আর্সেনাল নিশ্চিত করবে ম্যানইউ থেকে মিখিতারিয়ানের যোগ দেওয়ার কথা। দুই পক্ষের সমঝোতায় গতকাল হয়ে গেছে এই অদলবদল।

স্কাই স্পোর্টস জানিয়েছে, সানচেস আর মিখিতারিয়ানকে পেতে কোনো টাকা খরচ করতে হচ্ছে না ঐতিহ্যবাহী ইংলিশ দুই ক্লাবকে। কারণ জুনে এমনিতেই চুক্তির মেয়াদ শেষ সানচেসের। তখন খালি হাতে ছেড়ে দেওয়ার চেয়ে একজন মানসম্পন্ন খেলোয়াড় পাওয়াটা লাভের আর্সেনালের জন্য। তবে ডেইলি মেইলের অনুমান মিখিতারিয়ানকে দেওয়ার পাশাপাশি সানচেসকে পেতে ম্যানইউ ২০ মিলিয়ন পাউন্ড দেবে আর্সেনালকে আর ১৫ মিলিয়ন তাঁর এজেন্টকে। সত্যিটা জানা যাবে আজই।

মৌসুমের মাঝপথে এভাবে সানচেসের মতো গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ছেড়ে দেওয়ার সমালোচনাই করলেন লিভারপুল ম্যানেজার ইয়ুর্গেন ক্লপ, ‘আমি হলে কখনই একই লিগের প্রতিপক্ষ দলের কাছে মৌসুমের মাঝপথে কাউকে বিক্রি করতাম না।’ ইংলিশ সাবেক তারকা মাইকেল ওয়েইনও মানতে পারছেন না সানচেসের ম্যানইউতে আসা, ‘ভালো ফরোয়ার্ড হতে চাইলে মরিনহোর অধীনে খেলার মানে কি?’ যে যা-ই বলুক, সপ্তাহে চার লাখ ৫০ হাজার পাউন্ডের চুক্তিতে ম্যানইউতে যোগ দিচ্ছেন সানচেস। চুক্তির মেয়াদ হতে পারে সাড়ে চার বছরের। এসব বিস্তারিত জানা যাবে আজ। তাঁর আসার ইঙ্গিত অবশ্য কদিন আগেই দিয়েছিলেন মরিনহো, ‘আমি মনে করি খুব কাছাকাছি আমরা। জানি ম্যানইউর কর্তারা ওকে যত দ্রুত সম্ভব আনার চেষ্টা করে যাচ্ছে। মনে হচ্ছে সফল হতে যাচ্ছি।’

সানচেসকে ছেড়ে দিয়ে আর্সেনাল পেতে চায় বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের ফরোয়ার্ড পিয়েরে এমেরিক অবামায়েংকে। নতুন মৌসুমে ২৩ ম্যাচে ২১ গোল করা এই তারকার জন্য ৫০ মিলিয়ন পাউন্ডের প্রস্তাবও দিয়েছে তারা।

এদিকে বার্সেলোনায় যোগ দেওয়া ফিলিপে কৌতিনিয়ো পেতে যাচ্ছেন ১৪ নম্বর জার্সি। আরদা তুরানের ছেড়ে দেওয়া ৭ নম্বরটা নাকি আগামী মৌসুমে আন্তোয়ান গ্রিয়েজমানের জন্য তুলে রাখছে বার্সা। কাতালানদের হয়ে ১৪ নম্বর জার্সিটা পরেন হাভিয়ের মাসচেরানো। একই নম্বরের জার্সি পরে দুজন খেলতে পারেন না? তার মানে মাসচেরানোর চীনে চলে যাওয়াটা নিশ্চিত।

জিনেদিন জিদান নিশ্চিত করেছেন দলের দুঃসময়েও জানুয়ারিতে কোনো খেলোয়াড় কিনছে না তারা। হ্যারি কেইনের জন্য রিয়াল অপেক্ষা করবে আগামী মৌসুম পর্যন্ত। আর নেইমার? এ নিয়ে জিদানের কুটনৈতিক উত্তর, ‘যেসব খেলোয়াড় আমার দলে নেই ওদের নিয়ে কথা বলতে চাই না। তবে নেইমারকে ফুটবলবিশ্বের সবাই ভালোবাসে কারণ ও অসাধারণ খেলোয়াড়।’ ডেইলি মেইল



মন্তব্য